মহাশূন্য যাত্রায় বেসরকারি মহাকাশযানে নাসার নভোচারীরা
jugantor
মহাশূন্য যাত্রায় বেসরকারি মহাকাশযানে নাসার নভোচারীরা

  যুগান্তর ডেস্ক  

৩১ মে ২০২০, ২০:০৮:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

মহাশূন্য যাত্রায় বেসরকারি মহাকাশযানে নাসার নভোচারীরা

প্রথমবারের মতো একটি বেসরকারি কোম্পানির মহাকাশযানে চড়ে আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের উদ্দেশে যাত্রা করলেন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার দুই নভোচারী।

শনিবার ক্যালিফোর্নিয়াভিত্তিক বেসরকারি রকেট নির্মাতা কোম্পানি স্পেসএক্সের ফ্যালকন-৯ রকেটে করে ওই দুই অভিজ্ঞ নভোচারী মহাশূন্যে যাত্রা করেন।

রকেটটি উৎক্ষেপণের সময় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প উপস্থিত ছিলেন। এর মাধ্যমে মহাশূন্য ভ্রমণে এক নতুন যুগ সূচিত হল বলে মনে করছে সংশ্লিষ্টরা। বিবিসি।

নয় বছর আগে মহাকাশে নাসা নিজেদের শাটল পাঠানো বন্ধ করার পর প্রথমবারের মতো যুক্তরাষ্ট্রের মাটি থেকে মার্কিন নভোচারীরা পৃথিবীর কক্ষপথে গেলেন। দেশটির উদ্যোক্তা ইলন মাস্কের মালিকানাধীন কোম্পানি স্পেসএক্সের ফ্যালকন-৯ রকেটটি ফ্লোরিডা থেকে যাত্রা করে।

হারলি ও বেনকেনকে নিয়ে স্পেসএক্সের ড্রাগন মহাকাশযানটি ফ্যালকন-৯ রকেটে চেপে শনিবার ফ্লোরিডার স্থানীয় সময় বিকাল ৩টা ২২ মিনিটে মহাকাশের উদ্দেশে ছুটে যায়।

ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টারের আশপাশের পরিবেশ পুরোপুরি অনুকূলে না থাকায় আবহাওয়াবিদরা প্রথমে মহাকাশযানটি উৎক্ষেপণে ৫০ শতাংশ সম্ভাবনা দেখেছিলেন।

পরে আবহাওয়ার সবুজ সংকেত মেলায় নির্ধারিত সময়েই ফ্যালকন রকেটটি উৎক্ষেপণ কেন্দ্র থেকে আটলান্টিক মহাসাগরের উপর দিয়ে উত্তরপূর্ব দিক বরাবর উড়ে যায়।

আড়াই মিনিট পর মহাকাশযানটির নিচের অংশ বিচ্ছিন্ন হয়ে সমুদ্রে অবস্থানরত একটি মানুষবিহীন জাহাজে ফিরে আসে। আরও ৬ মিনিট পর দুই নভোচারীকে নিয়ে স্পেসএক্সের যানটি নিরাপদে পৃথিবীর কক্ষপথে প্রবেশ করে।

যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের বিস্তৃতির মধ্যেই এ ঐতিহাসিক মিশন যাত্রা শুরু করে।

মহামারী পরিস্থিতির কারণে কেনেডি স্পেস সেন্টারের আশপাশে জনসাধারণের জড়ো হওয়াকে অনুৎসাহিত করা হয়। উৎক্ষেপণ কেন্দ্রে অতিথির সংখ্যাও কাটছাঁট করেছিল নাসা।

মহাশূন্য যাত্রায় বেসরকারি মহাকাশযানে নাসার নভোচারীরা

 যুগান্তর ডেস্ক 
৩১ মে ২০২০, ০৮:০৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মহাশূন্য যাত্রায় বেসরকারি মহাকাশযানে নাসার নভোচারীরা
ছবি: বিবিসি

প্রথমবারের মতো একটি বেসরকারি কোম্পানির মহাকাশযানে চড়ে আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের উদ্দেশে যাত্রা করলেন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার দুই নভোচারী। 

শনিবার ক্যালিফোর্নিয়াভিত্তিক বেসরকারি রকেট নির্মাতা কোম্পানি স্পেসএক্সের ফ্যালকন-৯ রকেটে করে ওই দুই অভিজ্ঞ নভোচারী মহাশূন্যে যাত্রা করেন। 

রকেটটি উৎক্ষেপণের সময় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প উপস্থিত ছিলেন। এর মাধ্যমে মহাশূন্য ভ্রমণে এক নতুন যুগ সূচিত হল বলে মনে করছে সংশ্লিষ্টরা। বিবিসি।   

নয় বছর আগে মহাকাশে নাসা নিজেদের শাটল পাঠানো বন্ধ করার পর প্রথমবারের মতো যুক্তরাষ্ট্রের মাটি থেকে মার্কিন নভোচারীরা পৃথিবীর কক্ষপথে গেলেন। দেশটির উদ্যোক্তা ইলন মাস্কের মালিকানাধীন কোম্পানি স্পেসএক্সের ফ্যালকন-৯ রকেটটি ফ্লোরিডা থেকে যাত্রা করে। 

হারলি ও বেনকেনকে নিয়ে স্পেসএক্সের ড্রাগন মহাকাশযানটি ফ্যালকন-৯ রকেটে চেপে শনিবার ফ্লোরিডার স্থানীয় সময় বিকাল ৩টা ২২ মিনিটে মহাকাশের উদ্দেশে ছুটে যায়। 

ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টারের আশপাশের পরিবেশ পুরোপুরি অনুকূলে না থাকায় আবহাওয়াবিদরা প্রথমে মহাকাশযানটি উৎক্ষেপণে ৫০ শতাংশ সম্ভাবনা দেখেছিলেন।

পরে আবহাওয়ার সবুজ সংকেত মেলায় নির্ধারিত সময়েই ফ্যালকন রকেটটি উৎক্ষেপণ কেন্দ্র থেকে আটলান্টিক মহাসাগরের উপর দিয়ে উত্তরপূর্ব দিক বরাবর উড়ে যায়। 

আড়াই মিনিট পর মহাকাশযানটির নিচের অংশ বিচ্ছিন্ন হয়ে সমুদ্রে অবস্থানরত একটি মানুষবিহীন জাহাজে ফিরে আসে। আরও ৬ মিনিট পর দুই নভোচারীকে নিয়ে স্পেসএক্সের যানটি নিরাপদে পৃথিবীর কক্ষপথে প্রবেশ করে। 

যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের বিস্তৃতির মধ্যেই এ ঐতিহাসিক মিশন যাত্রা শুরু করে। 

মহামারী পরিস্থিতির কারণে কেনেডি স্পেস সেন্টারের আশপাশে জনসাধারণের জড়ো হওয়াকে অনুৎসাহিত করা হয়। উৎক্ষেপণ কেন্দ্রে অতিথির সংখ্যাও কাটছাঁট করেছিল নাসা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন