চীনে ৪৮ ঘণ্টায় হাজার শয্যার হাসপাতাল
jugantor
চীনে ৪৮ ঘণ্টায় হাজার শয্যার হাসপাতাল

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৯ জানুয়ারি ২০২০, ২১:২৪:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

চীনে ৪৮ ঘণ্টায় হাজার শয্যার হাসপাতাল

৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই ফাঁকা এক ভবনকে হাসপাতালে পরিণত করল চীন। করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে হুবেই প্রদেশের উহান শহরের কাছেই তৈরি করা হয়েছে ১০০০ শয্যার এই বিশেষ হাসপাতাল। মঙ্গলবার তা উদ্বোধন করা হয়।

মরণঘাতী করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে ১০ দিনের মধ্যে তিনটি হাজার শয্যার হাসপাতাল নির্মাণের ঘোষণা দেয় বেইজিং। তারই একটি হল উহানের হুয়াংজু শহরের এই হাসপাতাল। আরও দুটির নির্মাণকাজ চলছে।

বুধবার ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড দ্য ডেইলি মেইল জানিয়েছে, নির্মাণ ও ইউটিলিটি সংস্থাগুলো এবং আধাসামরিক পুলিশ কর্মকর্তাদের যৌথ প্রচেষ্টায় মাত্র ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে হাসপাতালটি প্রস্তুত করা হয়েছে। এজন্য দিনরাত কাজ করেন ৫০০-এরও বেশি কর্মী ও স্বেচ্ছাসেবক।

ফাঁকা ওই ভবনটি হুয়াঙগ্যাঙ সেন্ট্রাল হাসপাতাল করার জন্য নির্মাণ করা হয়েছিল। আগামী মে মাসে এটি উদ্বোধনের কথা ছিল। শুক্রবার জরুরি পদক্ষেপ হিসেবে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ ওই ভবনটিকে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য প্রস্তুত করার নির্দেশ দেয়। এরপরই এটি চিকিৎসার জন্য পুরোপুরি তৈরি হয়ে যায়।

হুয়াঙগ্যাঙ সরকার জানিয়েছে, সোমবারের মধ্যে কর্মীরা পানি, বিদ্যুৎ ও ইন্টারনেট সংযোগ স্থাপন করে। সময়মতো কাজ শেষ করতে ৫০০ কর্মীর পাশাপাশি ভারি যন্ত্রপাতিও ব্যবহার করা হয়। উহানের ৭৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত এই শহরটিতেও করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়েছেন বাসিন্দারা।

এরইমধ্যে অন্য হাসপাতাল থেকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের মাউন্টেইন রিজিওনাল মেডিকেল সেন্টার নামের বিশেষায়িত হাসপাতালটিতে আনা শুরু হয়েছে।

এর আগে ৬ দিনের মধ্যে একটি হাসপাতাল বানিয়ে বিশ্বজুড়ে সাড়া ফেলে দিয়েছিল বেইজিং।

চীনের পররাষ্ট্র সম্পর্ক পরিষদের বৈশ্বিক স্বাস্থ্য প্রকল্পের সিনিয়র ফেলো ইয়াংজুং হুয়াং বলেন, এমন দ্রুত কাজ শেষ করার রেকর্ড তাদের রয়েছে। এর আগে ২০০৩ সালে সাত দিনের মধ্যে নির্মাণকাজ শেষ করেছিল চীন।

চীনে ৪৮ ঘণ্টায় হাজার শয্যার হাসপাতাল

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৯ জানুয়ারি ২০২০, ০৯:২৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
চীনে ৪৮ ঘণ্টায় হাজার শয্যার হাসপাতাল
ছবি: ডেইলি মেইল

৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই ফাঁকা এক ভবনকে হাসপাতালে পরিণত করল চীন। করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে হুবেই প্রদেশের উহান শহরের কাছেই তৈরি করা হয়েছে ১০০০ শয্যার এই বিশেষ হাসপাতাল। মঙ্গলবার তা উদ্বোধন করা হয়। 

মরণঘাতী করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে ১০ দিনের মধ্যে তিনটি হাজার শয্যার হাসপাতাল নির্মাণের ঘোষণা দেয় বেইজিং। তারই একটি হল উহানের হুয়াংজু শহরের এই হাসপাতাল। আরও দুটির নির্মাণকাজ চলছে। 

বুধবার ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড দ্য ডেইলি মেইল জানিয়েছে, নির্মাণ ও ইউটিলিটি সংস্থাগুলো এবং আধাসামরিক পুলিশ কর্মকর্তাদের যৌথ প্রচেষ্টায় মাত্র ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে হাসপাতালটি প্রস্তুত করা হয়েছে। এজন্য দিনরাত কাজ করেন ৫০০-এরও বেশি কর্মী ও স্বেচ্ছাসেবক। 

ফাঁকা ওই ভবনটি হুয়াঙগ্যাঙ সেন্ট্রাল হাসপাতাল করার জন্য নির্মাণ করা হয়েছিল। আগামী মে মাসে এটি উদ্বোধনের কথা ছিল। শুক্রবার জরুরি পদক্ষেপ হিসেবে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ ওই ভবনটিকে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য প্রস্তুত করার নির্দেশ দেয়। এরপরই এটি চিকিৎসার জন্য পুরোপুরি তৈরি হয়ে যায়। 

হুয়াঙগ্যাঙ সরকার জানিয়েছে, সোমবারের মধ্যে কর্মীরা পানি, বিদ্যুৎ ও ইন্টারনেট সংযোগ স্থাপন করে। সময়মতো কাজ শেষ করতে ৫০০ কর্মীর পাশাপাশি ভারি যন্ত্রপাতিও ব্যবহার করা হয়। উহানের ৭৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত এই শহরটিতেও করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়েছেন বাসিন্দারা। 

এরইমধ্যে অন্য হাসপাতাল থেকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের মাউন্টেইন রিজিওনাল মেডিকেল সেন্টার নামের বিশেষায়িত হাসপাতালটিতে আনা শুরু হয়েছে।

এর আগে ৬ দিনের মধ্যে একটি হাসপাতাল বানিয়ে বিশ্বজুড়ে সাড়া ফেলে দিয়েছিল বেইজিং।

চীনের পররাষ্ট্র সম্পর্ক পরিষদের বৈশ্বিক স্বাস্থ্য প্রকল্পের সিনিয়র ফেলো ইয়াংজুং হুয়াং বলেন, এমন দ্রুত কাজ শেষ করার রেকর্ড তাদের রয়েছে। এর আগে ২০০৩ সালে সাত দিনের মধ্যে নির্মাণকাজ শেষ করেছিল চীন। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

২৯ ডিসেম্বর, ২০২২
২৮ ডিসেম্বর, ২০২২