কাশ্মীরে রাতভর গোলাগুলি, হিজবুল মুজাহিদিনের শীর্ষ কমান্ডার নিহত
jugantor
কাশ্মীরে রাতভর গোলাগুলি, হিজবুল মুজাহিদিনের শীর্ষ কমান্ডার নিহত

  যুগান্তর ডেস্ক  

২০ মে ২০২০, ০৭:৪৮:০৫  |  অনলাইন সংস্করণ

নিরাপত্তা রক্ষীদের ইট পাটকেল ছুড়ছে স্থানীয় জনতা
নিরাপত্তা রক্ষীদের ইট পাটকেল ছুড়ছে স্থানীয় জনতা। ছবি- সংগৃহীত

ভারত শাসিত কাশ্মীরে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে রাতভর গোলাগুলিতে নিহত হয়েছেন কাশ্মীরের বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন হিজবুল মুজাহিদিনের শীর্ষ কমান্ডার জুনাইদ আশরাফ সেহরাই।

টানা ১২ ঘণ্টার বন্দুকযুদ্ধে এক সহযোগীসহ জুনাইদ আশরাফ নিহত হন।

মঙ্গলবার কাশ্মীরে রাজধানী শ্রীনগরের কাছাকাছি এলাকায় সারারাত ধরে এ গোলাগুলির ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।  

ভারতের আধাসামরিক বাহিনীর মুখপাত্র পংকজ সিং জানান, একজন সঙ্গী নিয়ে জুনায়েদ নাওয়াকদাল নামে শ্রীনগরের পাশে একটি এলাকায় অবস্থান নিয়েছিল। খবর পেয়ে ওই এলাকা ঘিরে ফেলে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। এরপর টানা ১২ ঘণ্টার অভিযানের এক পর্যায়ে তারা নিহত হন।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানিয়েছে, জুনাইদ আশরাফ সেহরাই স্থানীয় শীর্ষ বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা মোহাম্মদ আশরাফ সেহরাইয়ের ছেলে এবং তিনি  হিজবুল মুজাহিদিনে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পদধারী নেতা।

তার বাড়ি শ্রীনগরের বাঘাত বারুজুল্লা নামক স্থানে। কাশ্মীরের প্রথম সারির বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যবসায় ব্যবস্থাপনায় স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভের পর ২০১৮ সালে তিনি হিজবুল মুজাহিদিনে যোগ দেন।

কাশ্মীরের আইজিপি বিজয় কুমার ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে বলেন, আজ আমরা শতভাগ সফল। জুম্মু-কাশ্মীর পুলিশ এবং আধা সামরিক বাহিনীর (সিআরপিএফ) যৌথ অভিযানে এ সফলতা এসেছে।

অভিযানের বিষয়ে বার্তা সংস্থা এএফপি বলছে, মঙ্গলবার সিআরপিএফ এবং জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের যৌথ বাহিনীর বিস্ফোরণে আশপাশের পাঁচটি বাড়ি গুড়িয়ে দেয়া হয়। জুনায়েদ হত্যার সংবাদ চারপাশে ছড়িয়ে গেলে স্থানীয়রা রাস্তায় নেমে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। নিরাপত্তা বাহিনীও কাঁদানে গ্যাস ও শটগান ছোড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

 

কাশ্মীরে রাতভর গোলাগুলি, হিজবুল মুজাহিদিনের শীর্ষ কমান্ডার নিহত

 যুগান্তর ডেস্ক 
২০ মে ২০২০, ০৭:৪৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
নিরাপত্তা রক্ষীদের ইট পাটকেল ছুড়ছে স্থানীয় জনতা
নিরাপত্তা রক্ষীদের ইট পাটকেল ছুড়ছে স্থানীয় জনতা। ছবি- সংগৃহীত

ভারত শাসিত কাশ্মীরে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে রাতভর গোলাগুলিতে নিহত হয়েছেন কাশ্মীরের বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন হিজবুল মুজাহিদিনের শীর্ষ কমান্ডার জুনাইদ আশরাফ সেহরাই।

টানা ১২ ঘণ্টার বন্দুকযুদ্ধে এক সহযোগীসহ জুনাইদ আশরাফ নিহত হন।

মঙ্গলবার কাশ্মীরে রাজধানী শ্রীনগরের কাছাকাছি এলাকায় সারারাত ধরে এ গোলাগুলির ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

ভারতের আধাসামরিক বাহিনীর মুখপাত্র পংকজ সিং জানান, একজন সঙ্গী নিয়ে জুনায়েদ নাওয়াকদাল নামে শ্রীনগরের পাশে একটি এলাকায় অবস্থান নিয়েছিল। খবর পেয়ে ওই এলাকা ঘিরে ফেলে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। এরপর টানা ১২ ঘণ্টার অভিযানের এক পর্যায়ে তারা নিহত হন।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানিয়েছে, জুনাইদ আশরাফ সেহরাই স্থানীয় শীর্ষ বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা মোহাম্মদ আশরাফ সেহরাইয়ের ছেলে এবং তিনি হিজবুল মুজাহিদিনে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পদধারী নেতা।

তার বাড়ি শ্রীনগরের বাঘাত বারুজুল্লা নামক স্থানে। কাশ্মীরের প্রথম সারির বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যবসায় ব্যবস্থাপনায় স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভের পর ২০১৮ সালে তিনি হিজবুল মুজাহিদিনে যোগ দেন।

কাশ্মীরের আইজিপি বিজয় কুমার ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে বলেন, আজ আমরা শতভাগ সফল। জুম্মু-কাশ্মীর পুলিশ এবং আধা সামরিক বাহিনীর (সিআরপিএফ) যৌথ অভিযানে এ সফলতা এসেছে।

অভিযানের বিষয়ে বার্তা সংস্থা এএফপি বলছে, মঙ্গলবার সিআরপিএফ এবং জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের যৌথ বাহিনীর বিস্ফোরণে আশপাশের পাঁচটি বাড়ি গুড়িয়ে দেয়া হয়। জুনায়েদ হত্যার সংবাদ চারপাশে ছড়িয়ে গেলে স্থানীয়রা রাস্তায় নেমে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। নিরাপত্তা বাহিনীও কাঁদানে গ্যাস ও শটগান ছোড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : কাশ্মীর সংকট