ধর্ষকের শাস্তি বিষয়ক নতুন আইন নিয়ে তুরষ্কে সরকারের বিরুদ্ধে তীব্র সমালোচনা

  যুগান্তর ডেস্ক ২৮ জানুয়ারি ২০২০, ২৩:৫১:০২ | অনলাইন সংস্করণ

ধর্ষকের শাস্তিবিষয়ক নতুন এক আইন করতে যাচ্ছে তুরষ্ক যা ইতিমধ্যে বিতর্কের সৃষ্টি করেছে।

আইনটির বিষয়ে দেশটির মানবাধিকার এবং নারী অধিকার সংগঠনগুলো সরকারের তীব্র সমালোচনায় মেতেছেন যেখানে যোগ হয়েছে এরদোগান বিরোধী বামপন্থী দল দ্য পিপলস ডেমোক্র্যাটিক পার্টিও।

যারা না বুঝেই অপ্রাপ্তবয়স্কদের ধর্ষণ করেছে তাদেরকে বিয়ের সুযোগ দেয়া হচ্ছে বলে সরকার পক্ষ থেকে বলা হলেও মানবাধিকার সংগঠনগুলোর অভিযোগ, এ আইনের বাস্তবায়ন মানে তুরস্কে ধর্ষণের বৈধতা দেয়া।

বির্তকিত ওই আইনটি চলতি মাসের শেষে তুরস্কের সংসদে উত্থাপন করবেন দেশটির আইনপ্রণেতারা।

ওই প্রস্তাবিত আইনে বলা হয়েছে, অপ্রাপ্তবয়স্ক কোনো মেয়েকে ধর্ষণের পর যদি ওই ধর্ষক তাকে বিয়ে করেন তাহলে আইন অনুযায়ী ধর্ষতের সাজা মওকুফ করা হবে।

গার্ডিয়ান ও মিডলইস্ট মনিটরসহ আর্ন্তজাতিক গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, চলতি মাসের শেষের দিকে দেশটির সংসদেদ এই আইনটি উত্থাপন করবেন আইনপ্রণেতারা।

এদিকে তুরস্কের বামপন্থী বিরোধী দল দ্য পিপলস ডেমোক্র্যাটিক পার্টি (এইচডিপি) প্রস্তাবিত ওই আইনের তীব্র সমালোচনা করে সরকারকে সতর্ক করেছে।

তারা বলেছেন, এই আইন তুরস্কে বাল্যবিবাহ ও ধর্ষণকে বৈধতা দেয়। পাশাপাশি শিশুদের যৌন হয়রানি ও নিপীড়ন করার পথ প্রশস্ত করে।

এমন আইন সংসদে উত্থাপন হবে শুনে চটেছেন দেশটির মানবাধিকার নিয়ে কাজ করা সংস্থাগুলো।

এ বিষয়ে ব্রিটিশ দৈনিক ইন্ডিপেন্ডেন্টকে তুর্কি মানবাধিকারকর্মী সুয়াদ আবু দায়েহ বলেন, ‘আইনটি বৈষম্যমূলক, যা নারীদের সুরক্ষার জন্য বিশাল এক আঘাত। আইনটি যেন সংসদে না উত্থাপিত হতে পারে সে দাবিতে আন্দোলন-বিক্ষোভ চালিয়ে যাওয়া উচিত।’

আবু দায়েহের মতো অন্যান্য মানবাধিকারকর্মীদের ভাষ্য, যে অপ্রাপ্তবয়স্ক নারী যার হাতে নিপীড়িত হলো, তাকে ওই ধর্ষিতা কি করে স্বামী হিসেবে মেনে নেবে? এ কেমন আইন!

যেসব পুরুষ জেনেশুনেই ধর্ষণ করেছে তাদেরকেও এই আইনের আওতায় ক্ষমা করা হবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন তারা।

তবে মানবাধিকারকর্মীদের এসব কথা আমলে না নিয়ে প্রেসিডেন্ট এরদোগানের ক্ষমতাসীন দল এ কে পার্টির আইনপ্রণেতারা প্রস্তাবিত এই আইনটিতে দীর্ঘদিন ধরে সমর্থন জানিয়ে আসছেন।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত