জাপানে ভয়াবহ বন্যায় নিহত ১৫
jugantor
জাপানে ভয়াবহ বন্যায় নিহত ১৫
উদ্ধারকাজে ১০ হাজার সেনা

  অনলাইন ডেস্ক  

০৫ জুলাই ২০২০, ১০:১৭:০০  |  অনলাইন সংস্করণ

জাপানের দক্ষিণাঞ্চলীয় দ্বীপ কিউশুতে প্রবল বর্ষণে সৃষ্ট বন্যা ও ভূমিধসে ১৫ জনের প্রাণহানির ঘটেছে।


এখনও অনেক মানুষ নিখোঁজ রয়েছেন। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। খবর বিবিসি ও এনএইচকের।


বন্যাকবলিত একটি নার্সিহোম থেকে ১৪ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সেখানে ধসে যাওয়া আরেকটি ভবনের নিচে আটকেপড়া আরও দুজনকে উদ্ধার করা হয়।


ইতিমধ্যে ওই এলাকার দুই লাখেরও বেশি মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। পরিস্থিতি মোকাবেলায় কিউশুতে ১০ হাজার সেনা মোতায়েন করা হয়েছে।


টানা ভারী বর্ষণে সৃষ্ট বন্যা ও ভূমিধসের কারণে এ ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। আবহাওয়া অফিস বলছে, সোমবার পর্যন্ত এ বৃষ্টি অব্যাহত থাকবে।


জাপানের প্রধানমন্ত্রী সিনজো আবে দেশের জনগণকে প্রকৃতিক এ দুর্যোগ থেকে বাঁচতে সর্বোচ্চ সতর্কাবস্থায় থাকতে বলেছেন।


বন্যা ও ভূমিধসে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন কুমামতো ও কাগোশিমা প্রদেশের বাসিন্দারা।


নিরাপদ আশ্রয়স্থলে চলে যাওয়ার নির্দেশের পর বহু মানুষ ঘরবাড়ি ফেলে জরুরি আশ্রয়কেন্দ্রের দিকে ছুটে যাচ্ছেন।

এরই মধ্যে বন্যার তোড়ে অনেক রাস্তাঘাট তলিয়ে গেছে। ভূমিধসের কবলে পড়েছে অনেক ঘরবাড়ি।


জাপানে ভয়াবহ বন্যায় নিহত ১৫

উদ্ধারকাজে ১০ হাজার সেনা
 অনলাইন ডেস্ক 
০৫ জুলাই ২০২০, ১০:১৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

জাপানের দক্ষিণাঞ্চলীয় দ্বীপ কিউশুতে প্রবল বর্ষণে সৃষ্ট বন্যা ও ভূমিধসে ১৫ জনের প্রাণহানির ঘটেছে।


এখনও অনেক মানুষ নিখোঁজ রয়েছেন। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। খবর বিবিসি ও এনএইচকের।

 
বন্যাকবলিত একটি নার্সিহোম থেকে ১৪ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সেখানে ধসে যাওয়া আরেকটি ভবনের নিচে আটকেপড়া আরও দুজনকে উদ্ধার করা হয়। 


ইতিমধ্যে ওই এলাকার দুই লাখেরও বেশি মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। পরিস্থিতি মোকাবেলায় কিউশুতে ১০ হাজার সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। 


টানা ভারী বর্ষণে সৃষ্ট বন্যা ও ভূমিধসের কারণে এ ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। আবহাওয়া অফিস বলছে, সোমবার পর্যন্ত এ বৃষ্টি অব্যাহত থাকবে।


জাপানের প্রধানমন্ত্রী সিনজো আবে দেশের জনগণকে প্রকৃতিক এ দুর্যোগ থেকে বাঁচতে সর্বোচ্চ সতর্কাবস্থায় থাকতে বলেছেন। 


বন্যা ও ভূমিধসে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন কুমামতো ও কাগোশিমা প্রদেশের বাসিন্দারা। 


নিরাপদ আশ্রয়স্থলে চলে যাওয়ার নির্দেশের পর বহু মানুষ ঘরবাড়ি ফেলে জরুরি আশ্রয়কেন্দ্রের দিকে ছুটে যাচ্ছেন।
 

এরই মধ্যে বন্যার তোড়ে অনেক রাস্তাঘাট তলিয়ে গেছে। ভূমিধসের কবলে পড়েছে অনেক ঘরবাড়ি।


 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন