সুপ্রিম কোর্টে পছন্দের ব্যারেটকেই বেছে নিলেন ট্রাম্প
jugantor
সুপ্রিম কোর্টে পছন্দের ব্যারেটকেই বেছে নিলেন ট্রাম্প

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:৪১:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

সুপ্রিম কোর্টে পছন্দের ব্যারেটকেই বেছে নিলেন ট্রাম্প

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দেশটির সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি হিসেবে শেষ পর্যন্ত নিজের পছন্দের অ্যামি কোনি ব্যারেটকেই মনোনীত করেছেন। রোববার বিবিসির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

শনিবার আনুষ্ঠানিকভাবে বিচারপতি হিসেবে ব্যারেটের নাম ঘোষণা করেন ট্রাম্প। এই নিয়োগের ফলে ব্যারেট প্রয়াত বিচারপতি রুথ বেইডার গিন্সবার্গের উত্তরসূরি হবেন। ৮৭ বছর বয়সে মারা যান রুথ বেইডার।

হোয়াইট হাউসের রোজ গার্ডেনে এ ঘোষণার সময় ট্রাম্পের পাশে ছিলেন রক্ষণশীল ব্যারেট। এ সময় তাকে অসামান্য কৃতিত্বের নারী হিসেবে বর্ণনা করেন ট্রাম্প।

ব্যারেটের প্রশংসা করে ট্রাম্প বলেন, তিনি সংবিধানের প্রতি নিরপেক্ষভাবে আনুগত্যশীল। তিনি খ্যাতিমান বিদ্বান বিচারপতি।
বিবিসির প্রতিবেদন বলছে, ৩ নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে এই মনোনয়ন নিশ্চিত করা নিয়ে সিনেটে রিপাবলিকান ও ডেমোক্র্যাট শিবিরে তিক্ত লড়াইড়ের আভাস পাওয়া যাচ্ছে।

সুপ্রিম কোর্টে ট্রাম্পের বিচারপতি নিয়োগ নিয়ে ইতিমধ্যে মার্কিন রাজনীতি উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে।

ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রার্থী জো বাইডেন আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ও কংগ্রেস নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত এ নিয়োগ অনুমোদন না করার আহ্বান জানিয়েছেন।
আনুষ্ঠানিক ঘোষণার আগেই যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যমে খবর বের হয় যে, ট্রাম্পের সেরা পছন্দ ৪৮ বছর বয়সী বিচারক ব্যারেট। তাই ট্রাম্প সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি হিসেবে ব্যারেটকেই মনোনীত করতে যাচ্ছেন।

এর আগে শনিবার নাম ঘোষণার আগে ট্রাম্প বলেছিলেন, তিনি সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন। ব্যারেট অসাধারণ।

তখন যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম সন্দেহ প্রকাশ করে বলে, বারবার সিদ্ধান্ত পরিবর্তনকারী ট্রাম্প আনুষ্ঠানিক ঘোষণার আগে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে ফেলতে পারেন। কিন্তু শেষমেশ ট্রাম্প সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি হিসেবে ব্যারেটকেই মনোনীত করলেন তিনি।

ব্যারেট নটর ডেম ইউনিভার্সিটি থেকে আইনে স্নাতক ও শিকাগোর ফেডারেল আপিল আদালতের বিচারক ছিলেন। তিনি গর্ভপাতের ঘোর বিরোধী। তিনি একজন রক্ষণশীল ক্যাথলিক।

মার্কিন শাসনতন্ত্রের অন্যতম রক্ষাকবচ সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি নিয়োগের বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা আমৃত্যু দায়িত্ব পালন করতে পারেন।

সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি নয়জন। গিন্সবার্গের মৃত্যুতে ওই আদালতে নিজেদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাকাপোক্ত করার চেষ্টায় রিপাবলিকানরা।

গিন্সবার্গের জায়গায় রক্ষণশীল কোনি ব্যারেট নিয়োগ পাওয়ায় সেখানে রক্ষণশীল বনাম উদারপন্থী বিচারপতির সংখ্যা গিয়ে দাঁড়ালো ৬-৩ এ।

সুপ্রিম কোর্টে পছন্দের ব্যারেটকেই বেছে নিলেন ট্রাম্প

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:৪১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সুপ্রিম কোর্টে পছন্দের ব্যারেটকেই বেছে নিলেন ট্রাম্প
ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দেশটির সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি হিসেবে শেষ পর্যন্ত নিজের পছন্দের অ্যামি কোনি ব্যারেটকেই মনোনীত করেছেন।  রোববার বিবিসির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

শনিবার আনুষ্ঠানিকভাবে বিচারপতি হিসেবে ব্যারেটের নাম ঘোষণা করেন ট্রাম্প। এই নিয়োগের ফলে ব্যারেট প্রয়াত বিচারপতি রুথ বেইডার গিন্সবার্গের উত্তরসূরি হবেন। ৮৭ বছর বয়সে মারা যান রুথ বেইডার।

হোয়াইট হাউসের রোজ গার্ডেনে এ ঘোষণার সময় ট্রাম্পের পাশে ছিলেন রক্ষণশীল ব্যারেট। এ সময় তাকে অসামান্য কৃতিত্বের নারী হিসেবে বর্ণনা করেন ট্রাম্প।

ব্যারেটের প্রশংসা করে ট্রাম্প বলেন, তিনি সংবিধানের প্রতি নিরপেক্ষভাবে আনুগত্যশীল। তিনি খ্যাতিমান বিদ্বান বিচারপতি।
বিবিসির প্রতিবেদন বলছে, ৩ নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে এই মনোনয়ন নিশ্চিত করা নিয়ে সিনেটে রিপাবলিকান ও ডেমোক্র্যাট শিবিরে তিক্ত লড়াইড়ের আভাস পাওয়া যাচ্ছে। 

সুপ্রিম কোর্টে ট্রাম্পের বিচারপতি নিয়োগ নিয়ে ইতিমধ্যে মার্কিন রাজনীতি উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে।

ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রার্থী জো বাইডেন আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ও কংগ্রেস নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত এ নিয়োগ অনুমোদন না করার আহ্বান জানিয়েছেন।
আনুষ্ঠানিক ঘোষণার আগেই যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যমে খবর বের হয় যে, ট্রাম্পের সেরা পছন্দ ৪৮ বছর বয়সী বিচারক ব্যারেট। তাই ট্রাম্প সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি হিসেবে ব্যারেটকেই মনোনীত করতে যাচ্ছেন।

এর আগে শনিবার নাম ঘোষণার আগে ট্রাম্প বলেছিলেন, তিনি সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন। ব্যারেট অসাধারণ।

তখন যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম সন্দেহ প্রকাশ করে বলে, বারবার সিদ্ধান্ত পরিবর্তনকারী ট্রাম্প আনুষ্ঠানিক ঘোষণার আগে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে ফেলতে পারেন। কিন্তু শেষমেশ ট্রাম্প সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি হিসেবে ব্যারেটকেই মনোনীত করলেন তিনি।

ব্যারেট নটর ডেম ইউনিভার্সিটি থেকে আইনে স্নাতক ও শিকাগোর ফেডারেল আপিল আদালতের বিচারক ছিলেন। তিনি গর্ভপাতের ঘোর বিরোধী। তিনি একজন রক্ষণশীল ক্যাথলিক।

মার্কিন শাসনতন্ত্রের অন্যতম রক্ষাকবচ সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি নিয়োগের বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা আমৃত্যু দায়িত্ব পালন করতে পারেন। 

সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি নয়জন। গিন্সবার্গের মৃত্যুতে ওই আদালতে নিজেদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাকাপোক্ত করার চেষ্টায় রিপাবলিকানরা। 

গিন্সবার্গের জায়গায় রক্ষণশীল কোনি ব্যারেট নিয়োগ পাওয়ায় সেখানে রক্ষণশীল বনাম উদারপন্থী বিচারপতির সংখ্যা গিয়ে দাঁড়ালো ৬-৩ এ।