আদালতে নারী পুলিশ কর্মকর্তাকে হেনস্তা করলেন আইনজীবীরা, ভিডিও ভাইরাল

প্রকাশ : ০৮ নভেম্বর ২০১৯, ১৬:০০ | অনলাইন সংস্করণ

  অনলাইন ডেস্ক

ভারতের দিল্লির একটি আদালত চত্বরে এক নারী পুলিশ কর্মকর্তাকে শত শত আইনজীবী হেনস্তা করেছেন বলে অভিযোগ ‍উঠেছে। 

শনিবার তিস হাজারি আদালত চত্বরে এ ঘটনা ঘটে। 

ভুক্তভোগী ওই নারী পুলিশ কর্মকর্তার নাম মনিকা ভরদ্বাজ। তিনি দিল্লির ডিসিপি (নর্থ ডিস্ট্রিক্ট)। 

তার অভিযোগ, সেদিন ওই আইনজীবীরা তাকে নিগ্রহ করেছেন। সেই সঙ্গে খোয়া গিয়েছে তার অধঃস্তন এক পুলিশকর্মীর সার্ভিস রিভলভার। 

ডিসিপির অভিযোগ, সেদিন ওই রিভলভার ছিনিয়ে নেয়া হয়েছে। এখনও পর্যন্ত তার খোঁজ মেলেনি।

আনন্দবাজারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত শনিবার দুপুরে তিস হাজারি আদালত চত্বরে গাড়ি পার্ক করা নিয়ে পুলিশকর্মীদের সঙ্গে ঝামেলা বাধে আইনজীবীদের। আইনজীবীদের সঙ্গে পুলিশকর্মীদের হাতাহাতি ছাড়াও গুলি চালানোর ঘটনাও ঘটে। 

পুলিশের গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। ওই ঘটনায় ২০ পুলিশকর্মী এবং একাধিক আইনজীবী আহত হন। 

এদিন একদল আইনজীবী ওই নারী পুলিশ কর্মকর্তাকে ঘিরে ধরেন। এসময় তাকে বাঁচানোর জন্য ছুটে আসেন কয়েকজন পুলিশকর্মী। কোনো রকমে আইনজীবীদের হাত থেকে ওই কর্মকর্তাকে উদ্ধার করা হয়। 

তিস হাজারি আদালত চত্বরে পুলিশকর্মী ও আইনজীবীদের সংঘর্ষের সময় এই ছবি ধরা পড়েছে সিসিটিভি ফুটেজে। 

দিল্লি পুলিশের মুখপাত্র অনিল মিত্তল জানিয়েছেন, সে দিনের ঘটনায় মনিকা ভরদ্বাজের বয়ান রেকর্ড করা হয়েছে। তার অভিযোগের ভিত্তিতে এফআইআরও দায়ের করা হবে। ওই সিসিটিভি ফুটেজ ছাড়াও ঘটনার দিন দুজন পুলিশকর্মীর কথোপকথনের রেকর্ডিংও খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিও ছাড়াও সে দিন দুই পুলিশকর্মীর কথোপকথনের শোনা গেছে একটি অডিওর রেকর্ডিংয়ে। 

তাতে শোনা গিয়েছে, মনিকা ভরদ্বাজের নিগৃহীত হওয়ার কথা বলছেন দুই পুলিশকর্মী। তাকে রক্ষা করার সময়ই সার্ভিস রিভলভার ছিনিয়ে নেয়া হয়েছে বলেও জানাচ্ছেন একজন। 

এ ছাড়া ঘটনার সময় এক পুলিশকর্মীর মাথায়, কাঁধে, কব্জিতে এবং হাতের আঙুলে চোট পাওয়ার কথা বলতে শোনা গেছে।