‘জালিয়ানওয়ালাবাগ হতে পারে শাহিনবাগ’ আশঙ্কা ওয়াইসির
jugantor
‘জালিয়ানওয়ালাবাগ হতে পারে শাহিনবাগ’ আশঙ্কা ওয়াইসির

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৭:৫১:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

আসাদুদ্দিন ওয়াইসি।

দিল্লির জামিয়া মিলিয়া ও শাহিনবাগে আন্দোলনকারীদের ওপর গুলি চালানোর ঘটনায় নতুন আশঙ্কা প্রকাশ করলেন অল ইন্ডিয়া মজলিস-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমিন নেতা আসাদউদ্দিন ওয়াইসি। তার মতে, দিল্লি নির্বাচন শেষে শাহিনবাগে জালিয়ানওয়ালাবাগের মতো পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে।

বুধবার সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে দেয়া একট সাক্ষাৎকারে এই আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

ওয়াইসি বলেন, ‘এমনটা হতে পারে যে তাদের গুলি করা হল। ওরা শাহিনবাগকে জালিয়ানওয়ালা বাগে পরিণত করে ফেলতে পারে। এটা হতে পারে। কারণ, বিজেপির মন্ত্রীই গুলি করার কথা বলছেন।’

সম্প্রতি ভারতের কেন্দ্রীয় অর্থ প্রতিমন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুরের ‘গোলি মারো’ স্লোগান নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। বিষয়টির দিকে ইঙ্গিত করে কেন্দ্রীয় সরকারকে প্রশ্ন ছুড়ে ওয়াইসি বলেন, ‘উত্তর দিতে হবে, কারা চরমপন্থা অনুসরণ করছে।’

সাক্ষাৎকারে জাতীয় নাগরিক পঞ্জি (এনআরসি) ও জাতীয় জনসংখ্যা পঞ্জি (এনপিআর) নিয়েও কথাও বলেন ওয়াইসি।

তার মতে, ‘সরকারকে সাফ জানাতে হবে ২০২৪ সাল পর্যন্ত এনআরসি চালু হবে না। তা হলে কেন সরকার এনপিআরর জন্য তিন হাজার ৯০০ কোটি টাকা খরচ করছে? আমি এক জন ইতিহাসের ছাত্র হিসেবে এটাই মনে করি, হিটলার তার আমলে দু’বার সেন্সাস চালিয়েছিলেন। তারপর ইহুদিদের গ্যাস চেম্বারে পাঠিয়েছিলেন। আমার দেশ এই পথে চলুক এ আমি চাই না।’

‘জালিয়ানওয়ালাবাগ হতে পারে শাহিনবাগ’ আশঙ্কা ওয়াইসির

 যুগান্তর ডেস্ক 
০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৫:৫১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আসাদুদ্দিন ওয়াইসি।
আসাদউদ্দিন ওয়াইসি।ফাইল ছবি

দিল্লির জামিয়া মিলিয়া ও শাহিনবাগে আন্দোলনকারীদের ওপর গুলি চালানোর ঘটনায় নতুন আশঙ্কা প্রকাশ করলেন অল ইন্ডিয়া মজলিস-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমিন নেতা আসাদউদ্দিন ওয়াইসি। তার মতে, দিল্লি নির্বাচন শেষে শাহিনবাগে জালিয়ানওয়ালাবাগের মতো পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে।

বুধবার সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে দেয়া একট সাক্ষাৎকারে এই আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।  

ওয়াইসি বলেন, ‘এমনটা হতে পারে যে তাদের গুলি করা হল। ওরা শাহিনবাগকে জালিয়ানওয়ালা বাগে পরিণত করে ফেলতে পারে। এটা হতে পারে। কারণ, বিজেপির মন্ত্রীই গুলি করার কথা বলছেন।’ 

সম্প্রতি ভারতের কেন্দ্রীয় অর্থ প্রতিমন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুরের ‘গোলি মারো’ স্লোগান নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। বিষয়টির দিকে ইঙ্গিত করে কেন্দ্রীয় সরকারকে প্রশ্ন ছুড়ে ওয়াইসি বলেন, ‘উত্তর দিতে হবে, কারা চরমপন্থা অনুসরণ করছে।’

সাক্ষাৎকারে জাতীয় নাগরিক পঞ্জি (এনআরসি) ও জাতীয় জনসংখ্যা পঞ্জি (এনপিআর) নিয়েও কথাও বলেন ওয়াইসি। 

তার মতে, ‘সরকারকে সাফ জানাতে হবে ২০২৪ সাল পর্যন্ত এনআরসি চালু হবে না। তা হলে কেন সরকার এনপিআরর জন্য তিন হাজার ৯০০ কোটি টাকা খরচ করছে? আমি এক জন ইতিহাসের ছাত্র হিসেবে এটাই মনে করি, হিটলার তার আমলে দু’বার সেন্সাস চালিয়েছিলেন। তারপর ইহুদিদের গ্যাস চেম্বারে পাঠিয়েছিলেন। আমার দেশ এই পথে চলুক এ আমি চাই না।’

 

ঘটনাপ্রবাহ : ভারতে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল বিতর্ক