‘বিশ্বে এমন শক্তি নেই ভারতের টহল বন্ধ করতে পারে’
jugantor
‘বিশ্বে এমন শক্তি নেই ভারতের টহল বন্ধ করতে পারে’

  অনলাইন ডেস্ক  

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৮:৪২:৩৪  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজনাথ সিং

বিশ্বের কোনো শক্তি ভারতের টহল বন্ধ করতে পারবে না বলে জানিয়েছেন ভারতীয় প্রতিরক্ষমন্ত্রী রাজনাথ সিং। তিনি বলেন, বিশ্বে কোনো শক্তি নেই যে ভারতীয় বাহিনীর টহল বন্ধ করতে পারে, যেখানে ভারত ঐতিহ্যগতভাবে টহল দিয়ে আসছে।

সীমান্তে চীনা সেনা মোতায়ন করার পর ভারত পাল্টা সেনা মোতায়েন নিয়ে বৃহস্পতিবার এ কথা বলেন রাজনাথ।

সম্পূর্ণ পরিস্থিতি উচ্চকক্ষকে জানানো হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, নিয়ন্ত্রণ রেখায় পুরনো পোস্টগুলোতে ভারতীয় সেনার টহলদারির পথে বাধা দিয়েছে চিনা সামরিক বাহিনী। সেটাই সংঘাতের কারণ। তার বিশ্বাস, লাদাখে নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর টহলদারির পদ্ধতিতে (পেট্রোলিং প্যাটার্ন) কোনো বদল হবে না।

কংগ্রেসের সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী এ কে অ্যান্টনি জানতে চান, চীনা বাহিনীর নিয়ন্ত্রণ রেখা লঙ্ঘনের পর পুরনো পথে ভারতীয় সেনা টহলদারি চালানো সম্ভব কি না। জবাবে রাজনাথ সিং বলেন, পুরনো পথে ভারতীয় সেনার টহল কেউ রুখতে পারবে না। লাদাখের প্রায় ৩৮ হাজার বর্গ কিলোমিটার অঞ্চল অবৈধভাবে দখল করে নিয়েছে চীন (১৯৬২ সালের যুদ্ধের সময়)।

প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, চীনা অংশে ভারি অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে অবস্থান নিয়েছে, পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে ভারতও সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। হাউজকে নিশ্চিত করছি আমাদের সেনাবাহিনী চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে পারবে।

১৫ জুন লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় চীন-ভারতের সেনাবাহিনীর সংঘর্ষ হয়। এতে ২০ ভারতীয় সেনা নিহত হয়। তবে চীনের পক্ষ থেকে হতাহতের বিষয়টি জানানো হয়নি। এর পর থেকে দেশ দুটির মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধি পেতে থাকে।

বেশ কয়েকবার উচ্চ পর্যায়ে সামরিক বৈঠক হলেও বিষয়টি নিষ্পত্তি হয়নি। আলোচনার মধ্যেও চীনা বাহিনী ভারতের অঞ্চল দখল করে অবস্থান নিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে দিল্লির পক্ষ থেকে বেইজিংয়ের কাউন্টারে সেনা মোতায়েন বৃদ্ধি করে। এতে সীমান্ত এলাকায় নতুন করে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।

হিন্দুস্তান টাইমস

‘বিশ্বে এমন শক্তি নেই ভারতের টহল বন্ধ করতে পারে’

 অনলাইন ডেস্ক 
১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬:৪২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
রাজনাথ সিং
ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং

বিশ্বের কোনো শক্তি ভারতের টহল বন্ধ করতে পারবে না বলে জানিয়েছেন ভারতীয় প্রতিরক্ষমন্ত্রী রাজনাথ সিং।  তিনি বলেন, বিশ্বে কোনো শক্তি নেই যে ভারতীয় বাহিনীর টহল বন্ধ করতে পারে, যেখানে ভারত ঐতিহ্যগতভাবে টহল দিয়ে আসছে। 

সীমান্তে চীনা সেনা মোতায়ন করার পর ভারত পাল্টা সেনা মোতায়েন নিয়ে বৃহস্পতিবার এ কথা বলেন রাজনাথ।  

সম্পূর্ণ পরিস্থিতি উচ্চকক্ষকে জানানো হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, নিয়ন্ত্রণ রেখায় পুরনো পোস্টগুলোতে ভারতীয় সেনার টহলদারির পথে বাধা দিয়েছে চিনা সামরিক বাহিনী। সেটাই সংঘাতের কারণ।  তার বিশ্বাস,  লাদাখে নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর টহলদারির পদ্ধতিতে (পেট্রোলিং প্যাটার্ন) কোনো বদল হবে না।

কংগ্রেসের সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী এ কে অ্যান্টনি জানতে চান, চীনা বাহিনীর নিয়ন্ত্রণ রেখা লঙ্ঘনের পর পুরনো পথে ভারতীয় সেনা টহলদারি চালানো সম্ভব কি না।  জবাবে রাজনাথ সিং বলেন, পুরনো পথে ভারতীয় সেনার টহল কেউ রুখতে পারবে না।  লাদাখের প্রায় ৩৮ হাজার বর্গ কিলোমিটার অঞ্চল অবৈধভাবে দখল করে নিয়েছে চীন (১৯৬২ সালের যুদ্ধের সময়)। 

প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, চীনা অংশে ভারি অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে অবস্থান নিয়েছে, পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে ভারতও সেনা মোতায়েন করা হয়েছে।  হাউজকে নিশ্চিত করছি আমাদের সেনাবাহিনী চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে পারবে। 

১৫ জুন লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় চীন-ভারতের সেনাবাহিনীর সংঘর্ষ হয়। এতে ২০ ভারতীয় সেনা নিহত হয়।  তবে চীনের পক্ষ থেকে হতাহতের বিষয়টি জানানো হয়নি।  এর পর থেকে দেশ দুটির মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধি পেতে থাকে।  

বেশ কয়েকবার উচ্চ পর্যায়ে সামরিক বৈঠক হলেও বিষয়টি নিষ্পত্তি হয়নি।  আলোচনার মধ্যেও চীনা বাহিনী ভারতের অঞ্চল দখল করে অবস্থান নিয়েছে।  এমন পরিস্থিতিতে দিল্লির পক্ষ থেকে বেইজিংয়ের কাউন্টারে সেনা মোতায়েন বৃদ্ধি করে।  এতে সীমান্ত এলাকায় নতুন করে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। 

হিন্দুস্তান টাইমস
 

 

ঘটনাপ্রবাহ : সীমান্তে চীন-ভারত উত্তেজনা