অবশেষে মার্কিন ড্রোন পাচ্ছে আমিরাত, তবে...
jugantor
অবশেষে মার্কিন ড্রোন পাচ্ছে আমিরাত, তবে...

  যুগান্তর ডেস্ক  

২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৯:৫৩:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

মার্কিন ড্রোন পাচ্ছে আমিরাত, তবে...

যুক্তরাষ্ট্রের বহু আকাঙ্ক্ষিত অত্যাধুনিক মনুষ্যবিহীন ড্রোন পেতে যাচ্ছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। এ ব্যাপারে সম্প্রতি নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন।

সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণে ইসরাইলের সঙ্গে বহুল বিতর্কিত এক চুক্তির পর মধ্যপ্রাচ্যের মিত্রদেশটির ব্যাপারে নিজেদের নীতির বড় পরিবর্তন আনছে ওয়াশিংটন। খবর আলজাজিরার।

আমিরাতের অস্ত্রাগারে ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি বড় ড্রোন রয়েছে। তবে এর বেশির ভাগই চীনের তৈরি।
চীনা ড্রোনের পাশাপাশি এখন মার্কিন ড্রোনগুলো ক্রয়ের চেষ্টা করে আসছে দেশটি। তবে চুক্তি স্বাক্ষরের পরও এ ব্যাপারে আপত্তি জানিয়েছে ইসরাইল।

গত সপ্তাহেই ইসরাইলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, নিরাপত্তার বিষয়ে তারা কোনোভাবেই আমিরাতকে বিশ্বাস করতে পারছে না।

সংবাদ সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র ইসরাইলকে নিশ্চয়তা দিয়েছে যে, ইসরাইলের বিরুদ্ধে ব্যবহার করা যাবে এমন অস্ত্র আরব বিশ্বকে তারা দেবে না।

আরব দেশগুলোর তুলনায় ইসরাইল অত্যাধুনিক অস্ত্র পাবে। যেমন- লকহিড মার্টিনের তৈরি এফ-৩৫ জঙ্গিবিমান যুদ্ধে ব্যবহার করেছে ইসরাইল কিন্তু আমিরাত এখনও তা কিনতে পারেনি।


অবশেষে মার্কিন ড্রোন পাচ্ছে আমিরাত, তবে...

 যুগান্তর ডেস্ক 
২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭:৫৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মার্কিন ড্রোন পাচ্ছে আমিরাত, তবে...
ছবি: আলজাজিরা

যুক্তরাষ্ট্রের বহু আকাঙ্ক্ষিত অত্যাধুনিক মনুষ্যবিহীন ড্রোন পেতে যাচ্ছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। এ ব্যাপারে সম্প্রতি নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন। 

সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণে ইসরাইলের সঙ্গে বহুল বিতর্কিত এক চুক্তির পর মধ্যপ্রাচ্যের মিত্রদেশটির ব্যাপারে নিজেদের নীতির বড় পরিবর্তন আনছে ওয়াশিংটন। খবর আলজাজিরার।

আমিরাতের অস্ত্রাগারে ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি বড় ড্রোন রয়েছে। তবে এর বেশির ভাগই চীনের তৈরি। 
চীনা ড্রোনের পাশাপাশি এখন মার্কিন ড্রোনগুলো ক্রয়ের চেষ্টা করে আসছে দেশটি। তবে চুক্তি স্বাক্ষরের পরও এ ব্যাপারে আপত্তি জানিয়েছে ইসরাইল। 

গত সপ্তাহেই ইসরাইলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, নিরাপত্তার বিষয়ে তারা কোনোভাবেই আমিরাতকে বিশ্বাস করতে পারছে না।  

সংবাদ সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র ইসরাইলকে নিশ্চয়তা দিয়েছে যে, ইসরাইলের বিরুদ্ধে ব্যবহার করা যাবে এমন অস্ত্র আরব বিশ্বকে তারা দেবে না। 

আরব দেশগুলোর তুলনায় ইসরাইল অত্যাধুনিক অস্ত্র পাবে। যেমন- লকহিড মার্টিনের তৈরি এফ-৩৫ জঙ্গিবিমান যুদ্ধে ব্যবহার করেছে ইসরাইল কিন্তু আমিরাত এখনও তা কিনতে পারেনি।


 

 

ঘটনাপ্রবাহ : আরব আমিরাত-ইসরাইল সম্পর্ক

আরও খবর