নিউজিল্যান্ডের তৃতীয় মসজিদে হামলার পরিকল্পনা ছিল টারান্টের
jugantor
নিউজিল্যান্ডের তৃতীয় মসজিদে হামলার পরিকল্পনা ছিল টারান্টের

  অনলাইন ডেস্ক  

২৪ আগস্ট ২০২০, ১৩:০৪:১৩  |  অনলাইন সংস্করণ

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে গত বছর মুসল্লিদের ওপর এলোপাতাড়ি গুলি চালিয়ে ৫১ মুসল্লিকে হত্যাকারী অস্ট্রেলিয়ার শেতাঙ্গ ও বর্ণবাদী সন্ত্রাসী ব্রেনটন হ্যারিসন টারান্ট (২৯) চেয়েছিলেন বেশি করে মুসলিম হত্যা করতে।

এ জন্য তার পরিকল্পনা ছিল আরও একটি মসজিদে হামলা চালানোর। সোমবার সকালে নিউজিল্যান্ডের আদালতে এ মামলার শুনানি শুরু হয়েছে। আদালতে শুনানিকালে এসব তথ্য উঠে আসে। খবর বিবিসির।

২০১৯ সালের ১৫ মার্চ ক্রাইস্টচার্চের আল-নূর মসজিদসহ পাশের আরও একটি মসজিদে ভয়াবহ ওই হামলায় মৃত্যু হয় ৫১ জনের। নির্মম ওই হামলার দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ করা হয় লাইভ স্ট্রিম করে।

ক্রাইস্টচার্চের ওই দুটি মসজিদ ছাড়াও আরও একটি মসজিদে হামলার পরিকল্পনা ছিল টারান্টের। এমনকি 'যত বেশি সম্ভব' মানুষ হত্যা করতে চেয়েছিলেন সেদিন। আদালতে শুনানিকালে এসব তথ্য উঠে আসে।

এ মামলায় শাস্তি হিসাবে যাবজ্জীবন কারাভোগ করতে হতে পারে আসামির। তার বিরুদ্ধে ৫১ জনকে হত্যা, ৪০ জনকে হত্যাচেষ্টা ও সন্ত্রাসবাদের অভিযোগ আনা হয়েছে।

আদালতে শুনানির সময় কারাগারের ধূসর পোশাকে দেখা গেছে টারান্টকে। তার আশপাশে তিনজন পুলিশ কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। শুনানির সময় একেবারেই নিশ্চুপ ছিলেন এ হামলাকারী।

করোনাভাইরাসের কারণে সরাসরি এ শুনানিতে কেউই উপস্থিতি ছিলেন না। সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে অন্য একটি কোর্টরুম থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে শুনানি প্রক্রিয়া দেখানো হয়।

নিউজিল্যান্ডের তৃতীয় মসজিদে হামলার পরিকল্পনা ছিল টারান্টের

 অনলাইন ডেস্ক 
২৪ আগস্ট ২০২০, ০১:০৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে গত বছর মুসল্লিদের ওপর এলোপাতাড়ি গুলি চালিয়ে ৫১ মুসল্লিকে হত্যাকারী অস্ট্রেলিয়ার শেতাঙ্গ ও বর্ণবাদী সন্ত্রাসী ব্রেনটন হ্যারিসন টারান্ট (২৯) চেয়েছিলেন বেশি করে মুসলিম হত্যা করতে।

এ জন্য তার পরিকল্পনা ছিল আরও একটি মসজিদে হামলা চালানোর। সোমবার সকালে নিউজিল্যান্ডের আদালতে এ মামলার শুনানি শুরু হয়েছে। আদালতে শুনানিকালে এসব তথ্য উঠে আসে। খবর বিবিসির।

২০১৯ সালের ১৫ মার্চ ক্রাইস্টচার্চের আল-নূর মসজিদসহ পাশের আরও একটি মসজিদে ভয়াবহ ওই হামলায় মৃত্যু হয় ৫১ জনের। নির্মম ওই হামলার দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ করা হয় লাইভ স্ট্রিম করে।

ক্রাইস্টচার্চের ওই দুটি মসজিদ ছাড়াও আরও একটি মসজিদে হামলার পরিকল্পনা ছিল টারান্টের। এমনকি 'যত বেশি সম্ভব' মানুষ হত্যা করতে চেয়েছিলেন সেদিন। আদালতে শুনানিকালে এসব তথ্য উঠে আসে।

এ মামলায় শাস্তি হিসাবে যাবজ্জীবন কারাভোগ করতে হতে পারে আসামির। তার বিরুদ্ধে ৫১ জনকে হত্যা, ৪০ জনকে হত্যাচেষ্টা ও সন্ত্রাসবাদের অভিযোগ আনা হয়েছে।

আদালতে শুনানির সময় কারাগারের ধূসর পোশাকে দেখা গেছে টারান্টকে। তার আশপাশে তিনজন পুলিশ কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। শুনানির সময় একেবারেই নিশ্চুপ ছিলেন এ হামলাকারী।

করোনাভাইরাসের কারণে সরাসরি এ শুনানিতে কেউই উপস্থিতি ছিলেন না। সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে অন্য একটি কোর্টরুম থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে শুনানি প্রক্রিয়া দেখানো হয়।

 

 

ঘটনাপ্রবাহ : নিউজিল্যান্ডে মসজিদে এলোপাতাড়ি গুলি

আরও খবর