জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে আর কোনো স্থায়ী সদস্য চায় না পাকিস্তান
jugantor
জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে আর কোনো স্থায়ী সদস্য চায় না পাকিস্তান

  অনলাইন ডেস্ক  

২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৪৮:২৯  |  অনলাইন সংস্করণ

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে নতুন কোনো স্থায়ী সদস্য গ্রহণের বিরোধিতা করেছে পাকিস্তান। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তার দেশের জন্য নিরাপত্তা পরিষদে স্থায়ী সদস্যপদ লাভের আগ্রহ প্রকাশ করার পর ইসলামাবাদ এ বিরোধিতার কথা জানাল।

জাতিসংঘে নিযুক্ত পাকিস্তানের স্থায়ী প্রতিনিধি মনির আকরাম বলেছেন, তার দেশ এই বিশ্ব সংস্থায় সংস্কার আনার বিষয়টিকে সমর্থন করলেও স্থায়ী সদস্যপদ বাড়ানোর বিরোধী। খবর দ্য ডনের।

এর পরিবর্তে পাকিস্তান নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্যপদ ১০ থেকে বাড়িয়ে ২০টি করার আহ্বান জানাচ্ছে।

তিনি বলেন, জাতিসংঘের ১৯৩ সদস্য দেশের মধ্যে নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী পদগুলো যাতে সমভাবে বণ্টন করার যায়, সে জন্য এসব পদের সংখ্যা বাড়ানো প্রয়োজন।

মনির আকরাম রোববার গণমাধ্যমে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্য দেশের সংখ্যা বাড়ালে এশিয়া, আফ্রিকা ও লাতিন আমেরিকার ছোট-বড় সব দেশ জাতিসংঘের সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় ভূমিকা রাখতে পারবে।

জাতিসংঘে নিযুক্ত পাকিস্তানের স্থায়ী প্রতিনিধি সবশেষে কোনো রাখঢাক না রেখেই বলেন, ইসলামাবাদ প্রকৃতপক্ষে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে ভারতের স্থায়ী সদস্যপদ লাভের বিরোধী।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি গত সপ্তাহে এক বক্তব্যে বলেছিলেন, জাতিসংঘের স্থায়ী সদস্যপদ পাওয়ার চেষ্টাকে তার দেশ সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়েছে।

তবে ভারতের শত্রুভাবাপন্ন দেশ পাকিস্তানের পক্ষে এ বিষয়টি মেনে নেয়া সম্ভব নয় বলে পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন।

পাকিস্তানের দাবি, জাতিসংঘে ভেটো দেয়ার ক্ষমতার অধিকারী ৫ দেশের মধ্যে চীন অবশ্যই ভারতের এ প্রস্তাবে ভেটো দেবে। ভেটো দেয়ার অধিকারী অন্য দেশগুলো হচ্ছে- যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, রাশিয়া ও ফ্রান্স।

ভারত ছাড়াও জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে স্থায়ী হতে চায় ব্রাজিল, জার্মানি ও জাপান। গত বুধবার জাতিসংঘের সংস্কারের দাবি জানিয়েছে ব্রাজিল ও দক্ষিণ আফ্রিকা।

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে আর কোনো স্থায়ী সদস্য চায় না পাকিস্তান

 অনলাইন ডেস্ক 
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৪৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে নতুন কোনো স্থায়ী সদস্য গ্রহণের বিরোধিতা করেছে পাকিস্তান। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তার দেশের জন্য নিরাপত্তা পরিষদে স্থায়ী সদস্যপদ লাভের আগ্রহ প্রকাশ করার পর ইসলামাবাদ এ বিরোধিতার কথা জানাল।

জাতিসংঘে নিযুক্ত পাকিস্তানের স্থায়ী প্রতিনিধি মনির আকরাম বলেছেন, তার দেশ এই বিশ্ব সংস্থায় সংস্কার আনার বিষয়টিকে সমর্থন করলেও স্থায়ী সদস্যপদ বাড়ানোর বিরোধী। খবর দ্য ডনের।

এর পরিবর্তে পাকিস্তান নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্যপদ ১০ থেকে বাড়িয়ে ২০টি করার আহ্বান জানাচ্ছে।

তিনি বলেন, জাতিসংঘের ১৯৩ সদস্য দেশের মধ্যে নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী পদগুলো যাতে সমভাবে বণ্টন করার যায়, সে জন্য এসব পদের সংখ্যা বাড়ানো প্রয়োজন।

মনির আকরাম রোববার গণমাধ্যমে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্য দেশের সংখ্যা বাড়ালে এশিয়া, আফ্রিকা ও লাতিন আমেরিকার ছোট-বড় সব দেশ জাতিসংঘের সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় ভূমিকা রাখতে পারবে।  

জাতিসংঘে নিযুক্ত পাকিস্তানের স্থায়ী প্রতিনিধি সবশেষে কোনো রাখঢাক না রেখেই বলেন, ইসলামাবাদ প্রকৃতপক্ষে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে ভারতের স্থায়ী সদস্যপদ লাভের বিরোধী।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি গত সপ্তাহে এক বক্তব্যে বলেছিলেন, জাতিসংঘের স্থায়ী সদস্যপদ পাওয়ার চেষ্টাকে তার দেশ সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়েছে।

তবে ভারতের শত্রুভাবাপন্ন দেশ পাকিস্তানের পক্ষে এ বিষয়টি মেনে নেয়া সম্ভব নয় বলে পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন।

পাকিস্তানের দাবি, জাতিসংঘে ভেটো দেয়ার ক্ষমতার অধিকারী ৫ দেশের মধ্যে চীন অবশ্যই ভারতের এ প্রস্তাবে ভেটো দেবে। ভেটো দেয়ার অধিকারী অন্য দেশগুলো হচ্ছে- যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, রাশিয়া ও ফ্রান্স।

ভারত ছাড়াও জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে স্থায়ী হতে চায় ব্রাজিল, জার্মানি ও জাপান। গত বুধবার জাতিসংঘের সংস্কারের দাবি জানিয়েছে ব্রাজিল ও দক্ষিণ আফ্রিকা।