ফিলিস্তিনিদের প্রতি গুগলের কেন এই অবিচার?

  অনলাইন ডেস্ক ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ২২:১৪:৪৭ | অনলাইন সংস্করণ

ছবি: সংগৃহীত

ফিলিস্তিন-ইসরাইল সংকট নিরসনে যুক্তরাষ্ট্র ঘোষিত ‘ডিল অব দ্য সেঞ্চুরি’ বা শতাব্দীর সেরা সমঝোতা এই মুহূর্তে মধ্যপ্রাচ্যের সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ আলোচ্য বিষয়।

মধ্যপ্রাচ্যে নিয়ে ট্রাম্পের তথাকথিত ডিল অব সেঞ্চুরি বা শান্তি প্রস্তাবকে একপেশে ও বিতর্কিত আখ্যায়িত করেফিলিস্তিন, আরব লিগ, ওআইসিসহ ইউরোপীয় ইউনিয়নও তা প্রত্যাখ্যান করেছে।

তারা বলছেন, ডিল অব দ্যা সেঞ্চুরি খ্যাত এই চুক্তি ফিলিস্তিন ও ইসরাইলের মধ্যকার দীর্ঘদিনের তিক্ততার অবসান ঘটাবে দাবি করা হলেও বাস্তবে এর পুরোটাই ফিলিস্তিন বিরোধী ট্রাম্পের নতুন একটি কুটচাল, যার মাধ্যমে ইসরাইলের দখলদারিত্বের বৈধতা দিয়েছেন তিনি।

তবে ডোনাল্ড ট্রাম্পের একতরফা এ পরিকল্পনায় মার্কিন প্রযুক্তি কোম্পানি গুগল অভিনব পন্থায় সমর্থন করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।দুবাইভিত্তিক সংবাদমাধ্যম খলিজ টাইমসের এক প্রতিবেদনে বিষয়টি উঠে এসেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গুগলের জনপ্রিয় ‘ট্রান্সলেট’বা অনুবাদ পরিষেবায় পূন্যময়ী নগরী ‘জেরুজালেম’-এর ভাষান্তরের সময় কোম্পানীটির ইসরাইলপ্রীতির সূক্ষ্ম রহস্য বেরিয়ে আসে। বিশ্বের উল্লেখযোগ্য কয়েকটি ভাষায় জেরুজালেম নগরী ‘জেরুজালেম’নামে পরিচিত হলেও এর প্রাচীন আরবি নাম ‘আল কুদস’।

ইতিপূর্বে যেকোনো ভাষা থেকে গুগল ট্রান্সলেটে ‘জেরুজালেম’ শব্দটির আরবি অনুবাদ করলে তা ‘আল কুদস’ ভাষান্তর হতো।

২৮ জানুয়ারি ডোনাল্ড ট্রাম্প ডিল অব দ্যা সেঞ্চুরি ঘোষণার পর থেকে গুগল ট্রান্সলেট এখন আর জেরুজালেমের অনুবাদ আল কুদস করছে না।

ফিলিস্তিনি জনগণ ও আরবমুসলমানদের বহু চর্চিত প্রাচীন এই আরবি শব্দটিকে সরিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইলিদের উচ্চারিত ‘জেরুজালেম’ শব্দকেই পবিত্র এই নগরীর নতুন আরবি নাম হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে চাইছে গুগল, যা পরোক্ষভাবে জনপ্রিয় এই প্রতিষ্ঠানটির ইসরাইলের প্রতি পক্ষপাতিত্বের সুপরিকল্পিত একটি উদাহরণ।

ব্যাপকভাবে অভিযোগ আসার পর সূক্ষ্ম এই ব্যাপারটি আরও স্পষ্ট করতে আরবি গণমাধ্যম আল খালিজের কয়েকজন সাংবাদিক এ বিষয়ে পরীক্ষা চালিয়েছেন।

প্রথমে তারা আরবি يا قدس (হে কুদস) এর তুর্কি অনুবাদ চাইলে গুগল তা 'Ah Yeruşalim' এ ভাষান্তর করেছে। يا قدس এর ইংরেজি অনুবাদ করেছে 'Oh Jerusalem', ফরাসি ভাষায় 'Oh Jérusalem'।

এভাবে আরও কয়েকটি ভাষায় তারা يا قدس এর অনুবাদ করে দেখেছে। কিন্তু যখনই তারা এ ভাষাগুলো থেকে সেসব ভাষার বর্ণরীতি অনুযায়ী ‘জেরুজালেম’শব্দের আরবি অনুবাদ করেছেন তখন তারা গুগলের অতিসূক্ষ্ণ এই স্বজনপ্রীতি ধরতে সক্ষম হয়েছেন।

এসব ভাষায় গুগল ট্রান্সলেট ‘হে জেরুজালেম’ এর আরবি অনুবাদ করেছে يا أورشليم'।

অর্থাৎ জেরুজালেমের আরবি নাম আর আল কুদস থাকছে না। খুব শিগগির এই নগরীকে আরবিতেও ‘জেরুজালেম’ প্রতিষ্ঠিত করছে তারা।

ফিলিস্তিনের প্রতি গুগলের এই বৈরী আচরণ নতুন নয়। ফিলিস্তিনকে অপছন্দের প্রবণতাটি গুগলের পুরনো অভ্যাস বলে জানিয়েছে খলিজ অনলাইন।

‘গুগল ম্যাপ’ থেকে ফিলিস্তিনের নাম মুছে ফেলে গুগল

জানা যায়, ২০১৬ সালে কোম্পানিটির আরেক বিশেষ পরিষেবা ‘গুগল ম্যাপ’ থেকে ফিলিস্তিনের নাম মুছে ফেলে সেই সময়কার ফিলিস্তিনের সমস্ত ভূখণ্ড ইসরাইলের অংশ হিসেবে দেখানো হয়।

এ বিষয়ে বিশ্বব্যাপী গুগলকে নিয়ে সমালোচনার সৃষ্টি হলে গুগল তাদের মানচিত্র সংশোধনের আশ্বাস দিয়েছিল।

মধ্যপ্রাচ্যের বিশ্লেষকদের মতে, গুগল ম্যাপ আজও সংশোধন করা হয়নি; ফিলিস্তিন ও অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের সমগ্র ভূখণ্ডকেই ইসরাইল হিসেবে চিহ্নিত করে রেখেছে গুগল কর্তৃপক্ষ।

আল খলিজ আরবি অবলম্বনে- বেলায়েত হুসাইন

ঘটনাপ্রবাহ : শতাব্দীর সেরা সমঝোতা

আরও
 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত