শ্বশুরবাড়ির মার খেয়ে জামাইয়ের আত্মহত্যা

  যুগান্তর ডেস্ক    ১৩ মার্চ ২০১৮, ১৮:১৫ | অনলাইন সংস্করণ

biswajit
নিহত বিশ্বজিৎ দাস

স্ত্রী ও শ্বশুরবাড়ির সদস্যদের কাছে মার খেয়ে ও অপমানিত হয়ে বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেছেন এক জামাই। মৃতের নাম বিশ্বজিৎ দাস। ভারতের দক্ষিণ২৪পরগনার জীবনতলা থানার মঠের দিঘিতে এ ঘটনা ঘটেছে। বিষ খেয়ে অসুস্থ হওয়ার পর সোমবার রাতে ওই যুবকের মৃত্যু হয়। খবর এবেলাডটইনের।

গত ৬ মার্চ সকালে শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে অপমানিত মারধরের শিকার হয় বিশ্বজিৎ। পরে বাড়ি ফিরে এসে বিষ খেয়ে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে। তখন তাকে স্থানীয় ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি হয়। এক সপ্তাহ মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করার পর অবশেষে সোমবার রাতে মৃত্যু হয় ওই যুবকের। ঘটনায় স্ত্রী ও শ্বশুরবাড়ির অন্য সদস্যদের নামে জীবনতলা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন মৃতের পরিবারের সদস্যরা।

মাত্র ছয় মাস আগে কনের বাবা জোর করে বিশ্বজিৎকে ধরে নিয়ে কনে ববিতার সঙ্গে বিশ্বজিতের বিয়ে দেন। বাপ-মা মরা বিশ্বজিতের সঙ্গে ববিতার প্রেমের সম্পর্ক থাকায় পাত্র-পাত্রী নাবালক হলেও প্রাথমিকভাবে কেউ বাধা দেয়নি। বিয়ের পর ববিতাকে নিয়ে মঠের দীঘিতে নিজের বাড়িতে ২ মাস থাকার পর ববিতা ক্যানিংয়ে তার বাপের বাড়িতে চলে আসে।

স্ত্রীকে আনতে গেলে বিশ্বজিৎকে বারবার অপমান করে শ্বশুরবাড়ির লোকজন। তার পৈতৃক সম্পত্তি বিক্রি করে টাকা শ্বশুরবাড়ির হাতে তুলে দেয়ার জন্যও চাপ দিতে থাকে। কিন্তু বিশ্বজিৎ তাদের কথা না শুনলে তার ওপর মানসিক চাপ বাড়াতে থাকে স্ত্রী ববিতা এবং তার মা বিশা ঘোড়ুই।

পৈতৃক সম্পত্তি বিক্রি না করার কারণে বিশ্বজিৎকে মারধরের পাশাপাশি তাকে অত্যন্ত নোংরা ভাষায় গালিগালাজ করে অপমানিত করে ববিতা ও তার পরিবার। সেই অপমান সহ্য করতে না পেরে বাড়ি ফিরে বিষ খেয়ে আত্মঘাতী হওয়ার চেষ্টা করে ওই যুবক।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
bestelectronics

 

 

mans-world

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
close
close
.