ছয় মাস সাগরে ভেসে অবশেষে ইন্দোনেশিয়ায় ঠাঁই হলো ৩০০ রোহিঙ্গার
jugantor
ছয় মাস সাগরে ভেসে অবশেষে ইন্দোনেশিয়ায় ঠাঁই হলো ৩০০ রোহিঙ্গার

  অনলাইন ডেস্ক  

০৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৫:৪৯:৩৭  |  অনলাইন সংস্করণ

সাগরের বুকে প্রায় ছয় মাস ভাসমান থাকার পর অবশেষে ৩০০ রোহিঙ্গা মুসলমান সোমবার ইন্দোনেশিয়ার আচেহপ্রদেশে নামার সুযোগ পেয়েছেন। ইন্দোনেশিয়ার সরকার এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

আচেহপ্রদেশের পুলিশ জানিয়েছে, একটি কাঠের নৌকায় করে এসব রোহিঙ্গা প্রাণহানির ভয়ে মিয়ানমার ছেড়ে পালিয়ে আসেন। খবর এএফপি ও দ্য ডেইলি সাবাহর।

আচেহপ্রদেশের স্থানীয় জেলেরা ওই নৌকা শনাক্ত করে এবং মধ্যরাতের পরপরই রোহিঙ্গারা উজুং বালাং সৈকতে নামেন। নৌকার আরোহীর মধ্যে ১৮১ নারী ও ১৪ শিশু রয়েছে।

স্থানীয় রেডক্রস কমিটির প্রধান জুনাইদি ইয়াহিয়া জানান, রোহিঙ্গা মুসলমানদের একটি অস্থায়ী জায়গায় রাখা হয়েছে।

এর আগে গত জুন মাসে শতাধিক রোহিঙ্গা মুসলমানকে উদ্ধার করেছিলেন আচেহপ্রদেশের জেলেরা। ওই দলে ৪৯ নারী ও ৩০ শিশু ছিল। প্রথম দিকে ইন্দোনেশিয়ার সরকার এসব রোহিঙ্গা মুসলমানকে দেশে ফেরত পাঠানোর হুমকি দিয়েছিল।

মিয়ানমার সরকারের নিরাপত্তা বাহিনী ও উগ্রবাদী বৌদ্ধদের ধর্ষণ, হত্যা ও হামলা-নির্যাতনের মুখে টিকতে না পেরে লাখ লাখ রোহিঙ্গা মুসলমান বাংলাদেশে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়েছেন।

ছয় মাস সাগরে ভেসে অবশেষে ইন্দোনেশিয়ায় ঠাঁই হলো ৩০০ রোহিঙ্গার

 অনলাইন ডেস্ক 
০৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৩:৪৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সাগরের বুকে প্রায় ছয় মাস ভাসমান থাকার পর অবশেষে ৩০০ রোহিঙ্গা মুসলমান সোমবার ইন্দোনেশিয়ার আচেহপ্রদেশে নামার সুযোগ পেয়েছেন। ইন্দোনেশিয়ার সরকার এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

আচেহপ্রদেশের পুলিশ জানিয়েছে, একটি কাঠের নৌকায় করে এসব রোহিঙ্গা প্রাণহানির ভয়ে মিয়ানমার ছেড়ে পালিয়ে আসেন। খবর এএফপি ও দ্য ডেইলি সাবাহর।

আচেহপ্রদেশের স্থানীয় জেলেরা ওই নৌকা শনাক্ত করে এবং মধ্যরাতের পরপরই রোহিঙ্গারা উজুং বালাং সৈকতে নামেন। নৌকার আরোহীর মধ্যে ১৮১ নারী ও ১৪ শিশু রয়েছে।

স্থানীয় রেডক্রস কমিটির প্রধান জুনাইদি ইয়াহিয়া জানান, রোহিঙ্গা মুসলমানদের একটি অস্থায়ী জায়গায় রাখা হয়েছে।

এর আগে গত জুন মাসে শতাধিক রোহিঙ্গা মুসলমানকে উদ্ধার করেছিলেন আচেহপ্রদেশের জেলেরা। ওই দলে ৪৯ নারী ও ৩০ শিশু ছিল। প্রথম দিকে ইন্দোনেশিয়ার সরকার এসব রোহিঙ্গা মুসলমানকে দেশে ফেরত পাঠানোর হুমকি দিয়েছিল।  

মিয়ানমার সরকারের নিরাপত্তা বাহিনী ও উগ্রবাদী বৌদ্ধদের ধর্ষণ, হত্যা ও হামলা-নির্যাতনের মুখে টিকতে না পেরে লাখ লাখ রোহিঙ্গা মুসলমান বাংলাদেশে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়েছেন।

 

 

ঘটনাপ্রবাহ : রোহিঙ্গা বর্বরতা