চীনারা কি লাদাখে ভারতীয় এলাকা দখল করে নিয়েছে: রাহুল

  অনলাইন ডেস্ক ০৯ জুন ২০২০, ১৩:১৮:৩৭ | অনলাইন সংস্করণ

ভারত-চীন সীমান্ত সমস্যা নিয়ে ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংকে উদ্দেশ করে কংগ্রেস সংসদ সদস্য রাহুল গান্ধী বলেছেন, ‘চীনারা কি লাদাখে ভারতীয় এলাকা দখল করে নিয়েছে?’

মঙ্গলবার সকালে টুইটে সরাসরি এমন প্রশ্ন করেন তিনি।

এর আগের দিন সোমবার এক টুইটবার্তায় অমিত শাহকে কটাক্ষ করেন সোনিয়া পুত্র। অবশ্য ওই টুইটের রাহুলকে পাল্টা জবাব দেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং।

রাহুল বলেন, যখন (রাজনাথ সিং) হাতের প্রতীককে তুলে ধরে মন্তব্য করেছেন তখন তিনি কি এবার এই উত্তরটি দিতে পারবেন যে, চীনারা কি লাদাখে ভারতীয় এলাকা দখল করে নিয়েছে?’

এনডিটিভি জানিয়েছে, ঘটনার সূত্রপাত রোববার। এক ভার্চুয়াল র‌্যালি থেকে অমিত শাহ বলেন, উরি এবং পুলওয়ামায় সন্ত্রাসবাদী হামলার পরে সার্জিক্যাল এবং এয়ার স্ট্রাইক করে ভারত দেখিয়ে দিয়েছে যে দেশের প্রতিরক্ষা নীতি কতটা শক্তিশালী।

তিনি একথাও বলেন যে, ভারতের প্রতিরক্ষা নীতি সারা বিশ্বের সমীহ আদায় করেছে। পুরো বিশ্ব একমত যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইসরাইলের পর যদি নিজেদের সীমান্ত রক্ষা করতে সক্ষম কোনো দেশ হয় তবে তা হলো ভারত।

এরপরই টুইটারে কিংবদন্তি উর্দু-পার্সিয়ান কবি মির্জা গালিবের একটি কবিতার প্রসঙ্গ টেনে অমিত শাহকে কটাক্ষ করেন রাহুল গান্ধী।

তিনি টুইট করেন, প্রত্যেকেই সীমাতে (সীমান্ত) কী ঘটছে সেই কঠিন বাস্তবটি জানেন। তবে মনকে খুশি রাখতে ‘শাহ-ইয়াদ’ একটা ভালো পরিকল্পনা’।

রাহুলের ওই কটাক্ষের কয়েক ঘণ্টা পরে রাজনাথ টুইট করেন, যখন হাতে ব্যথা হয় তখন তার চিকিৎসা করুন, তবে যদি হাত নিজেই ব্যথা পেতে চায় তাহলে কী করা যাবে।

সম্প্রতি চীন-ভারতের মধ্যে দুই দফায় হাতাহাতি ও সংঘাতের পর গালওয়ান উপত্যকায় প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর বিপুল সেনা মোতায়েন করে চীন। পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে ভারতও সেনা মোতায়েন করে যথাযথ জবাব দেয়ার হুমকি দেয়।

গত এক মাস ধরে চলা উত্তেজনার পর সীমান্তে শান্তিপূর্ণভাবে বিরোধ নিষ্পত্তিতে দুই দেশের মধ্যে বৈঠক হয়।

ওই বৈঠক শেষে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায় যে, ভারত ও চীন ‘বিভিন্ন দ্বিপাক্ষিক চুক্তি অনুসারে সীমান্তবর্তী পরিস্থিতি শান্তিপূর্ণভাবে সমাধান করতে’ সম্মত হয়েছে।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত