ছেড়ে দেয়া হচ্ছে দেড় হাজার তালেবান বন্দি
jugantor
ছেড়ে দেয়া হচ্ছে দেড় হাজার তালেবান বন্দি

  যুগান্তর ডেস্ক  

১১ মার্চ ২০২০, ১০:১১:১৭  |  অনলাইন সংস্করণ

ছেড়ে দেয়া হচ্ছে দেড় হাজার তালেবান বন্দি

দেড় হাজার তালেবান কারাবন্দিকে ছেড়ে দেয়ার প্রস্তুতি নিয়েছেন আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি। আসছে দিনগুলোতে ধীরে ধীরে তাদের মুক্তি দেয়া হবে বলে মঙ্গলবার একটি অধ্যাদেশ জারি করেছেন তিনি।

এমন একসময় এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে, যখন ১৮ বছর ধরে চলা আফগান যুদ্ধের অবসানে মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোর চেষ্টা চলছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে এমন তথ্য জানা গেছে।

গনির সই করা দুই পাতার অধ্যাদেশে বলা হয়েছে, তালেবান যোদ্ধারা লড়াইয়ে ফিরবেন না– এই শর্তে তাদের ছাড়া হবে। তাদের এই শর্ত লিখিত দিতে হবে। মূলত বিদ্রোহীদের সঙ্গে সরাসরি আলোচনার পথ তৈরি করতেই এমন চেষ্টা নেয়া হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র তালেবানকে হুশিয়ার করে বলেছে, চলমান উচ্চমাত্রার সহিংসতা শান্তি প্রক্রিয়া এগিয়ে নেয়ার ক্ষেত্রে সহায়ক হবে না। এর আগে মার্কিন খসড়া প্রস্তাব সর্বসম্মতভাবে গ্রহণ করেছে ১৫ সদস্যের জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ।

প্রতিশ্রুতি রাখলে আফগানিস্তান থেকে মার্কিন নেতৃত্বাধীন বিদেশি বাহিনী উঠিয়ে নেয়ার প্রস্তুতি স্বরূপ গত মাসে তালেবানের সঙ্গে একটি চুক্তিসই করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

এ ছাড়া কয়েক দশকের সহিংসতার অবসানে একটি রাজনৈতিক সমাধানে আফগান সরকারের প্রতিনিধি ও বিদ্রোহীদের মধ্যে আলোচনা শুরু করতেও চুক্তিতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

বন্দি মুক্তির এ নির্দেশনা পরবর্তী সময়ে আশরাফ গনির কার্যালয় থেকে প্রকাশ করা হবে। ডিক্রিতে বলা হয়, আগামী চার দিনের মধ্যে এ প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যাবে।

১৫ দিনের মধ্যে দেড় হাজার তালেবান বন্দিকে ছাড়ার প্রক্রিয়া শেষ হবে। প্রতিদিন কারাগার থেকে ১০০ করে বন্দি মুক্তি পাবেন।

ডিক্রিতে বলা হয়, বন্দিদের মুক্তির সঙ্গে তালেবান ও সরকারের মধ্যে আলোচনা সমানভাবে চলবে। তবে এ ক্ষেত্রে সহিংসতা থেকে দূরে থাকার প্রতিশ্রুতি অব্যাহত রাখতে হবে।

ছেড়ে দেয়া হচ্ছে দেড় হাজার তালেবান বন্দি

 যুগান্তর ডেস্ক 
১১ মার্চ ২০২০, ১০:১১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ছেড়ে দেয়া হচ্ছে দেড় হাজার তালেবান বন্দি
ছবি: রয়টার্স

দেড় হাজার তালেবান কারাবন্দিকে ছেড়ে দেয়ার প্রস্তুতি নিয়েছেন আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি। আসছে দিনগুলোতে ধীরে ধীরে তাদের মুক্তি দেয়া হবে বলে মঙ্গলবার একটি অধ্যাদেশ জারি করেছেন তিনি।

এমন একসময় এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে, যখন ১৮ বছর ধরে চলা আফগান যুদ্ধের অবসানে মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোর চেষ্টা চলছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে এমন তথ্য জানা গেছে।

গনির সই করা দুই পাতার অধ্যাদেশে বলা হয়েছে, তালেবান যোদ্ধারা লড়াইয়ে ফিরবেন না– এই শর্তে তাদের ছাড়া হবে। তাদের এই শর্ত লিখিত দিতে হবে। মূলত বিদ্রোহীদের সঙ্গে সরাসরি আলোচনার পথ তৈরি করতেই এমন চেষ্টা নেয়া হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র তালেবানকে হুশিয়ার করে বলেছে, চলমান উচ্চমাত্রার সহিংসতা শান্তি প্রক্রিয়া এগিয়ে নেয়ার ক্ষেত্রে সহায়ক হবে না। এর আগে মার্কিন খসড়া প্রস্তাব সর্বসম্মতভাবে গ্রহণ করেছে ১৫ সদস্যের জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ।

প্রতিশ্রুতি রাখলে আফগানিস্তান থেকে মার্কিন নেতৃত্বাধীন বিদেশি বাহিনী উঠিয়ে নেয়ার প্রস্তুতি স্বরূপ গত মাসে তালেবানের সঙ্গে একটি চুক্তিসই করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

এ ছাড়া কয়েক দশকের সহিংসতার অবসানে একটি রাজনৈতিক সমাধানে আফগান সরকারের প্রতিনিধি ও বিদ্রোহীদের মধ্যে আলোচনা শুরু করতেও চুক্তিতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

বন্দি মুক্তির এ নির্দেশনা পরবর্তী সময়ে আশরাফ গনির কার্যালয় থেকে প্রকাশ করা হবে। ডিক্রিতে বলা হয়, আগামী চার দিনের মধ্যে এ প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যাবে। 

১৫ দিনের মধ্যে দেড় হাজার তালেবান বন্দিকে ছাড়ার প্রক্রিয়া শেষ হবে। প্রতিদিন কারাগার থেকে ১০০ করে বন্দি মুক্তি পাবেন।

ডিক্রিতে বলা হয়, বন্দিদের মুক্তির সঙ্গে তালেবান ও সরকারের মধ্যে আলোচনা সমানভাবে চলবে। তবে এ ক্ষেত্রে সহিংসতা থেকে দূরে থাকার প্রতিশ্রুতি অব্যাহত রাখতে হবে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : মার্কিন-তালেবান শান্তি আলোচনা