নিরাপত্তা ইস্যুতে ইমরানের সঙ্গে বৈঠকে বসতে চান গোয়েন্দা প্রধান
jugantor
নিরাপত্তা ইস্যুতে ইমরানের সঙ্গে বৈঠকে বসতে চান গোয়েন্দা প্রধান

  অনলাইন ডেস্ক  

১৯ নভেম্বর ২০১৯, ২২:২১:৩৬  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ও আইএসআই প্রধান লেফটেনেন্ট জেনারেল ফয়েজ হামিদ
প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ও আইএসআই প্রধান লেফটেনেন্ট জেনারেল ফয়েজ হামিদ। ছবি: ডন

জাতীয় নিরাপত্তার ইস্যু নিয়ে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে বৈঠকে বসতে চান আন্তঃবাহিনী গোয়েন্দা বিভাগের মহাপরিচালক (আইএসআই) লেফটেনেন্ট জেনারেল ফয়েজ হামিদ। 

মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তার কার্যালয়ে বৈঠকে তিনি এ কথা জানান। খবর পাকিস্তানের প্রভাবশালী গণমাধ্যম ডন অনলাইনের।

পরে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, জাতীয় নিরাপত্তার সঙ্গে সম্পর্কিত বিষয় নিয়ে বৈঠকে আমাদের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। তবে বৈঠকে আলোচনার বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হয়নি। 

গত জুন মাসে সেনাবাহিনীর এক বিস্ময়কর রদবদতে লেফটেন্যান্ট জেনারেল ফয়েজকে দেশটির শীর্ষস্থানীয় গোয়েন্দা সংস্থার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল।  

গোয়েন্দা সংস্থার প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ার পর জুনে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছিলেন। 

এদিকে পাকিস্তানের আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ (আইএসপিআর) শাখার প্রধান জেনারেল আসিফ গফুর দেশটির বেসামরিক ও সামরিক নেতৃত্বের মধ্যে কথিত বিভাজনের দাবি অস্বীকার করে বিবৃতি দিয়েছেন। 

এতে তিনি প্রধানমন্ত্রী ও সেনাপ্রধানের মধ্যে দূরত্বে বিষয়টি নিয়ে ব্যাখ্যা দিয়ে বলেছেন, এটি গুজব।  সজানোর কিছুই নেই। 

সেনা মুখপাত্র আসিফ গফুর দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়ার সম্পর্কের অবনতির বিষয়টি প্রত্যাখ্যান করেছেন। 

তিনি বলেন, সংবিধান অনুযায়ী পাকিস্তানি সেনাবাহিনী গণতান্ত্রিক উপায়ে বিজয়ী সরকারকে সমর্থন করছে। পাকিস্তানের অগ্রগতি ও সমৃদ্ধির জন্য এই সমর্থনে কোনো ছাড় দেয়া হবে না।

পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) সরকারের প্রথম দিনগুলোতে প্রধানমন্ত্রী ও সেনাপ্রধান যতটা সময় যোগাযোগ করতেন এখন তত যোগাযোগ করেন না-মেজর জেনারেল আসিফ গফুর এ বক্তব্যও নাকচ করে দিয়েছিন।

আইএসপিআর প্রধান বলেন, সেনাপ্রধান বাজওয়া ও প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান একে অন্যের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ করছেন। যখন কিছু বলার দরকার পড়ে, তখনই সাংবাদিকদের ডাকা হয়, সবসময় নয়।

তাদের মধ্যকার শেষ দুটি আলোচনার সংবাদ প্রচারে সব গণমাধ্যমকে ডাকা হয়েছিল

নিরাপত্তা ইস্যুতে ইমরানের সঙ্গে বৈঠকে বসতে চান গোয়েন্দা প্রধান

 অনলাইন ডেস্ক 
১৯ নভেম্বর ২০১৯, ১০:২১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ও আইএসআই প্রধান লেফটেনেন্ট জেনারেল ফয়েজ হামিদ
প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ও আইএসআই প্রধান লেফটেনেন্ট জেনারেল ফয়েজ হামিদ। ছবি: ডন

জাতীয় নিরাপত্তার ইস্যু নিয়ে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে বৈঠকেবসতে চান আন্তঃবাহিনী গোয়েন্দা বিভাগের মহাপরিচালক (আইএসআই) লেফটেনেন্ট জেনারেল ফয়েজ হামিদ।

মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তার কার্যালয়ে বৈঠকে তিনি এ কথা জানান।খবর পাকিস্তানের প্রভাবশালী গণমাধ্যম ডন অনলাইনের।

পরে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, জাতীয় নিরাপত্তার সঙ্গে সম্পর্কিত বিষয় নিয়ে বৈঠকে আমাদের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। তবে বৈঠকে আলোচনার বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হয়নি।

গত জুন মাসে সেনাবাহিনীর এক বিস্ময়কর রদবদতে লেফটেন্যান্ট জেনারেল ফয়েজকে দেশটির শীর্ষস্থানীয় গোয়েন্দা সংস্থার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল।

গোয়েন্দা সংস্থার প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ার পর জুনে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছিলেন।

এদিকে পাকিস্তানের আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ (আইএসপিআর) শাখার প্রধান জেনারেল আসিফ গফুর দেশটির বেসামরিক ও সামরিক নেতৃত্বের মধ্যে কথিত বিভাজনের দাবি অস্বীকার করে বিবৃতি দিয়েছেন।

এতে তিনি প্রধানমন্ত্রী ও সেনাপ্রধানের মধ্যে দূরত্বে বিষয়টি নিয়ে ব্যাখ্যা দিয়ে বলেছেন, এটি গুজব। সজানোর কিছুই নেই।

সেনা মুখপাত্র আসিফ গফুর দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়ার সম্পর্কের অবনতির বিষয়টি প্রত্যাখ্যান করেছেন।

তিনি বলেন, সংবিধান অনুযায়ী পাকিস্তানি সেনাবাহিনী গণতান্ত্রিক উপায়ে বিজয়ী সরকারকে সমর্থন করছে। পাকিস্তানের অগ্রগতি ও সমৃদ্ধির জন্য এই সমর্থনে কোনো ছাড় দেয়া হবে না।

পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) সরকারের প্রথম দিনগুলোতে প্রধানমন্ত্রী ও সেনাপ্রধান যতটা সময় যোগাযোগ করতেন এখন তত যোগাযোগ করেন না-মেজর জেনারেল আসিফ গফুর এ বক্তব্যও নাকচ করে দিয়েছিন।

আইএসপিআর প্রধান বলেন, সেনাপ্রধান বাজওয়া ও প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান একে অন্যের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ করছেন। যখন কিছু বলার দরকার পড়ে, তখনই সাংবাদিকদের ডাকা হয়, সবসময় নয়।

তাদের মধ্যকার শেষ দুটি আলোচনার সংবাদ প্রচারে সব গণমাধ্যমকে ডাকা হয়েছিল

 

ঘটনাপ্রবাহ : পাকিস্তানে ইমরান খান বিরোধী বিক্ষোভ