নির্বাচনে দলীয় টিকেট নিশ্চিত করেছেন ইলহান ওমর
jugantor
নির্বাচনে দলীয় টিকেট নিশ্চিত করেছেন ইলহান ওমর

  যুগান্তর ডেস্ক  

১২ আগস্ট ২০২০, ২৩:০২:১২  |  অনলাইন সংস্করণ

যুক্তরাষ্ট্রের মুসলিম নারী আইনপ্রণেতা ইলহান ওমর
যুক্তরাষ্ট্রের মুসলিম নারী আইনপ্রণেতা ইলহান ওমর

প্রতিদ্বন্দ্বীদের টপকে আসন্ন নির্বাচনে দলীয় টিকেট নিশ্চিত করেছেন ডেমোক্রেট পার্টির অন্যতম পরিচিত মুখ ইলহান ওমর।

নিউইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, মঙ্গলবার মিনেসোটা ফিফথ ডিস্ট্রিক্টের প্রাইমারিতে ৫৭ দশমিক ২ শতাংশ ভোট পেয়ে নিজের কংগ্রেসনাল আসনের প্রাইমারিতে টিকে যান ইলহান। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যান্টন মেল্টন-মিউক্স পেয়েছেন ৩৯ দশমিক ৪ শতাংশ ভোট।

প্রাইমারিতে জেতার কারণে নভেম্বরে তার আসনের প্রতিনিধি পরিষদের নির্বাচনেও ইলহান সহজেই জিতবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। মিনেসোটা ফিফথ ডিস্ট্রিক্টটি ডেমোক্রেটদের শক্ত ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত।

প্রাইমারির আগে ইলহানকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেছিলেন অ্যান্টন। বলেছিলেন, সংসদীয় আসনের দিকে মনোযোগ না দিয়ে ইলহান নিজের সেলিব্রেটি ভাবমূর্তিকেই বেশি প্রাধান্য দিচ্ছেন।

প্রতিনিধি পরিষদের যে চার নারী ডেমোক্রেটকে ‘স্কোয়াড’ নামে ডাকা হচ্ছে তাতে ইলহান ছাড়াও মিশিগানের রাশিদা তালিব, নিউ ইয়র্কের ওকাসিও-কর্টেজ এবং ম্যাসাচুসেটসের আয়ানা প্রেসলি আছেন।

প্রাইমারিতে জেতার পর সমর্থকদের ধন্যবাদ দিয়েছেন ৩৭ বছর বয়সী ইলহান।

উল্লেখ্য, ইলহান ওমর হচ্ছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রথমবার নির্বাচিত দুই মুসলিম নারীর একজন যিনি হিজাব পরে কংগ্রেসে হাজির হন।

হিজাব পরে কংগ্রেসে প্রবেশ ও কোরআনে হাত রেখে শপথ নিয়ে তিনি ইতিহাস রচনা করেছিলেন।

বিভিন্ন সময় প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের একপেশে নীতির বিরোধিতা করে আলোচিত হন ইলহান।

গতবছর ট্রাম্পকে ফ্যাসিস্ট হিসেবে উল্লেখ করে বেশ সমালোচিত হয়েছিলেন।

মার্কিন কংগ্রেসম্যান ইলহান ওমরের জন্মস্থান সোমালিয়ায়। সোমালিয়া থেকে কিশোর বয়সে যুক্তরাষ্ট্রে উদ্বাস্তু হিসেবে আশ্রয় গ্রহণ করেন তিনি। ১৭ বছর বয়সে মার্কিন নাগরিকত্ব লাভ করেন তিনি।

২০১৬ সালে মিনেসোটার হাউস অব রিপ্রেজেনটেটিভের সদস্য নির্বাচিত হন এই নারী। অভিবাসী ও শরণার্থী ইস্যু নিয়ে কাজ করেন তিনি।

ইসরাইল ও মার্কিন রাজনীতিতে ইসরাইলি লবির প্রভাব নিয়ে সমালোচনা করায় কয়েক সপ্তাহ আগে নিজ দল ডেমোক্রেটিক পার্টির ভেতরে ও বাইরে তোপের মুখে পড়েন ইলহান ওমর। তবে ডেমোক্র্যাটরা ইলহান ওমরের পাশে রয়েছেন।
 

নির্বাচনে দলীয় টিকেট নিশ্চিত করেছেন ইলহান ওমর

 যুগান্তর ডেস্ক 
১২ আগস্ট ২০২০, ১১:০২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
যুক্তরাষ্ট্রের মুসলিম নারী আইনপ্রণেতা ইলহান ওমর
যুক্তরাষ্ট্রের মুসলিম নারী আইনপ্রণেতা ইলহান ওমর

প্রতিদ্বন্দ্বীদের টপকে আসন্ন নির্বাচনে দলীয় টিকেট নিশ্চিত করেছেন ডেমোক্রেট পার্টির অন্যতম পরিচিত মুখ ইলহান ওমর।

নিউইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, মঙ্গলবার মিনেসোটা ফিফথ ডিস্ট্রিক্টের প্রাইমারিতে ৫৭ দশমিক ২ শতাংশ ভোট পেয়ে নিজের কংগ্রেসনাল আসনের প্রাইমারিতে টিকে যান ইলহান। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যান্টন মেল্টন-মিউক্স পেয়েছেন ৩৯ দশমিক ৪ শতাংশ ভোট।

প্রাইমারিতে জেতার কারণে নভেম্বরে তার আসনের প্রতিনিধি পরিষদের নির্বাচনেও ইলহান সহজেই জিতবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। মিনেসোটা ফিফথ ডিস্ট্রিক্টটি ডেমোক্রেটদের শক্ত ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত।

প্রাইমারির আগে ইলহানকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেছিলেন অ্যান্টন। বলেছিলেন, সংসদীয় আসনের দিকে মনোযোগ না দিয়ে ইলহান নিজের সেলিব্রেটি ভাবমূর্তিকেই বেশি প্রাধান্য দিচ্ছেন।

প্রতিনিধি পরিষদের যে চার নারী ডেমোক্রেটকে ‘স্কোয়াড’ নামে ডাকা হচ্ছে তাতে ইলহান ছাড়াও মিশিগানের রাশিদা তালিব, নিউ ইয়র্কের ওকাসিও-কর্টেজ এবং ম্যাসাচুসেটসের আয়ানা প্রেসলি আছেন।

প্রাইমারিতে জেতার পর সমর্থকদের ধন্যবাদ দিয়েছেন ৩৭ বছর বয়সী ইলহান।

উল্লেখ্য, ইলহান ওমর হচ্ছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রথমবার নির্বাচিত দুই মুসলিম নারীর একজন যিনি হিজাব পরে কংগ্রেসে হাজির হন।

হিজাব পরে কংগ্রেসে প্রবেশ ও কোরআনে হাত রেখে শপথ নিয়ে তিনি ইতিহাস রচনা করেছিলেন।

বিভিন্ন সময় প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের একপেশে নীতির বিরোধিতা করে আলোচিত হন ইলহান।

গতবছর ট্রাম্পকে ফ্যাসিস্ট হিসেবে উল্লেখ করে বেশ সমালোচিত হয়েছিলেন।

মার্কিন কংগ্রেসম্যান ইলহান ওমরের জন্মস্থান সোমালিয়ায়। সোমালিয়া থেকে কিশোর বয়সে যুক্তরাষ্ট্রে উদ্বাস্তু হিসেবে আশ্রয় গ্রহণ করেন তিনি। ১৭ বছর বয়সে মার্কিন নাগরিকত্ব লাভ করেন তিনি।

২০১৬ সালে মিনেসোটার হাউস অব রিপ্রেজেনটেটিভের সদস্য নির্বাচিত হন এই নারী। অভিবাসী ও শরণার্থী ইস্যু নিয়ে কাজ করেন তিনি।

ইসরাইল ও মার্কিন রাজনীতিতে ইসরাইলি লবির প্রভাব নিয়ে সমালোচনা করায় কয়েক সপ্তাহ আগে নিজ দল ডেমোক্রেটিক পার্টির ভেতরে ও বাইরে তোপের মুখে পড়েন ইলহান ওমর। তবে ডেমোক্র্যাটরা ইলহান ওমরের পাশে রয়েছেন।

 
আরও খবর