ইসরাইলকে ফিলিস্তিনের ভূমি দখলে পরিকল্পনা বাদ দিতে বলল ফ্রান্স
jugantor
ইসরাইলকে ফিলিস্তিনের ভূমি দখলে পরিকল্পনা বাদ দিতে বলল ফ্রান্স

  অনলাইন ডেস্ক  

১১ জুলাই ২০২০, ১৩:৩৯:৩৩  |  অনলাইন সংস্করণ

ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীর এবং জর্দান উপত্যকা সংযুক্ত করার পরিকল্পনা ইসরাইলকে বাদ দেয়ার আহ্বান জানিয়েছে ফ্রান্স। 


ফ্রান্সে প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু'র প্রতি এ আহ্বান জানিয়েছেন। খবর আলজাজিরার।


নেতানিয়াহুর সঙ্গে টেলিফোনে আলাপকালে ফরাসি প্রেসিডেন্ট বলেন, ইসরাইলের এ উদ্যোগের ফলে আন্তর্জাতিক আইন লংঘিত হবে এবং দুই রাষ্ট্রভিত্তিক ফিলিস্তিন সমস্যার সমাধানের পথ বন্ধ হয়ে যাবে। 


নেতানিয়াহুর দাবি, তিনি আন্তর্জাতিক আইন অনুসারে ফিলিস্তিনের ভূখণ্ড সংযুক্ত করতে চলেছেন।


যুদ্ধবাজ বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু আগেই ঘোষণা দিয়েছিলেন, ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড সংযুক্তকরণের ব্যাপারে ১ জুলাই থেকে মন্ত্রিসভায় আলোচনা শুরু হবে। কিন্তু সে আলোচনা শুরু হয়নি বরং মন্ত্রিসভার মধ্যে এ নিয়ে মতভেদ সৃষ্টি হয়েছে।


কারণ আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এ নিয়ে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া শুরু হয়েছে এবং বিশ্বের বেশিরভাগ দেশ এই পরিকল্পনার বিরোধিতা করছে। 


অবশ্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইসরাইলের এই পরিকল্পনা সমর্থন করেছেন এবং তিনি এ প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য পরিপূর্ণভাবে মদদ দিয়ে যাচ্ছেন।

ইসরাইলকে ফিলিস্তিনের ভূমি দখলে পরিকল্পনা বাদ দিতে বলল ফ্রান্স

 অনলাইন ডেস্ক 
১১ জুলাই ২০২০, ০১:৩৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীর এবং জর্দান উপত্যকা সংযুক্ত করার পরিকল্পনা ইসরাইলকে বাদ দেয়ার আহ্বান জানিয়েছে ফ্রান্স।


ফ্রান্সে প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু'র প্রতি এ আহ্বান জানিয়েছেন। খবর আলজাজিরার।


নেতানিয়াহুর সঙ্গে টেলিফোনে আলাপকালে ফরাসি প্রেসিডেন্ট বলেন, ইসরাইলের এ উদ্যোগের ফলে আন্তর্জাতিক আইন লংঘিত হবে এবং দুই রাষ্ট্রভিত্তিক ফিলিস্তিন সমস্যার সমাধানের পথ বন্ধ হয়ে যাবে।


নেতানিয়াহুর দাবি, তিনি আন্তর্জাতিক আইন অনুসারে ফিলিস্তিনের ভূখণ্ড সংযুক্ত করতে চলেছেন।


যুদ্ধবাজ বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু আগেই ঘোষণা দিয়েছিলেন, ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড সংযুক্তকরণের ব্যাপারে ১ জুলাই থেকে মন্ত্রিসভায় আলোচনা শুরু হবে। কিন্তু সে আলোচনা শুরু হয়নি বরং মন্ত্রিসভার মধ্যে এ নিয়ে মতভেদ সৃষ্টি হয়েছে।


কারণ আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এ নিয়ে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া শুরু হয়েছে এবং বিশ্বের বেশিরভাগ দেশ এই পরিকল্পনার বিরোধিতা করছে।


অবশ্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইসরাইলের এই পরিকল্পনা সমর্থন করেছেন এবং তিনি এ প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য পরিপূর্ণভাবে মদদ দিয়ে যাচ্ছেন।