পশ্চিমবঙ্গে ‘চার বাংলাদেশি ভাড়াটে খুনি’ গ্রেফতারের দাবি
jugantor
পশ্চিমবঙ্গে ‘চার বাংলাদেশি ভাড়াটে খুনি’ গ্রেফতারের দাবি

  অনলাইন ডেস্ক  

২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৮:০৪:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

চার বাংলাদেশি গ্রেফতার

পশ্চিমবঙ্গের শান্তিনিকেতনে চার বাংলাদেশিকে ভাড়াটে খুনি গ্রেফতারের দাবি করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে আগ্নেয়াস্ত্র ও বিস্ফোরক উদ্ধার করার দাবি করেছে বীরভূম জেলা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতদের আত্মগোপনে সাহায্য এবং খুনের পরিকল্পনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে স্থানীয় দুই ব্যক্তিকেও গ্রেফতার করা হয়েছে।

সোমবার পুলিশ সূত্রের বরাতে কলকাতার সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা দাবি করছে, বীরভূম জেলার এক নেতাকে হত্যার পরিকল্পনা ছিল গ্রেফতারকৃতদের।

সংবাদ মাধ্যমটির খবরে বলা হয়, গোপন সূত্রে খবর পেয়ে বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি শুরু করে জেলা পুলিশ। অবশেষে শান্তিনিকেতনের একটি বাড়ি থেকে ওই চারজনকে গ্রেফতার করা হয়। শান্তিনিকেতন ছাড়াও নানুর এবং লাভপুরজুড়ে আরও কয়েকজনের খোঁজে তল্লাশি শুরু হয়েছে। তদন্তভার যেতে পারে রাজ্য এসটিএফ-এর হাতে।

খবরে বলা হয়েছে, ধারণা করা হচ্ছে, স্থানীয় কয়েকজনের সাহায্য বাংলাদেশি চার দুষ্কৃতকারী কয়েক দিন আগে পশ্চিমবঙ্গে যায়। পরে বীরভূমের শান্তিনিকেতনে গাঢাকা দিয়েছিল। বড় ধরনের হামলা চালানোর পরিকল্পনা ছিল বলে মনে করা হচ্ছে।

পুলিশ সূত্র জানায়, মেদিনীপুর কারাগারে এক বন্দি নেতা স্থানীয় একজনকে হত্যার জন্য তাদের ভাড়া করেছে বলে প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে। এ ঘটনায় আরও কোনও বড় নাম উঠে আসতে পারে।

পুলিশ সূত্র আরও জানিয়েছে, আপাতত গ্রেফতারকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে জানার চেষ্টা চলছে কীভাবে ও কাদের মদতে ওই চার বাংলাদেশি পশ্চিমবঙ্গে প্রবেশ করেছে এবং কীভাবে তারা এত অস্ত্রশস্ত্র এবং বিস্ফোরক পেয়েছে। এদের সঙ্গে কোনো জঙ্গিযোগ আছে কিনা, তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

যদিও তদন্তের স্বার্থে এ বিষয়ে জেলা পুলিশের তরফে এখনই স্পষ্ট করে কিছু জানানো হয়নি বলে আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গে ‘চার বাংলাদেশি ভাড়াটে খুনি’ গ্রেফতারের দাবি

 অনলাইন ডেস্ক 
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬:০৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
চার বাংলাদেশি গ্রেফতার
প্রতীকী ছবি

পশ্চিমবঙ্গের শান্তিনিকেতনে চার বাংলাদেশিকে ভাড়াটে খুনি গ্রেফতারের দাবি করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে আগ্নেয়াস্ত্র ও বিস্ফোরক উদ্ধার করার দাবি করেছে বীরভূম জেলা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতদের আত্মগোপনে সাহায্য এবং খুনের পরিকল্পনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে স্থানীয় দুই ব্যক্তিকেও গ্রেফতার করা হয়েছে। 

সোমবার পুলিশ সূত্রের বরাতে কলকাতার সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা দাবি করছে, বীরভূম জেলার এক নেতাকে হত্যার পরিকল্পনা ছিল গ্রেফতারকৃতদের।

সংবাদ মাধ্যমটির খবরে বলা হয়, গোপন সূত্রে খবর পেয়ে বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি শুরু করে জেলা পুলিশ। অবশেষে শান্তিনিকেতনের একটি বাড়ি থেকে ওই চারজনকে গ্রেফতার করা হয়। শান্তিনিকেতন ছাড়াও নানুর এবং লাভপুরজুড়ে আরও কয়েকজনের খোঁজে তল্লাশি শুরু হয়েছে। তদন্তভার যেতে পারে রাজ্য এসটিএফ-এর হাতে।

খবরে বলা হয়েছে, ধারণা করা হচ্ছে, স্থানীয় কয়েকজনের সাহায্য বাংলাদেশি চার দুষ্কৃতকারী কয়েক দিন আগে পশ্চিমবঙ্গে যায়। পরে বীরভূমের শান্তিনিকেতনে গাঢাকা দিয়েছিল। বড় ধরনের হামলা চালানোর পরিকল্পনা ছিল বলে মনে করা হচ্ছে।

পুলিশ সূত্র জানায়, মেদিনীপুর কারাগারে এক বন্দি নেতা স্থানীয় একজনকে হত্যার জন্য তাদের ভাড়া করেছে বলে প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে। এ ঘটনায় আরও কোনও বড় নাম উঠে আসতে পারে।

পুলিশ সূত্র আরও জানিয়েছে, আপাতত গ্রেফতারকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে জানার চেষ্টা চলছে কীভাবে ও কাদের মদতে ওই চার বাংলাদেশি পশ্চিমবঙ্গে প্রবেশ করেছে এবং কীভাবে তারা এত অস্ত্রশস্ত্র এবং বিস্ফোরক পেয়েছে। এদের সঙ্গে কোনো জঙ্গিযোগ আছে কিনা, তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

যদিও তদন্তের স্বার্থে এ বিষয়ে জেলা পুলিশের তরফে এখনই স্পষ্ট করে কিছু জানানো হয়নি বলে আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।