বাকু-ইয়েরেভান সংঘাত: বিতর্কিত অঞ্চলে পদক্ষেপের বিষয়ে ভাবছে রাশিয়া
jugantor
বাকু-ইয়েরেভান সংঘাত: বিতর্কিত অঞ্চলে পদক্ষেপের বিষয়ে ভাবছে রাশিয়া

  অনলাইন ডেস্ক  

২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২১:৫৫:২৮  |  অনলাইন সংস্করণ

আর্মেনিয়া-আজারবাইজান সংঘাত

বিতর্কিত নাগরনো ও কারাবাখ অঞ্চল নিয়ে রোববার থেকে সংঘাতে জড়িয়েছে আর্মেনিয়া ও আজারবাইজান। দুই দেশের সংঘাতে অনন্ত শতাধিক নিহত হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে নাগরনো ও কারাবাখ অঞ্চলের ঘটনা গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে রাশিয়া।

মঙ্গলবার ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেন, রাশিয়া ভবিষ্যতে বিতর্কিত অঞ্চলে কী পদক্ষেপ নেবে তা নির্ধারণ করতে নাগরানো-কারাবাখ অঞ্চলের ঘটনাগুলো নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছে।

মস্কোতে সাংবাদিকদের পেসকভ বলেন, ইস্যুটি নিয়ে বিভিন্ন স্তরে মস্কো ইয়েরেভান, বাকু এবং আঙ্কারার সঙ্গে নিরবিচ্ছিন্ন যোগাযোগে রাখছে।

পেসকভ বলেন, আমরা সীমান্তে কন্ট্রাক লাইনে কী ঘটছে, সে সম্পর্কে সব তথ্য সংগ্রহ করছি, সব সংবাদ পর্যবেক্ষণ করছি; পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করে আমাদের ইউরোপের নিরাপত্তা ও সহযোগী অংশীদারদেরসহ নিজেদের ভবিষ্যত অবস্থান সর্ম্পকে পদক্ষেপ গ্রহণ করব।

এ সময় তিনি সব দেশ বিশেষ করে অংশীদার দেশ তুরস্কসহ যুদ্ধরত পক্ষগুলোকে চাপ প্রয়োগ করে যুদ্ধবিরতি ও শান্তিপূর্ণ মীমাংসার আহ্বান জানান। এ সংঘাতকে রাজনৈতিক ও কূটনৈতিকভাবে সমাধানেরও আহ্বান জানান।

একসময় আর্মেনিয়া ও আজারবাইজান– উভয় দেশই সোভিয়েত ইউনিয়নের অংশ ছিল। ১৯৯১ সালে সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙে যাওয়ার পর দেশ দুটি স্বাধীন হয়। তার পর থেকে নাগোরনো-কারাবাখ অঞ্চল নিয়ে গত চার দশক ধরে বিরোধে জড়িয়ে আছে দুই প্রতিবেশী।

রোববার বিতর্কিত নাগরনো-কারাবাখ অঞ্চল নিয়ে প্রতিবেশী দেশ আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে নতুন করে লড়াই শুরু হয়েছে। এই সংঘাতের জন্য একে অপরকে দায়ী করছে।

দুই দেশের মধ্যে তৃতীয় দিনের মতো চলা সংঘাতে অনন্ত ১০০ জন নিহত হয়েছেন।

বাকু-ইয়েরেভান সংঘাত: বিতর্কিত অঞ্চলে পদক্ষেপের বিষয়ে ভাবছে রাশিয়া

 অনলাইন ডেস্ক 
২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৫৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আর্মেনিয়া-আজারবাইজান সংঘাত
আর্মেনিয়া-আজারবাইজান সংঘাত। ছবি: সংগৃহীত

বিতর্কিত নাগরনো ও কারাবাখ অঞ্চল নিয়ে রোববার থেকে সংঘাতে জড়িয়েছে আর্মেনিয়া ও আজারবাইজান। দুই দেশের সংঘাতে অনন্ত শতাধিক নিহত হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে নাগরনো ও কারাবাখ অঞ্চলের ঘটনা গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে রাশিয়া। 

মঙ্গলবার ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেন, রাশিয়া ভবিষ্যতে বিতর্কিত অঞ্চলে কী পদক্ষেপ নেবে তা নির্ধারণ করতে নাগরানো-কারাবাখ অঞ্চলের ঘটনাগুলো নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছে। 

মস্কোতে সাংবাদিকদের পেসকভ বলেন, ইস্যুটি নিয়ে বিভিন্ন স্তরে মস্কো ইয়েরেভান, বাকু এবং আঙ্কারার সঙ্গে নিরবিচ্ছিন্ন যোগাযোগে রাখছে।  

পেসকভ বলেন, আমরা সীমান্তে কন্ট্রাক লাইনে কী ঘটছে, সে সম্পর্কে সব তথ্য সংগ্রহ করছি, সব সংবাদ পর্যবেক্ষণ করছি; পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করে আমাদের ইউরোপের নিরাপত্তা ও সহযোগী অংশীদারদেরসহ নিজেদের ভবিষ্যত অবস্থান সর্ম্পকে পদক্ষেপ গ্রহণ করব।

এ সময় তিনি সব দেশ বিশেষ করে অংশীদার দেশ তুরস্কসহ যুদ্ধরত পক্ষগুলোকে চাপ প্রয়োগ করে যুদ্ধবিরতি ও শান্তিপূর্ণ মীমাংসার আহ্বান জানান। এ সংঘাতকে রাজনৈতিক ও কূটনৈতিকভাবে সমাধানেরও আহ্বান জানান।

একসময় আর্মেনিয়া ও আজারবাইজান– উভয় দেশই সোভিয়েত ইউনিয়নের অংশ ছিল। ১৯৯১ সালে সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙে যাওয়ার পর দেশ দুটি স্বাধীন হয়। তার পর থেকে নাগোরনো-কারাবাখ অঞ্চল নিয়ে গত চার দশক ধরে বিরোধে জড়িয়ে আছে দুই প্রতিবেশী।

রোববার বিতর্কিত নাগরনো-কারাবাখ অঞ্চল নিয়ে প্রতিবেশী দেশ আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে নতুন করে লড়াই শুরু হয়েছে। এই সংঘাতের জন্য একে অপরকে দায়ী করছে।

দুই দেশের মধ্যে তৃতীয় দিনের মতো চলা সংঘাতে অনন্ত ১০০ জন নিহত হয়েছেন। 

 

ঘটনাপ্রবাহ : আর্মেনিয়া-আজারবাইজান সংঘাত