‘ট্রাম্পের টার্গেটে এক শতাংশ চীনা শিক্ষার্থী’
jugantor
‘ট্রাম্পের টার্গেটে এক শতাংশ চীনা শিক্ষার্থী’

  অনলাইন ডেস্ক  

০১ অক্টোবর ২০২০, ১১:৪৭:১৪  |  অনলাইন সংস্করণ

‘ট্রাম্পের টার্গেটে এক শতাংশ চীনা শিক্ষার্থী’

যুক্তরাষ্ট্রে চার লাখের মতো চায়না শিক্ষার্থীর মধ্যে এক শতাংশকে লক্ষ্যবস্তু বানিয়েছে ওয়াশিংটন। হোয়াইট হাউসের এক শীর্ষ কর্মকর্তা বুধবার বলেন, মার্কিন প্রযুক্তি ও অন্যান্য তথ্য হাতিয়ে নিতে চীনাদের চেষ্টার প্রেক্ষাপটে এমন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে এমন তথ্য মিলেছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের চীন নীতি বাস্তবায়নে সামনের সারিতে থেকে কাজ করছেন হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ক ডেপুটি উপদেষ্টা ম্যাট পটিংগার।

তিনি বলেন, বড় সংখ্যক চীনা শিক্ষার্থীকে স্বাগত জানানো হচ্ছে।

রোন্যাল্ড রিগ্যান ইনস্টিটিউট আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে পটিংগার আরও বলেন, এটা এক ধরনের অস্ত্রোপচারের মতো।

যাদের নিরাপত্তার ক্ষেত্রে ঝুঁকিপূর্ণ বলে বিবেচনা করা হচ্ছে, সেই সব চীনা শিক্ষার্থীর ভিসা প্রত্যাখ্যান করা হচ্ছে। তাদের ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্র এখন এমন নীতিই গ্রহণ করেছে।

তিনি বলেন, বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থীর মধ্যে কেবল এক শতাংশকে লক্ষ্যবস্তু বানিয়ে পদক্ষেপ নিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। সামরিক-সংশ্লিষ্ট চীনা গবেষক, যারা কোনো কোনো ক্ষেত্রে ভুয়া পরিচয় ও প্রতারণার মাধ্যমে এখানে এসেছেন তারাও মার্কিন টার্গেটে।

এছাড়া যারা চীনা সামরিক উন্নয়নে কাজে লাগে এমন কিংবা জনগণের ওপর নিপীড়ন চালাতে মার্কিন প্রযুক্তির নাগাল পেতে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করেছেন; তাদেরও লক্ষ্যবস্তু বানিয়েছেন ট্রাম্প।

চীনা শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে এমন এক সময় পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে ট্রাম্প প্রশাসন, যখন দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক সব থেকে বেশি তলানিতে রয়েছে।

‘ট্রাম্পের টার্গেটে এক শতাংশ চীনা শিক্ষার্থী’

 অনলাইন ডেস্ক 
০১ অক্টোবর ২০২০, ১১:৪৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
‘ট্রাম্পের টার্গেটে এক শতাংশ চীনা শিক্ষার্থী’
ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রে চার লাখের মতো চায়না শিক্ষার্থীর মধ্যে এক শতাংশকে লক্ষ্যবস্তু বানিয়েছে ওয়াশিংটন। হোয়াইট হাউসের এক শীর্ষ কর্মকর্তা বুধবার বলেন, মার্কিন প্রযুক্তি ও অন্যান্য তথ্য হাতিয়ে নিতে চীনাদের চেষ্টার প্রেক্ষাপটে এমন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে এমন তথ্য মিলেছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের চীন নীতি বাস্তবায়নে সামনের সারিতে থেকে কাজ করছেন হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ক ডেপুটি উপদেষ্টা ম্যাট পটিংগার।

তিনি বলেন, বড় সংখ্যক চীনা শিক্ষার্থীকে স্বাগত জানানো হচ্ছে।

রোন্যাল্ড রিগ্যান ইনস্টিটিউট আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে পটিংগার আরও বলেন, এটা এক ধরনের অস্ত্রোপচারের মতো। 

যাদের নিরাপত্তার ক্ষেত্রে ঝুঁকিপূর্ণ বলে বিবেচনা করা হচ্ছে, সেই সব চীনা শিক্ষার্থীর ভিসা প্রত্যাখ্যান করা হচ্ছে। তাদের ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্র এখন এমন নীতিই গ্রহণ করেছে।

তিনি বলেন, বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থীর মধ্যে কেবল এক শতাংশকে লক্ষ্যবস্তু বানিয়ে পদক্ষেপ নিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। সামরিক-সংশ্লিষ্ট চীনা গবেষক, যারা কোনো কোনো ক্ষেত্রে ভুয়া পরিচয় ও প্রতারণার মাধ্যমে এখানে এসেছেন তারাও মার্কিন টার্গেটে।

এছাড়া যারা চীনা সামরিক উন্নয়নে কাজে লাগে এমন কিংবা জনগণের ওপর নিপীড়ন চালাতে মার্কিন প্রযুক্তির নাগাল পেতে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করেছেন; তাদেরও লক্ষ্যবস্তু বানিয়েছেন ট্রাম্প।

চীনা শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে এমন এক সময় পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে ট্রাম্প প্রশাসন, যখন দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক সব থেকে বেশি তলানিতে রয়েছে। 

 
আরও খবর