ইমরান খান কত পাচ্ছেন বেতন?
jugantor
ইমরান খান কত পাচ্ছেন বেতন?

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৫:২৪:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান প্রতিমাসে সর্বমোট দুই লাখ রুপি বেতন পাচ্ছেন। যার মধ্যে ভাতাও রয়েছে। তার পেস্লিপের বরাতে ভারতীয় গণমাধ্যম ডব্লিউআইওএন এমন খবর দিয়েছে।
ছবি: সংগৃহীত

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান প্রতিমাসে সর্বমোট দুই লাখ রুপি বেতন পাচ্ছেন। যার মধ্যে ভাতাও রয়েছে। তার পেস্লিপের বরাতে ভারতীয় গণমাধ্যম ডব্লিউআইওএন এমন খবর দিয়েছে।

ইমরানের বেতনের ওপরে ট্যাক্স বসে, সেই ট্যাক্স কাটার পর ইমরান এক লাখ ৯৬ হাজার ৯৭৯ টাকা পাচ্ছেন।

এর আগে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বেতন বাড়ছে না বলে জানিয়ে দিয়েছে তার কার্যালয়। তার বেতন বাড়ছে বলে যে খবর ছড়িয়ে পড়েছে, সেটাকে ভিত্তিহীন ও দুর্ভাগ্যজনক বলে আখ্যা দেয়া হয়েছে।

ডনের খবরে বলা হয়েছে, ইমরান খানের বেতন বাড়িয়ে আট লাখ পাকিস্তানি রুপি করা হচ্ছে। তার কার্যালয় থেকে সেই খবরকে ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

একটি সংবাদ ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, প্রধানমন্ত্রী যখন সরকারি খরচ কমাতে প্রচার চালাচ্ছেন এবং নিজ উদ্যোগেই তিনি সেটা করছেন, তখন এ ধরনের ভিত্তিহীন ও বানানো খবর প্রচার দুর্ভাগ্যজনক।

ইমরান খানের উদ্ধৃতি দিয়ে দেশটির প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় জানায়, সরকারপ্রধান হিসেবে যে খরচ তিনি করেন, তা জনগণের কষ্টার্জিত অর্থ থেকে আসে। কাজেই সেই খরচ সর্বনিম্ন পর্যায়ে রাখতে হবে।

দেশটির ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মুরাদ সাইদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরেও বানিগালায় নিজের ব্যক্তিগত বাড়িতে থাকেন ইমরান খান। তার বাসভবনের সামনের রাস্তার নির্মাণ নিজের পকেটের পয়সা দিয়ে করেন।

এর আগে ইমরান খান বলেন, সরকারি বেতনে তার পরিবারের খরচ মেটে না। প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনের খরচ আমাদের চল্লিশ ভাগ কমাতে হবে। আমি নিজের বাসায় থাকি, নিজের খরচ নিজেই বহন করি। আমার পরিবারের ভরণপোষণ আমার সরকারি বেতন দিয়ে হয় না।

বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের বার্ষিক সম্মেলনে নিজের অংশগ্রহণকে ‘সবচেয়ে সস্তায় সরকারি সফর’ আখ্যায়িত করে সাবেক এই ক্রিকেট তারকা বলেন, তার সফরে স্পনসর করেছেন তার বন্ধু এবং ব্যবসায়ী ইকরাম শেঘাল ও ইমরান চৌধুরী।

এর আগে একই সফরে সাবেক প্রেসিডেন্ট আসিফ আলী জারদারির খরচ হয়েছিল ১৪ লাখ ডলার। যেখানে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের খরচ ছিল ১৩ লাখ ডলার। আর শহীদ কাখান আব্বাসির খরচ ছিল আট লাখ ডলার।

ইমরান খান বলেন, এর আগে মন্ত্রীদের ভোজ উৎসবে যেতে তিনি বাধা দিয়েছেন। যখনই তারা কোথাও যাওয়ার ইচ্ছার কথা বলেন, তখন সেই সফর দেশের জন্য ফলপ্রসূ কিছু বলে প্রমাণ না করার আগ পর্যন্ত তাতে আমি সায় দিই না।

ইমরান খান কত পাচ্ছেন বেতন?

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৩:২৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান প্রতিমাসে সর্বমোট দুই লাখ রুপি বেতন পাচ্ছেন। যার মধ্যে ভাতাও রয়েছে। তার পেস্লিপের বরাতে ভারতীয় গণমাধ্যম ডব্লিউআইওএন এমন খবর দিয়েছে।
ছবি: সংগৃহীত

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান প্রতিমাসে সর্বমোট দুই লাখ রুপি বেতন পাচ্ছেন। যার মধ্যে ভাতাও রয়েছে। তার পেস্লিপের বরাতে ভারতীয় গণমাধ্যম ডব্লিউআইওএন এমন খবর দিয়েছে।

ইমরানের বেতনের ওপরে ট্যাক্স বসে, সেই ট্যাক্স কাটার পর ইমরান এক লাখ ৯৬ হাজার ৯৭৯ টাকা পাচ্ছেন।

এর আগে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বেতন বাড়ছে না বলে জানিয়ে দিয়েছে তার কার্যালয়। তার বেতন বাড়ছে বলে যে খবর ছড়িয়ে পড়েছে, সেটাকে ভিত্তিহীন ও দুর্ভাগ্যজনক বলে আখ্যা দেয়া হয়েছে।

ডনের খবরে বলা হয়েছে, ইমরান খানের বেতন বাড়িয়ে আট লাখ পাকিস্তানি রুপি করা হচ্ছে। তার কার্যালয় থেকে সেই খবরকে ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

একটি সংবাদ ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, প্রধানমন্ত্রী যখন সরকারি খরচ কমাতে প্রচার চালাচ্ছেন এবং নিজ উদ্যোগেই তিনি সেটা করছেন, তখন এ ধরনের ভিত্তিহীন ও বানানো খবর প্রচার দুর্ভাগ্যজনক।

ইমরান খানের উদ্ধৃতি দিয়ে দেশটির প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় জানায়, সরকারপ্রধান হিসেবে যে খরচ তিনি করেন, তা জনগণের কষ্টার্জিত অর্থ থেকে আসে। কাজেই সেই খরচ সর্বনিম্ন পর্যায়ে রাখতে হবে।

দেশটির ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মুরাদ সাইদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরেও বানিগালায় নিজের ব্যক্তিগত বাড়িতে থাকেন ইমরান খান। তার বাসভবনের সামনের রাস্তার নির্মাণ নিজের পকেটের পয়সা দিয়ে করেন।

এর আগে ইমরান খান বলেন, সরকারি বেতনে তার পরিবারের খরচ মেটে না। প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনের খরচ আমাদের চল্লিশ ভাগ কমাতে হবে। আমি নিজের বাসায় থাকি, নিজের খরচ নিজেই বহন করি। আমার পরিবারের ভরণপোষণ আমার সরকারি বেতন দিয়ে হয় না।

বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের বার্ষিক সম্মেলনে নিজের অংশগ্রহণকে ‘সবচেয়ে সস্তায় সরকারি সফর’ আখ্যায়িত করে সাবেক এই ক্রিকেট তারকা বলেন, তার সফরে স্পনসর করেছেন তার বন্ধু এবং ব্যবসায়ী ইকরাম শেঘাল ও ইমরান চৌধুরী।

এর আগে একই সফরে সাবেক প্রেসিডেন্ট আসিফ আলী জারদারির খরচ হয়েছিল ১৪ লাখ ডলার। যেখানে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের খরচ ছিল ১৩ লাখ ডলার। আর শহীদ কাখান আব্বাসির খরচ ছিল আট লাখ ডলার।

ইমরান খান বলেন, এর আগে মন্ত্রীদের ভোজ উৎসবে যেতে তিনি বাধা দিয়েছেন। যখনই তারা কোথাও যাওয়ার ইচ্ছার কথা বলেন, তখন সেই সফর দেশের জন্য ফলপ্রসূ কিছু বলে প্রমাণ না করার আগ পর্যন্ত তাতে আমি সায় দিই না।

 
আরও খবর