সোলাইমানি হত্যা: বোল্টনের দাম্ভিক উক্তির কড়া জবাব রাশিয়ার
jugantor
সোলাইমানি হত্যা: বোল্টনের দাম্ভিক উক্তির কড়া জবাব রাশিয়ার

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০৯ জুলাই ২০২০, ১৩:০৬:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

সোলাইমানি হত্যা: বোল্টনের দাম্ভিক উক্তির কড়া জবাব রাশিয়ার
কাসেম সোলাইমানি। ফাইল ছবি

ইরানের আল কুদস বাহিনীর সাবেক কমান্ডার লে. জেনারেল কাসেম সোলাইমানি হত্যাকাণ্ড নিয়ে সাবেক মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টনের বক্তব্যের কড়া জবাব দিয়েছে রাশিয়া। 

ভিয়েনায় জাতিসংঘের দফতরে নিযুক্ত রাশিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি মিখাইল উলিয়ানোভ এক টুইটার বার্তায় বোল্টনকে উদ্দেশ করে লিখেছেন– যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধান কি একটি দেশের শীর্ষস্থানীয় সেনা কমান্ডারকে তৃতীয় কোনো দেশের মাটিতে হত্যা করার অনুমতি দেয়?

মঙ্গলবার জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক বিশেষ প্রতিনিধি অ্যাগনেস ক্যালামার্ড তার তদন্ত প্রতিবেদনে জানান, জেনারেল সোলাইমানিকে হত্যা করে যুক্তরাষ্ট্র আন্তর্জাতিক আইন ও জাতিসংঘ ঘোষণা লঙ্ঘন করেছে। বিনাকারণে যুক্তরাষ্ট্র তাকে গ্রেনেড হামলায় হত্যা করেছেন। এ জন্য দায়ীদের বিচার হওয়া দরকার।

এর প্রতিক্রিয়ায় মঙ্গলবার বোল্টন দাম্ভিক উক্তি করে বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধানে প্রদত্ত অধিকার বলে সোলাইমানিকে হত্যা করা হয়েছে।

গত ৩ জানুয়ারি ইরাকের রাজধানী বাগদাদের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করার সময় সোলাইমানিকে বহনকারী গাড়ির বহরে ড্রোন হামলা চালায় ইরাকে মোতায়েন সন্ত্রাসী মার্কিন সেনাবাহিনী। হামলায় জেনারেল সোলাইমানি এবং ইরাকের জনপ্রিয় গণবাহিনী ‘হাশদ আশ-শাবি’র উপপ্রধান মাহদি আল মুহান্দিসসহ ১১ জন নিহত হন। এ ঘটনায় তোলপাড় সৃষ্টি হয় বিশ্বব্যাপী।


 

সোলাইমানি হত্যা: বোল্টনের দাম্ভিক উক্তির কড়া জবাব রাশিয়ার

 যুগান্তর রিপোর্ট 
০৯ জুলাই ২০২০, ০১:০৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সোলাইমানি হত্যা: বোল্টনের দাম্ভিক উক্তির কড়া জবাব রাশিয়ার
কাসেম সোলাইমানি। ফাইল ছবি

ইরানের আল কুদস বাহিনীর সাবেক কমান্ডার লে. জেনারেল কাসেম সোলাইমানি হত্যাকাণ্ড নিয়ে সাবেক মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টনের বক্তব্যের কড়া জবাব দিয়েছে রাশিয়া।

ভিয়েনায় জাতিসংঘের দফতরে নিযুক্ত রাশিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি মিখাইল উলিয়ানোভ এক টুইটার বার্তায় বোল্টনকে উদ্দেশ করে লিখেছেন– যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধান কি একটি দেশের শীর্ষস্থানীয় সেনা কমান্ডারকে তৃতীয় কোনো দেশের মাটিতে হত্যা করার অনুমতি দেয়?

মঙ্গলবার জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক বিশেষ প্রতিনিধি অ্যাগনেস ক্যালামার্ড তার তদন্ত প্রতিবেদনে জানান, জেনারেল সোলাইমানিকে হত্যা করে যুক্তরাষ্ট্র আন্তর্জাতিক আইন ও জাতিসংঘ ঘোষণা লঙ্ঘন করেছে। বিনাকারণে যুক্তরাষ্ট্র তাকে গ্রেনেড হামলায় হত্যা করেছেন। এ জন্য দায়ীদের বিচার হওয়া দরকার।

এর প্রতিক্রিয়ায় মঙ্গলবার বোল্টন দাম্ভিক উক্তি করে বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধানে প্রদত্ত অধিকার বলে সোলাইমানিকে হত্যা করা হয়েছে।

গত ৩ জানুয়ারি ইরাকের রাজধানী বাগদাদের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করার সময় সোলাইমানিকে বহনকারী গাড়ির বহরে ড্রোন হামলা চালায় ইরাকে মোতায়েন সন্ত্রাসী মার্কিন সেনাবাহিনী। হামলায় জেনারেল সোলাইমানি এবং ইরাকের জনপ্রিয় গণবাহিনী ‘হাশদ আশ-শাবি’র উপপ্রধান মাহদি আল মুহান্দিসসহ ১১ জন নিহত হন। এ ঘটনায় তোলপাড় সৃষ্টি হয় বিশ্বব্যাপী।


 

ঘটনাপ্রবাহ : ইরানি শীর্ষ জেনারেল কাসেম সোলাইমানি নিহত