করোনায় ১০ লাখ মৃত্যুর অর্ধেকই তিন দেশে
jugantor
করোনায় ১০ লাখ মৃত্যুর অর্ধেকই তিন দেশে

  অনলাইন ডেস্ক  

২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:০৫:৪৩  |  অনলাইন সংস্করণ

কোভিড-১৯ এ বিশ্বজুড়ে মৃত্যু ১০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। মোট মৃত্যুর প্রায় অর্ধেকই ঘটেছে তিনটি দেশ, যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল ও ভারতে।

জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, মঙ্গলবার বাংলাদেশের স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৮টা নাগাদ করোনা মহামারীতে মৃত্যু ১০ লাখ ৮২৫ জনে দাঁড়িয়েছে।

প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে শুধু যুক্তরাষ্ট্রেই মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ৫ হাজার ৬২ জনের। এরপরে থাকা ব্রাজিলে মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৪২ হাজার ৫৮ জনের এবং তৃতীয় স্থানে থাকা ভারতে মৃতের সংখ্যা ৯৫ হাজার ৫৪২ জনে দাঁড়িয়েছে।

বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ এ মোট মৃত্যুর প্রায় ৪৫ শতাংশ ঘটেছে এই তিনটি দেশে আর তিন ভাগের একভাগ ঘটেছে লাতিন আমেরিকায়।

সেপ্টেম্বরের এ পর্যন্ত গড় মৃত্যুর ওপর ভিত্তি করে করা বার্তা সংস্থা রয়টার্সের হিসাব অনুযায়ী, প্রতি ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে ৫ হাজার ৪০০ জনেরও বেশি লোকের মৃত্যু হচ্ছে।

এই হিসাবে প্রতি ঘণ্টায় প্রায় ২২৬ জনের এবং প্রতি ১৬ সেকেন্ডে একজনের মৃত্যু হচ্ছে। ৯০ মিনিটের একটি ফুটবল ম্যাচ দেখার মধ্যেই গড়ে ৩৪০ জনের মৃত্যু হচ্ছে।

বিবিসি জানিয়েছে, প্রকৃত মৃত্যুর সংখ্যা সম্ভবত আরও অনেক বেশি বলে সতর্ক করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

এদিকে শীত মৌসুম আসতেই উত্তর গোলার্ধে বিশেষ করে ইউরোপের দেশগুলোতে করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ (সেকেন্ড ওয়েভ) শুরু হয়েছে। সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে রাখতে লকডাউনসহ বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে দেশগুলো।

গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের ঘোষণা আসে। ১৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনায় মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।

সোমবারের স্বাস্থ্য অধিদফতরের দেয়া সংবাদ বিজ্ঞপ্তির তথ্যানুযায়ী, এখন পর্যন্ত দেশে ৩ লাখ ৬০ হাজার ৫৫৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আর দেশে করোনায় মোট মৃত মানুষের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ১৯৩।

করোনায় ১০ লাখ মৃত্যুর অর্ধেকই তিন দেশে

 অনলাইন ডেস্ক 
২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:০৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কোভিড-১৯ এ বিশ্বজুড়ে মৃত্যু ১০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। মোট মৃত্যুর প্রায় অর্ধেকই ঘটেছে তিনটি দেশ, যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল ও ভারতে।

জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, মঙ্গলবার বাংলাদেশের স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৮টা নাগাদ করোনা মহামারীতে মৃত্যু ১০ লাখ ৮২৫ জনে দাঁড়িয়েছে। 

প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে শুধু যুক্তরাষ্ট্রেই মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ৫ হাজার ৬২ জনের। এরপরে থাকা ব্রাজিলে মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৪২ হাজার ৫৮ জনের এবং তৃতীয় স্থানে থাকা ভারতে মৃতের সংখ্যা ৯৫ হাজার ৫৪২ জনে দাঁড়িয়েছে।

বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ এ মোট মৃত্যুর প্রায় ৪৫ শতাংশ ঘটেছে এই তিনটি দেশে আর তিন ভাগের একভাগ ঘটেছে লাতিন আমেরিকায়।

সেপ্টেম্বরের এ পর্যন্ত গড় মৃত্যুর ওপর ভিত্তি করে করা বার্তা সংস্থা রয়টার্সের হিসাব অনুযায়ী, প্রতি ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে ৫ হাজার ৪০০ জনেরও বেশি লোকের মৃত্যু হচ্ছে। 

এই হিসাবে প্রতি ঘণ্টায় প্রায় ২২৬ জনের এবং প্রতি ১৬ সেকেন্ডে একজনের মৃত্যু হচ্ছে। ৯০ মিনিটের একটি ফুটবল ম্যাচ দেখার মধ্যেই গড়ে ৩৪০ জনের মৃত্যু হচ্ছে।

বিবিসি জানিয়েছে, প্রকৃত মৃত্যুর সংখ্যা সম্ভবত আরও অনেক বেশি বলে সতর্ক করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

এদিকে শীত মৌসুম আসতেই উত্তর গোলার্ধে বিশেষ করে ইউরোপের দেশগুলোতে করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ (সেকেন্ড ওয়েভ) শুরু হয়েছে। সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে রাখতে লকডাউনসহ বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে দেশগুলো।

গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের ঘোষণা আসে। ১৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনায় মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।

সোমবারের স্বাস্থ্য অধিদফতরের দেয়া সংবাদ বিজ্ঞপ্তির তথ্যানুযায়ী, এখন পর্যন্ত দেশে ৩ লাখ ৬০ হাজার ৫৫৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আর দেশে করোনায় মোট মৃত মানুষের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ১৯৩।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস