বাবরি মসজিদের রায় দিতেই অবসরে যাননি বিচারক
jugantor
বাবরি মসজিদের রায় দিতেই অবসরে যাননি বিচারক

  অনলাইন ডেস্ক  

০১ অক্টোবর ২০২০, ১৫:২৪:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতে ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলায় সব আসামিকে খালাস করে দিয়েছেন দেশটির একটি বিশেষ আদালত।

বুধবার স্থানীয় সময় দুপুরে লখনৌয়ের বিশেষ সিবিআই আদালতের বিচারক সুরেন্দ্র কুমার যাদব রায় এ রায় ঘোষণা করেন।

আর এ রায়ই ছিল তার কর্মজীবনের শেষ রায়। এ রায় ঘোষণার দিনই অবসরে গেলেন বিচারক সুরেন্দ্র কুমার।

ফৈজাবাদ আদালত (বর্তমানে অযোধ্যা) থেকেই অ্যাডিশনাল ডিস্ট্রিক্ট জাজ হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেছিলেন বিচারক সুরেন্দ্র কুমার যাদব। বুধবার বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলার রায় ঘোষণা দিয়েই তিনি তার কর্মজীবনে দাঁড়ি টানলেন।

যদিও ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর খবর, বুধবার নয়, বিচারক যাদবের চাকরির মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিল গত বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর। কিন্তু বাবরি মসজিদ মামলার শুনানি অসম্পূর্ণ রেখে অবসর নিতে চাননি তিনি।

৫ বছর আগে সুরেন্দ্র কুমার যাদবকে এ মামলায় স্পেশাল জাজ নিযুক্ত করা হয়। এর পর ২০১৭ সালের এপ্রিলে সুপ্রিমকোর্ট তাকে দুই বছরের মধ্যে বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলার শুনানি পর্ব শেষ করার নির্দেশ দেন।

২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে লখনৌ জেলা বিচারকের পদ থেকে অবসরগ্রহণ করেন সুরেন্দ্র কুমার যাদব। কিন্তু বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলার শুনানি শেষ করতে তার অবসর নেয়ার সময়কালের মেয়াদ বাড়িয়ে দেন সুপ্রিমকোর্ট। ফলে ডিস্ট্রিক্ট জাজ হিসেবে অবসরগ্রহণের পরও স্পেশাল জাজ হিসেবে রয়ে যান বিচারক সুরেন্দ্র কুমার যাদব।

জানা গেছে, চাকরির মেয়াদ বাড়ানোর অনুরোধ জানিয়ে সুরেন্দ্র কুমার চিঠি লিখেছিলেন সুপ্রিমকোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈকে।

তিনি আর্জি জানিয়েছিলেন, সুপ্রিমকোর্টের নির্দেশে টানা চার বছর ধরে তিনিই মামলার শুনানি করছেন। এ অবস্থায় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ মামলার রায় তিনি নিজেই দিয়ে যেতে চান।

আর সুরেন্দ্র কুমারের আবেদন মেনে নেন ভারতের শীর্ষ আদালত।

তথ্যসূত্র: জি নিউজ, ডিএনএ ইন্ডিয়া, এনডিটিভি

বাবরি মসজিদের রায় দিতেই অবসরে যাননি বিচারক

 অনলাইন ডেস্ক 
০১ অক্টোবর ২০২০, ০৩:২৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতে ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলায় সব আসামিকে খালাস করে দিয়েছেন দেশটির একটি বিশেষ আদালত।

বুধবার স্থানীয় সময় দুপুরে লখনৌয়ের বিশেষ সিবিআই আদালতের বিচারক সুরেন্দ্র কুমার যাদব রায় এ রায় ঘোষণা করেন।

আর এ রায়ই ছিল তার কর্মজীবনের শেষ রায়। এ রায় ঘোষণার দিনই অবসরে গেলেন বিচারক সুরেন্দ্র কুমার।

ফৈজাবাদ আদালত (বর্তমানে অযোধ্যা) থেকেই অ্যাডিশনাল ডিস্ট্রিক্ট জাজ হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেছিলেন বিচারক সুরেন্দ্র কুমার যাদব। বুধবার বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলার রায় ঘোষণা দিয়েই তিনি তার কর্মজীবনে দাঁড়ি টানলেন। 

যদিও ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর খবর, বুধবার নয়, বিচারক যাদবের চাকরির মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিল গত বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর। কিন্তু বাবরি মসজিদ মামলার শুনানি অসম্পূর্ণ রেখে অবসর নিতে চাননি তিনি।

৫ বছর আগে সুরেন্দ্র কুমার যাদবকে এ মামলায় স্পেশাল জাজ নিযুক্ত করা হয়। এর পর ২০১৭ সালের এপ্রিলে সুপ্রিমকোর্ট তাকে দুই বছরের মধ্যে বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলার শুনানি পর্ব শেষ করার নির্দেশ দেন।  

২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে লখনৌ জেলা বিচারকের পদ থেকে অবসরগ্রহণ করেন সুরেন্দ্র কুমার যাদব। কিন্তু বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলার শুনানি শেষ করতে তার অবসর নেয়ার সময়কালের মেয়াদ বাড়িয়ে দেন সুপ্রিমকোর্ট। ফলে ডিস্ট্রিক্ট জাজ হিসেবে অবসরগ্রহণের পরও স্পেশাল জাজ হিসেবে রয়ে যান বিচারক সুরেন্দ্র কুমার যাদব।

জানা গেছে, চাকরির মেয়াদ বাড়ানোর অনুরোধ জানিয়ে সুরেন্দ্র কুমার চিঠি লিখেছিলেন সুপ্রিমকোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈকে। 

তিনি আর্জি জানিয়েছিলেন, সুপ্রিমকোর্টের নির্দেশে টানা চার বছর ধরে তিনিই মামলার শুনানি করছেন। এ অবস্থায় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ মামলার রায় তিনি নিজেই দিয়ে যেতে চান। 

আর সুরেন্দ্র কুমারের আবেদন মেনে নেন ভারতের শীর্ষ আদালত। 

তথ্যসূত্র: জি নিউজ, ডিএনএ ইন্ডিয়া, এনডিটিভি
 

 

ঘটনাপ্রবাহ : বাবরি মসজিদ মামলার রায়