বিক্ষোভে যোগ দেয়ায় বিখ্যাত উর্দু কবি মুনাওয়ারের ২ মেয়ের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশ : ২২ জানুয়ারি ২০২০, ১৬:২৮ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক

ছবি: এনডিটিভি

ভারতের উত্তরপ্রদেশে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে অংশ নেয়ায় বিখ্যাত উর্দু কবি মুনাওয়ার রানার দুই মেয়ের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা করেছে ভারতীয় পুলিশ।

তাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সমাবেশে অংশগ্রহণের অভিযোগ আনা হয়েছে। যদিও লখনৌতে ১৪৪ ধারা অমান্য করে এই ধর্মভিত্তিক আইনের পক্ষে সমাবেশের আয়োজন করেছে ক্ষমতাসীন হিন্দুত্ববাদী দল বিজেপি।

কবি মুনাওয়ার রানা বলেন, নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সমাবেশে যোগ দেয়ায় আমার মেয়ে সুমাইয়া ও ফৌজিয়ার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। কিন্তু মঙ্গলবার কয়েক হাজার জনতার সামনে বক্তৃতা দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এখন তার কী হবে? -খবর এনডিটিভির

তিনি বলেন, ওই সমাবেশে অবশ্যই চার জনের বেশি লোক অংশ নিয়েছিল। কাজেই সেখানে ভিন্ন আইন হবে কেন?

যদিও তার অভিযোগ খণ্ডন করে বিজেপি মুখপাত্র চন্দ্র মোহন বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সমাবেশের আগে অনুমোদন নেয়া হয়েছিল। কিন্তু মুনাওয়ার রানা প্রশ্ন করেন, একটি আইন লঙ্ঘন করে কি সমাবেশের অনুমতি দেয়া সম্ভব?

উত্তর প্রদেশের কংগ্রেস সভাপতি অজয় কুমার লাল্লুও এই বিখ্যাত কবিকে সমর্থন দিয়েছেন। তিনি বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ক্ষেত্রে ১৪৪ ধারা প্রযোজ্য হবে না কেন? আইন লঙ্ঘনের অভিযোগে সাধারণ লোকজনকে তুলে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। কিন্তু ক্ষমতাসীন বিজেপির লোকজনকে প্রশাসন আনন্দের সঙ্গে অনুমতি দিচ্ছে।

লখনৌর জেলা ম্যাজিস্ট্রেট অভিষেক প্রকাশ বলেন, সমাবেশের অনুমোদন যথাযথভাবেই দেয়া হয়েছে। পৌর কর্পোরেশন, গণপূর্ত বিভাগ ও পুলিশ থেকেও অনুমোদন নেয়া হয়েছে। কিন্তু ১৪৪ ধারা লঙ্ঘনের প্রশ্ন করায় তিনি তা এড়িয়ে গিয়েছেন।

বিখ্যাত এই উর্দু কবি বলেন, যদি অমিত শাহর বৈঠকের বিষয়টি বৈধ হয়, তবে আমার মেয়েসহ যাদের বিরুদ্ধে ১৪৪ ধারা লঙ্ঘনের দায়ে মামলা করা হয়েছে, তা অবিচার।

‌‘মামলার ঘটনায় আমি আমার মেয়েদের আতঙ্কিত হতে না করেছি। এতে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড কিংবা কারাদণ্ডই হোক না কেন।’

লখনৌর ঐতিহাসিক ঘড়ি টাওয়ারে শুক্রবার থেকে বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। কনকনে শীতের ভিতরেও তখন থেকে বিক্ষোভ চালিয়ে আসছেন কবির দুই কন্যাসহ অন্যান্য নারীরা। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারাও তাদের এই বিক্ষোভে সমর্থন জানিয়েছেন।