ফিলিস্তিনি জনগণই নিজেদের ভাগ্য ঠিক করবে: ইরান
jugantor
ফিলিস্তিনি জনগণই নিজেদের ভাগ্য ঠিক করবে: ইরান

  যুগান্তর ডেস্ক  

২০ মে ২০২০, ১১:১০:০৭  |  অনলাইন সংস্করণ

ফিলিস্তিনি জনগণই নিজেদের ভাগ্য ঠিক করবে: ইরান

ফিলিস্তিনের ভাগ্য কেবল ফিলিস্তিনি জনগণই নির্ধারণ করবে বলে বিশ্বকে স্মরণ করিয়ে দিয়েছে ইরান।

আন্তর্জাতিক আল-কুদস দিবস উপলক্ষ্যে মঙ্গলবার দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বার্তায় এ কথা জানানো হয়।

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের টুইট বার্তায় বলা হয়, গত ৭০ বছর ধরে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় ফিলিস্তিনি জনগণের সমস্যার সমাধানে ব্যর্থ হয়েছে। কারণ এ যাবৎ ফিলিস্তিন সংকট সমাধানের জন্য যেসব প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়েছে সেখানে ফিলিস্তিনি জনগণের ঐতিহাসিক সত্য এবং তাদের মূল বিবেচনায় আনা হয়নি।

এতে আরও বলা হয়, ইরান বিশ্বাস করে প্রকৃত ফিলিস্তিনি জনগণ তারা মুসলিম, খৃষ্টান বা ইহুদি হোক তাদের জাতীয় গণভোটই কেবল ফিলিস্তিনের ভাগ্য নির্ধারন করতে পারে।

প্রসঙ্গত, আগামী ২২মে শুক্রবার পালিত হতে যাচ্ছে বিশ্ব কুদস দিবস। ফিলিস্তিনের মজলুম জনগণের প্রতি সংহতি জানাতে এবং ইসরাইলের কবল থেকে পবিত্র আল-আকসা মসজিদ ও বায়তুল মুকাদ্দাস শহর মুক্ত করার দাবিতে কুদস দিবস পালিত হয়ে আসছে।

এই দিবস পালনের উদ্দেশ্য হলো ফিলিস্তিনী জনগণের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ এবং ইসরাইল কর্তৃক জেরুজালেম দখলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ।

ইরানে ইসলামি বিপ্লব সফল হওয়ার পর মহান নেতা ইমাম খোমেনী পবিত্র রমজান মাসের শেষ শুক্রবারকে আন্তর্জাতিক আল-কুদস দিবস হিসেবে ঘোষণা করেন। সেই থেকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কুদ্‌স দিবসে বিক্ষোভ-মিছিল ও সমাবেশে অনুষ্ঠিত হয়।

চলতি বছর বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বিধিবিধান পালন করার কারণে বিশ্বের বেশিরভাগ দেশে কুদস দিবসের বিক্ষোভ মিছিল করা সম্ভব হবে না।

দখলদার ইসরাইল ও সাম্রাজ্যবাদী শক্তিগুলো ফিলিস্তিনিদেরকে মুসলমানদের মন থেকে মুছে দেয়ার চেষ্টা করলেও প্রতি বছর এ দিবস পালনের ফলে ফিলিস্তিন ইস্যু দিন দিন গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে।

ফিলিস্তিনি জনগণই নিজেদের ভাগ্য ঠিক করবে: ইরান

 যুগান্তর ডেস্ক 
২০ মে ২০২০, ১১:১০ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ফিলিস্তিনি জনগণই নিজেদের ভাগ্য ঠিক করবে: ইরান
ছবি: সংগৃহীত

ফিলিস্তিনের ভাগ্য কেবল ফিলিস্তিনি জনগণই নির্ধারণ করবে বলে বিশ্বকে স্মরণ করিয়ে দিয়েছে ইরান।  

আন্তর্জাতিক আল-কুদস দিবস উপলক্ষ্যে মঙ্গলবার দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বার্তায় এ কথা জানানো হয়।  

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের টুইট বার্তায় বলা হয়, গত ৭০ বছর ধরে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় ফিলিস্তিনি জনগণের সমস্যার সমাধানে ব্যর্থ হয়েছে। কারণ এ যাবৎ ফিলিস্তিন সংকট সমাধানের জন্য যেসব প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়েছে সেখানে ফিলিস্তিনি জনগণের ঐতিহাসিক সত্য এবং তাদের মূল বিবেচনায় আনা হয়নি। 

এতে আরও বলা হয়, ইরান বিশ্বাস করে প্রকৃত ফিলিস্তিনি জনগণ তারা মুসলিম, খৃষ্টান বা ইহুদি হোক তাদের জাতীয় গণভোটই কেবল ফিলিস্তিনের ভাগ্য নির্ধারন করতে পারে।      

প্রসঙ্গত, আগামী ২২মে শুক্রবার পালিত হতে যাচ্ছে বিশ্ব কুদস দিবস। ফিলিস্তিনের মজলুম জনগণের প্রতি সংহতি জানাতে এবং ইসরাইলের কবল থেকে পবিত্র আল-আকসা মসজিদ ও বায়তুল মুকাদ্দাস শহর মুক্ত করার দাবিতে কুদস দিবস পালিত হয়ে আসছে।

এই দিবস পালনের উদ্দেশ্য হলো ফিলিস্তিনী জনগণের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ এবং ইসরাইল কর্তৃক জেরুজালেম দখলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ।

ইরানে ইসলামি বিপ্লব সফল হওয়ার পর মহান নেতা ইমাম খোমেনী পবিত্র রমজান মাসের শেষ শুক্রবারকে আন্তর্জাতিক আল-কুদস দিবস হিসেবে ঘোষণা করেন। সেই থেকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কুদ্‌স দিবসে বিক্ষোভ-মিছিল ও সমাবেশে অনুষ্ঠিত হয়।

চলতি বছর বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বিধিবিধান পালন করার কারণে বিশ্বের বেশিরভাগ দেশে কুদস দিবসের বিক্ষোভ মিছিল করা সম্ভব হবে না।

দখলদার ইসরাইল ও সাম্রাজ্যবাদী শক্তিগুলো ফিলিস্তিনিদেরকে মুসলমানদের মন থেকে মুছে দেয়ার চেষ্টা করলেও প্রতি বছর এ দিবস পালনের ফলে ফিলিস্তিন ইস্যু দিন দিন গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ফিলিস্তিনিদের ঘরে ফেরার বিক্ষোভ