মিয়ানমার সেনাবাহিনীর হাতে পুড়ল রাখাইনের আরও একটি গ্রাম
jugantor
মিয়ানমার সেনাবাহিনীর হাতে পুড়ল রাখাইনের আরও একটি গ্রাম

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২০:৩৯:৩৫  |  অনলাইন সংস্করণ

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর হাতে পুড়ল রাখাইনের আরও একটি গ্রাম

রাখাইনের আরও একটি গ্রাম আগুনে পুড়িয়ে দিয়েছে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। বৃহস্পতিবার রাতে রাজ্যের কিউকতাও এলাকায় আগুনের পাশাপাশি স্থানীয় দু’জনকে গুলি করেও হত্যা করা হয়েছে।

ভুক্তভোগীদের স্বজনদের বরাতে ইরাবতী এ তথ্য জানিয়েছে।

মিয়ানমার সেনাদের হামলায় ভুক্তভোগী কো মং নিন্ত উইনের বাবা ইউ নিও মাং হ্লা বলেন, আমার ছেলে মোটরসাইকেলে চড়ে কাজ থেকে ফেরার পথে কিউকতাওয়ে সেনা সদস্যদের মুখোমুখি হয়। তারা তাকে পথ দেখাতে বলে। গ্রামের কাছে একটি বিস্ফোরণ হলে হামলা চালায় সেনারা।

এর পরপরই সেনাবাহিনীর ট্রাকগুলো পুরো গ্রাম ঘিরে ফেলে এবং গ্রামবাসীকে ঘরবাড়ি ছেড়ে যেতে বলা হয়। এরপর সেনারা স্থানীয়দের ঘরের মালামাল লুট করে এবং বাড়িগুলোতে আগুন জ্বালিয়ে দেয়।

গ্রামের প্রায় ৪০০ ঘরের মধ্যে ২০০টিরও বেশি আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন ইউ নিও মাং হ্লা।

তিনি বলেন, আমার মনে হয় ২০০টির বেশি ঘর জ্বালিয়ে দেয়া হয়েছে। আমরা এর তালিকাও করতে পারব না। অনেকেই গ্রাম ছেড়ে পালিয়েছেন। কিছু ঘর পোড়েনি, কারণ গ্রামের লোকজন ফিরে এসে আগুন নিভিয়ে ফেলেছিলেন। সেনারা বলেছিল, কেউ আগুন নেভানোর চেষ্টা করলে তাকে গুলি করা হবে।

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর হাতে পুড়ল রাখাইনের আরও একটি গ্রাম

 যুগান্তর ডেস্ক 
০৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:৩৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মিয়ানমার সেনাবাহিনীর হাতে পুড়ল রাখাইনের আরও একটি গ্রাম
ছবি: ইরাবতী

রাখাইনের আরও একটি গ্রাম আগুনে পুড়িয়ে দিয়েছে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। বৃহস্পতিবার রাতে রাজ্যের কিউকতাও এলাকায় আগুনের পাশাপাশি স্থানীয় দু’জনকে গুলি করেও হত্যা করা হয়েছে। 

ভুক্তভোগীদের স্বজনদের বরাতে ইরাবতী এ তথ্য জানিয়েছে। 

মিয়ানমার সেনাদের হামলায় ভুক্তভোগী কো মং নিন্ত উইনের বাবা ইউ নিও মাং হ্লা বলেন, আমার ছেলে মোটরসাইকেলে চড়ে কাজ থেকে ফেরার পথে কিউকতাওয়ে সেনা সদস্যদের মুখোমুখি হয়। তারা তাকে পথ দেখাতে বলে। গ্রামের কাছে একটি বিস্ফোরণ হলে হামলা চালায় সেনারা।

এর পরপরই সেনাবাহিনীর ট্রাকগুলো পুরো গ্রাম ঘিরে ফেলে এবং গ্রামবাসীকে ঘরবাড়ি ছেড়ে যেতে বলা হয়। এরপর সেনারা স্থানীয়দের ঘরের মালামাল লুট করে এবং বাড়িগুলোতে আগুন জ্বালিয়ে দেয়।

গ্রামের প্রায় ৪০০ ঘরের মধ্যে ২০০টিরও বেশি আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন ইউ নিও মাং হ্লা। 

তিনি বলেন, আমার মনে হয় ২০০টির বেশি ঘর জ্বালিয়ে দেয়া হয়েছে। আমরা এর তালিকাও করতে পারব না। অনেকেই গ্রাম ছেড়ে পালিয়েছেন। কিছু ঘর পোড়েনি, কারণ গ্রামের লোকজন ফিরে এসে আগুন নিভিয়ে ফেলেছিলেন। সেনারা বলেছিল, কেউ আগুন নেভানোর চেষ্টা করলে তাকে গুলি করা হবে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : রোহিঙ্গা বর্বরতা