ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রতিশোধের হুশিয়ারি চীনের
jugantor
ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রতিশোধের হুশিয়ারি চীনের

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৫ জুলাই ২০২০, ২১:০৪:২৭  |  অনলাইন সংস্করণ

ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রতিশোধের হুশিয়ারি চীনের
ফাইল ছবি

হংকংয়ের বিশেষ বাণিজ্য সুবিধা বাতিলের নির্দেশে সই করায় যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে পাল্টা ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছে চীন।

মার্কিন পদক্ষেপের জবাব হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে পাল্টা নিষেধাজ্ঞা আরোপের হুশিয়ারি দিয়েছে দেশটি।

হোয়াইট হাউসের রোজ গার্ডেনে এক সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প জানান, তার নির্বাহী আদেশ হংকংয়ের বিশেষ সুবিধার ইতি ঘটবে। বিশেষ সুবিধা থাকবে না, বিশেষ অর্থনৈতিক ব্যবস্থা থাকবে না এবং স্পর্শকাতর প্রযুক্তি রফতানি হবে না।

মঙ্গলবার হংকংয়ের বিশেষ বাণিজ্য সুবিধা বাতিলের নির্দেশে সই করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।  

এক দিন পর বুধবার চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এ আদেশ জারির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট মার্কিন কর্মকর্তা ও প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে প্রতিশোধমূলক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবে বেইজিং।

হংকংয়ের ঘটনাবলি চীনের অভ্যন্তরীণ বিষয় দাবি করে এতে বিদেশি কোনো দেশের হস্তক্ষেপের সুযোগ নেই বলেও জানিয়েছে চীন।

১৯৯৭ সালে যুক্তরাজ্যের উপনিবেশ হংকং চীনের মালিকানায় হস্তান্তর হওয়ার পর থেকে ভূখণ্ডটি ‘এক দেশ দুই নীতি’র আওতায় অনন্য স্বাধীনতা ভোগ করেছে, যা চীনের মূলভূখণ্ডে ছিল না।

১৯৮৪ সালে চীন ও যুক্তরাজ্যের মধ্যে হওয়া চুক্তির বলে এতদিন হংকং এ বিশেষ মর্যাদা ভোগ করেছে। কিন্তু সম্প্রতি বেইজিংয়ের আরোপ করা নতুন নিরাপত্তা আইনে তাদের এ স্বাধীনতা খর্ব হবে বলে মনে করছেন হংকংয়ের অনেক বাসিন্দা।

ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রতিশোধের হুশিয়ারি চীনের

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৫ জুলাই ২০২০, ০৯:০৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রতিশোধের হুশিয়ারি চীনের
ফাইল ছবি

হংকংয়ের বিশেষ বাণিজ্য সুবিধা বাতিলের নির্দেশে সই করায় যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে পাল্টা ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছে চীন।

মার্কিন পদক্ষেপের জবাব হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে পাল্টা নিষেধাজ্ঞা আরোপের হুশিয়ারি দিয়েছে দেশটি।

হোয়াইট হাউসের রোজ গার্ডেনে এক সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প জানান, তার নির্বাহী আদেশ হংকংয়ের বিশেষ সুবিধার ইতি ঘটবে। বিশেষ সুবিধা থাকবে না, বিশেষ অর্থনৈতিক ব্যবস্থা থাকবে না এবং স্পর্শকাতর প্রযুক্তি রফতানি হবে না।

মঙ্গলবার হংকংয়ের বিশেষ বাণিজ্য সুবিধা বাতিলের নির্দেশে সই করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

এক দিন পর বুধবার চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এ আদেশ জারির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট মার্কিন কর্মকর্তা ও প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে প্রতিশোধমূলক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবে বেইজিং।

হংকংয়ের ঘটনাবলি চীনের অভ্যন্তরীণ বিষয় দাবি করে এতে বিদেশি কোনো দেশের হস্তক্ষেপের সুযোগ নেই বলেও জানিয়েছে চীন।

১৯৯৭ সালে যুক্তরাজ্যের উপনিবেশ হংকং চীনের মালিকানায় হস্তান্তর হওয়ার পর থেকে ভূখণ্ডটি ‘এক দেশ দুই নীতি’র আওতায় অনন্য স্বাধীনতা ভোগ করেছে, যা চীনের মূলভূখণ্ডে ছিল না।

১৯৮৪ সালে চীন ও যুক্তরাজ্যের মধ্যে হওয়া চুক্তির বলে এতদিন হংকং এ বিশেষ মর্যাদা ভোগ করেছে। কিন্তু সম্প্রতি বেইজিংয়ের আরোপ করা নতুন নিরাপত্তা আইনে তাদের এ স্বাধীনতা খর্ব হবে বলে মনে করছেন হংকংয়ের অনেক বাসিন্দা।