জাপানে এক সিরিয়াল কিলারের মৃত্যুদণ্ড
jugantor
বাড়িতে ডেকে ৯ জনকে হত্যা
জাপানে এক সিরিয়াল কিলারের মৃত্যুদণ্ড

  অনলাইন ডেস্ক  

০১ অক্টোবর ২০২০, ১৪:৩৩:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারের মাধ্যম বাড়িতে ডেকে এনে একে একে ৯ জনকে ঠাণ্ডা মাথায় খুন করার দায়ে তাকাহিরো শিরাইশি নামে জাপানি এক সিরিয়াল কিলারের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন দেশটির একটি আদালত।

তাকাহিরোর ফ্ল্যাট থেকে নিখোঁজ কয়েকজনের মরদেহ উদ্ধারের পর ২০১৭ সালে তাকে গ্রেফতার করা হয়। খবর এনএইচকে ও বিবিসির।

পরে একে একে ৯ জনকে হত্যার কথা স্বীকার করে ওই সিরিয়াল কিলার। এদের মধ্যে ৮ নারী ও একজন পুরুষ।

তার খুন করার ঢাল ছিল সম্পূর্ণ ভিন্ন। টুইটারে তিনি অবসাদগ্রস্তদের খুঁজে বের করতেন। এর পর তাদের তিনি আত্মহত্যার প্ররোচণা দিয়ে নিজের ফ্ল্যাটে এনে খুন করতেন।

এ কারণে তাকাহিরো শিরাইশি জাপানে 'টুইটার কিলার' নামে পরিচিতি পান।

আদালতে তিনি হত্যার দায় স্বীকার করে বলেন, মানসিক অবসাদে ভুগছেন- এমন লোকজনকে তিনি একসঙ্গে বসে আত্মহত্যা করার কথা বলে আনতেন।

উল্লেখ্য, জাপানিদের মধ্যে আত্মহত্যার প্রবণতা বিশ্বে সবচেয়ে বেশি।

স্থানীয় সময় বুধবার টোকিওর একটি আদালত তাকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের রায় ঘোষণা করেন।

বাড়িতে ডেকে ৯ জনকে হত্যা

জাপানে এক সিরিয়াল কিলারের মৃত্যুদণ্ড

 অনলাইন ডেস্ক 
০১ অক্টোবর ২০২০, ০২:৩৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারের মাধ্যম বাড়িতে ডেকে এনে একে একে ৯ জনকে ঠাণ্ডা মাথায় খুন করার দায়ে তাকাহিরো শিরাইশি নামে জাপানি এক সিরিয়াল কিলারের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন দেশটির একটি আদালত।

তাকাহিরোর ফ্ল্যাট থেকে নিখোঁজ কয়েকজনের মরদেহ উদ্ধারের পর ২০১৭ সালে তাকে গ্রেফতার করা হয়। খবর এনএইচকে ও বিবিসির।

পরে একে একে ৯ জনকে হত্যার কথা স্বীকার করে ওই সিরিয়াল কিলার। এদের মধ্যে ৮ নারী ও একজন পুরুষ।

তার খুন করার ঢাল ছিল সম্পূর্ণ ভিন্ন। টুইটারে তিনি অবসাদগ্রস্তদের খুঁজে বের করতেন। এর পর তাদের তিনি আত্মহত্যার প্ররোচণা দিয়ে নিজের ফ্ল্যাটে এনে খুন করতেন।

এ কারণে তাকাহিরো শিরাইশি জাপানে 'টুইটার কিলার' নামে পরিচিতি পান।

আদালতে তিনি হত্যার দায় স্বীকার করে বলেন, মানসিক অবসাদে ভুগছেন- এমন লোকজনকে তিনি একসঙ্গে বসে আত্মহত্যা করার কথা বলে আনতেন।

উল্লেখ্য, জাপানিদের মধ্যে আত্মহত্যার প্রবণতা বিশ্বে সবচেয়ে বেশি।

স্থানীয় সময় বুধবার টোকিওর একটি আদালত তাকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের রায় ঘোষণা করেন।