উইঘুর নির্যাতন: জার্মানিতে চীনা সামরিক বাহিনীকে প্রশিক্ষণ না দেয়ার আহ্বান

  যুগান্তর ডেস্ক ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ১৮:৪৪:১৭ | অনলাইন সংস্করণ

ছবি: এএফপি

জার্মান সামরিক বাহিনীতে চীনা সৈনিকদের প্রশিক্ষণ না দেয়ার আহ্বান জানিয়েছে মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।

রোববার জার্মান প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে জার্মান পত্রিকা বিল্ড জানিয়েছে, আগামী বছর ১১জন চীনা সৈনিককে আধুনিক প্রশিক্ষণ দেবে জার্মান সামরিক বাহিনী। এরমধ্যে একজন সৈনিককে প্রেস ও মিডিয়া বিষয়ক বিশেষ প্রশিক্ষণও দেওয়া হবে।

প্রতিবেদনটিতে জানানো হয়, চীনা সৈনিকরা প্রায়ই জার্মান সামরিক বাহিনী আয়োজিত নানা প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করে থাকেন।

চীনা সৈনিকদের প্রশিক্ষণ দেয়ার বিরুদ্ধে ইতিমধ্যে জার্মানির গ্রিন পার্টি ও বেশ কিছু মানবাধিকার কর্মীও সরব হয়েছে।

গ্রিন পার্টির মুখপাত্র মার্গারেট বাওজে ও টোবিয়াস লিন্ডনার বলেন, ‘চীনে মানবাধিকারের অবস্থা খুব খারাপ। জিনজিয়াং প্রদেশে গণহারে মানুষের ওপর নজরদারি করা হচ্ছে। ওখানে যা ঘটছে তা গণহত্যার সমান, এটা মানবতার বিরুদ্ধে সংঘটিত অপরাধ।’

মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের পক্ষে মাটিয়াস জন বিল্ড আম সনটাগ পত্রিকাকে জানান, চীনা সামরিক বাহিনীকে প্রশিক্ষণ দিয়ে সাহায্য করার পেছনে জার্মানির কোনো কারণই থাকতে পারে না।

চীনের মানবাধিকার লঙ্ঘন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, জার্মান সরকারের অবিলম্বে চীনকে কড়া বার্তা দেয়া উচিত ও সব ধরনের সামরিক সাহায্য থেকে বিরত থাকা উচিত।

চীনে সংখ্যালঘু উইঘুর মুসলিম সম্প্রদায়ের ২০ লাখেরও বেশি মানুষকে বন্দিশিবিরে আটক ও নির্যাতনের বিষয়ে সরকারি একটি গোপন নথি ফাঁস হয়েছে। চীন সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ের নির্দেশে ক্ষুদ্র নৃতাত্ত্বিক গোষ্ঠী উইঘুরদের ওপর নির্যাতন চালানো হয় বলে ওই নথিতে উঠে এসেছে।

রোববার নিউইয়র্ক টাইমস এই নথির বরাত দিয়ে খবর প্রকাশ করে। এ ছাড়া ফাঁস হওয়া নথির কিছু অংশ নিজেদের ওয়েবসাইটেও প্রকাশ করেছে গণমাধ্যমটি।

প্রায় ৪০০ পাতা দীর্ঘ এই নথি সামনে আসার পর থেকে বর্তমানে নতুন করে আলোচনায় চীনের অবিরত মানবাধিকার লঙ্ঘন।

এমন প্রেক্ষাপটে জার্মানির চীনা সামরিক বাহিনীকে প্রশিক্ষণ দেয়ার বদলে এই বিষয়ে কড়া বার্তা দেবার দাবি তুলছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল এবং জার্মানির রাজনৈতিক দলগুলো।

সূত্র: ডয়চে ভেলে

ঘটনাপ্রবাহ : চীনে উইঘুর নির্যাতন

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত