রাজপরিবারের যেসব নিয়ম ভেঙেছিলেন মেগান
jugantor
রাজপরিবারের যেসব নিয়ম ভেঙেছিলেন মেগান

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৫ জানুয়ারি ২০২০, ১৪:০৩:৪১  |  অনলাইন সংস্করণ

যুক্তরাজ্যের রাজপরিবারের প্রিন্স হ্যারি (৩৫) ও তার স্ত্রী মেগান মার্কেল (৩৮) তাদের গা থেকে হঠাৎ রাজকীয় তকমা ঝেড়ে ফেলে দেন।

নিজেদের মতো করে জীবনযাপনের জন্য যুক্তরাজ্যের পাশাপাশি কানাডায় বসবাসের কথা জানান তারা। খবর বিবিসির।

রানি কয়েক দফা বোঝানোর চেষ্টা করেও তাদের ফেরাতে পারেননি। এতে রাজকুমার হ্যারি ব্রিটিশ রাজপরিবারে যে সংকট তৈরি করেছেন, তা কার্যত দুই মহাদেশে তোলপাড় সৃষ্টি করেছে।

বাকিংহাম প্রাসাদ ১৮ জানুয়ারি এক বিবৃতিতে জানায়, যুক্তরাজ্যের ডিউক অব সাসেক্স প্রিন্স হ্যারি ও তার স্ত্রী ডাচেস অব সাসেক্স মেগান মার্কেল তাদের রাজকীয় উপাধি আর ব্যবহার করতে পারবেন না।

ফলে মা রাজকুমারী ডায়ানা ব্রিটিশ রাজপরিবারে যে ধরনের টানাপোড়েনের জন্ম দিয়েছিলেন, তার ছেলে হ্যারি সম্ভবত তার চেয়েও বড় সংকটের জন্ম দিয়েছেন বলে দেশটির গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়।

হ্যারি-মেগান দম্পতি আকস্মিকভাবে কেন রাজকীয় দায়িত্ব ছেড়ে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন, সেটি নিয়ে শুরু থেকেই চলছে নানা জল্পনাকল্পনা।

এক পক্ষের বিশ্বাস, হ্যারি এবং মার্কিন টেলিভিশন ও চলচ্চিত্র অভিনয়শিল্পী মেগানকে নিয়ে যুক্তরাজ্যের ট্যাবলয়েড পত্রিকাগুলোর ক্রমাগত হয়রানিমূলক আচরণের কারণেই এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা।

এ ছাড়া মেগান মার্কেল ব্রিটিশ রাজপরিবারের কিছু নিয়মও ভঙ্গ করেছেন। যেমন-

বিয়ের দিনই মেগান মার্কেল জানিয়ে দেন, রাজপরিবারের এসব নিয়মকানুন তার পছন্দ নয়। রাজকীয় সেই বিয়েতে তিনি নিজেই গাউন ধরে হেঁটে চলে গেছেন।

নিজের টায়রা নিজেই পছন্দ করেছেন। আর বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষ না করেই সমাপ্তি টেনেছেন।

ব্রিটিশ রাজপরিবারে কালো রঙটিকে কেবল শোকের অনুষ্ঠানের জন্য। কিন্তু মেগানকে প্রায়ই কালো রঙের পোশাকে দেখা গেছে। তার মতে, কালো রঙেই তার ব্যক্তিত্ব পূর্ণতা পায়।

রাজপরিবারের দীর্ঘদিনের প্রথা অনুসারে যেকোনো পারিবারিক, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে হ্যাট পরা বাধ্যতামূলক। কিন্তু মেগানের ইচ্ছা করেনি, তাই পরেননি।

হ্যাট ছাড়াই তাকে রানি এলিজাবেথের সঙ্গে হাসিমুখে আলাপ করতে দেখা গেছে।

নিয়মানুযায়ী রাজপরিবারের সদস্যরা হাতকাটা পোশাক পরতে পারবেন না। নিয়মটি মেগান একেবারেই আমলে নেননি।

একাধিকবার ‘অফ শোল্ডার’ পোশাকে জনসম্মুখে আসতে দেখা গেছে তাকে। এটিই নাকি তার জন্য আরামদায়ক।

রাজপরিবারের অলিখিত নিয়ম অনুসারে, রাজপরিবারের সদস্যদের পরিপাটি করে চুল বেঁধে জনসম্মুখে আসতে হবে।

মেগান প্রায়ই সাধারণভাবে চুল খোঁপা করে বেরিয়ে পড়েছেন। সেই খোঁপার শৃঙ্খল ভেঙে বেরিয়ে এসেছে চুল।

রাজপরিবারের যেসব নিয়ম ভেঙেছিলেন মেগান

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৫ জানুয়ারি ২০২০, ০২:০৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

যুক্তরাজ্যের রাজপরিবারের প্রিন্স হ্যারি (৩৫) ও তার স্ত্রী মেগান মার্কেল (৩৮) তাদের গা থেকে হঠাৎ রাজকীয় তকমা ঝেড়ে ফেলে দেন।

নিজেদের মতো করে জীবনযাপনের জন্য যুক্তরাজ্যের পাশাপাশি কানাডায় বসবাসের কথা জানান তারা। খবর বিবিসির।

রানি কয়েক দফা বোঝানোর চেষ্টা করেও তাদের ফেরাতে পারেননি। এতে রাজকুমার হ্যারি ব্রিটিশ রাজপরিবারে যে সংকট তৈরি করেছেন, তা কার্যত দুই মহাদেশে তোলপাড় সৃষ্টি করেছে।

বাকিংহাম প্রাসাদ ১৮ জানুয়ারি এক বিবৃতিতে জানায়, যুক্তরাজ্যের ডিউক অব সাসেক্স প্রিন্স হ্যারি ও তার স্ত্রী ডাচেস অব সাসেক্স মেগান মার্কেল তাদের রাজকীয় উপাধি আর ব্যবহার করতে পারবেন না।

ফলে মা রাজকুমারী ডায়ানা ব্রিটিশ রাজপরিবারে যে ধরনের টানাপোড়েনের জন্ম দিয়েছিলেন, তার ছেলে হ্যারি সম্ভবত তার চেয়েও বড় সংকটের জন্ম দিয়েছেন বলে দেশটির গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়।

হ্যারি-মেগান দম্পতি আকস্মিকভাবে কেন রাজকীয় দায়িত্ব ছেড়ে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন, সেটি নিয়ে শুরু থেকেই চলছে নানা জল্পনাকল্পনা।

এক পক্ষের বিশ্বাস, হ্যারি এবং মার্কিন টেলিভিশন ও চলচ্চিত্র অভিনয়শিল্পী মেগানকে নিয়ে যুক্তরাজ্যের ট্যাবলয়েড পত্রিকাগুলোর ক্রমাগত হয়রানিমূলক আচরণের কারণেই এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা।

এ ছাড়া মেগান মার্কেল ব্রিটিশ রাজপরিবারের কিছু নিয়মও ভঙ্গ করেছেন। যেমন-

বিয়ের দিনই মেগান মার্কেল জানিয়ে দেন, রাজপরিবারের এসব নিয়মকানুন তার পছন্দ নয়। রাজকীয় সেই বিয়েতে তিনি নিজেই গাউন ধরে হেঁটে চলে গেছেন।

নিজের টায়রা নিজেই পছন্দ করেছেন। আর বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষ না করেই সমাপ্তি টেনেছেন।

ব্রিটিশ রাজপরিবারে কালো রঙটিকে কেবল শোকের অনুষ্ঠানের জন্য। কিন্তু মেগানকে প্রায়ই কালো রঙের পোশাকে দেখা গেছে। তার মতে, কালো রঙেই তার ব্যক্তিত্ব পূর্ণতা পায়।

রাজপরিবারের দীর্ঘদিনের প্রথা অনুসারে যেকোনো পারিবারিক, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে হ্যাট পরা বাধ্যতামূলক। কিন্তু মেগানের ইচ্ছা করেনি, তাই পরেননি।

হ্যাট ছাড়াই তাকে রানি এলিজাবেথের সঙ্গে হাসিমুখে আলাপ করতে দেখা গেছে।

নিয়মানুযায়ী রাজপরিবারের সদস্যরা হাতকাটা পোশাক পরতে পারবেন না। নিয়মটি মেগান একেবারেই আমলে নেননি।

একাধিকবার ‘অফ শোল্ডার’ পোশাকে জনসম্মুখে আসতে দেখা গেছে তাকে। এটিই নাকি তার জন্য আরামদায়ক।

রাজপরিবারের অলিখিত নিয়ম অনুসারে, রাজপরিবারের সদস্যদের পরিপাটি করে চুল বেঁধে জনসম্মুখে আসতে হবে।

মেগান প্রায়ই সাধারণভাবে চুল খোঁপা করে বেরিয়ে পড়েছেন। সেই খোঁপার শৃঙ্খল ভেঙে বেরিয়ে এসেছে চুল।

 
আরও খবর