দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনায় সুস্থ ৯০ শতাংশ
jugantor
দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনায় সুস্থ ৯০ শতাংশ

  শওকত বিন আশরাফ, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে  

০১ অক্টোবর ২০২০, ২২:২৪:৫৬  |  অনলাইন সংস্করণ

দক্ষিণ আফ্রিকা সবসময়ই মহামারী মোকাবেলা করতে অভ্যস্ত একটি দেশ। যে দেশটির শুরু থেকে নানা ধরনের মহামারী সব সময়ই আঘাত হেনেছে। যক্ষ্মা, ম্যলেরিয়াসহ এইডসের মতো ভয়ঙ্কর মহামারী মোকাবেলা করে সফলতা পেয়েছে এ দেশটি।

যক্ষ্মা, ম্যালেরিয়া ছাড়াও ৭৭ লাখ এইডস আক্রান্ত রোগী নিয়ে বিশ্বে এইডস আক্রান্ত দেশের তালিকায় ১ নাম্বারে থাকা দক্ষিণ আফ্রিকা সর্বশেষ ২০১৯ সালের অক্টোবরে এইডসের ভ্যাকসিন তৈরি করে বিশ্বকে চমকে দিয়েছিলেন।

সেই দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনা আক্রান্ত হু হু করে বেড়ে গত এক মাস আগেও বিশ্বে পঞ্চম স্থানে ছিলেন।
দেশটি আধুনিক চিকিৎসাসেবা এবং সরকারের আন্তরিক মনোভাবের কারণে করোনা মহামারী মোকাবেলায় এতটা সফল হয়েছে যে, বর্তমানে দেশটিতে করোনা আক্রান্ত রোগীর সুস্থতার হার ৯০ শতাংশে পৌঁছেছে এবং বিশ্বে করোনা আক্রান্ত দেশের তালিকায় পঞ্চম স্থান থেকে দশম স্থানে নেমে এসেছে।

সুস্থতার হার বেড়ে ৯০ শতাংশে পৌঁছায় এবং নতুন শনাক্ত ও মৃত্যুর হার কমে আসায় দেশটিতে ১ অক্টোবর থেকে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট যোগাযোগ চালু হয়েছে। আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচল চালু হলেও দক্ষিণ আফ্রিকায় আসতে পারবে না বিশ্বের করোনা আক্রান্ত ৫৬টি দেশের নাগরিক।
করোনার জন্য হাই রিস্ক দেশ চিহ্নিত করে আপাতত ওই সব দেশের সঙ্গে ফ্লাইট যোগাযোগ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত বহাল রেখেছে দেশটির আন্তর্জাতিক সমর্পক মন্ত্রণালয়।
ভারতসহ যেসব দেশ দক্ষিণ আফ্রিকায় ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকছে সেগুলো হল- আলবেনিয়া, আর্জেন্টিনা, আর্মেনিয়া, অস্ট্রিয়া, বাহরাইন, বেলজিয়াম, বলিভিয়া, বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা, ব্রাজিল, চিলি, কলম্বিয়া, কোস্টারিকা, ক্রোয়েশিয়া, চেক প্রজাতন্ত্র, ডেনমার্ক, ইকুয়েডর, ফ্রান্স, জর্জিয়া, গ্রিস, গুয়াতেমালা, গিয়ানা, হন্ডুরাস, হাঙ্গেরি, আইসল্যান্ড, ইরান, ইরাক, আয়ারল্যান্ড, ইসরাইল, জ্যামাইকা, জর্দান, কুয়েত, লেবানন, লুক্সেমবার্গ, মালদ্বীপ, মাল্টা, মেক্সিকো, মোল্দাভিয়া, মন্টিনিগ্রো, নেপাল, নেদারল্যান্ডস, উত্তর ম্যাসেডোনিয়া। এছাড়াও নিষেধাজ্ঞার মধ্যে রয়েছে- ওমান, প্যালেস্টাইন, পানামা, প্যারাগুয়ে, পেরু, পর্তুগাল, পুয়ের্তো রিকো, কাতার, রোমানিয়া, রাশিয়া, স্লোভাকিয়া, সুরিনাম, সুইজারল্যান্ড, ইউক্রেন, সংযুক্ত আরব আমিরাত, যুক্তরাজ্য, আমেরিকা ও ভেনিজুয়েলা।
নিষেধাজ্ঞার তালিকায় নেই বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের নাম। তাই বাংলাদেশি নাগরিক আজ ১ অক্টোবর থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দক্ষিণ আফ্রিকা ভ্রমণ করতে পারবেন।

দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনায় সুস্থ ৯০ শতাংশ

 শওকত বিন আশরাফ, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে 
০১ অক্টোবর ২০২০, ১০:২৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দক্ষিণ আফ্রিকা সবসময়ই মহামারী মোকাবেলা করতে অভ্যস্ত একটি দেশ। যে দেশটির শুরু থেকে নানা ধরনের মহামারী সব সময়ই আঘাত হেনেছে। যক্ষ্মা, ম্যলেরিয়াসহ এইডসের মতো ভয়ঙ্কর মহামারী মোকাবেলা করে সফলতা পেয়েছে এ দেশটি।

যক্ষ্মা, ম্যালেরিয়া ছাড়াও ৭৭ লাখ এইডস আক্রান্ত রোগী নিয়ে বিশ্বে এইডস আক্রান্ত দেশের তালিকায় ১ নাম্বারে থাকা দক্ষিণ আফ্রিকা সর্বশেষ ২০১৯ সালের অক্টোবরে এইডসের ভ্যাকসিন তৈরি করে বিশ্বকে চমকে দিয়েছিলেন। 

সেই দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনা আক্রান্ত হু হু করে বেড়ে গত এক মাস আগেও বিশ্বে পঞ্চম স্থানে ছিলেন।
দেশটি আধুনিক চিকিৎসাসেবা এবং সরকারের আন্তরিক মনোভাবের কারণে করোনা মহামারী মোকাবেলায় এতটা সফল হয়েছে যে, বর্তমানে দেশটিতে করোনা আক্রান্ত রোগীর সুস্থতার হার ৯০ শতাংশে পৌঁছেছে এবং বিশ্বে করোনা আক্রান্ত দেশের তালিকায় পঞ্চম স্থান থেকে দশম স্থানে নেমে এসেছে। 

সুস্থতার হার বেড়ে ৯০ শতাংশে পৌঁছায় এবং নতুন শনাক্ত ও মৃত্যুর হার কমে আসায় দেশটিতে ১ অক্টোবর থেকে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট যোগাযোগ চালু হয়েছে। আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচল চালু হলেও দক্ষিণ আফ্রিকায় আসতে পারবে না বিশ্বের করোনা আক্রান্ত ৫৬টি দেশের নাগরিক।
করোনার জন্য হাই রিস্ক দেশ চিহ্নিত করে আপাতত ওই সব দেশের সঙ্গে ফ্লাইট যোগাযোগ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত বহাল রেখেছে দেশটির আন্তর্জাতিক সমর্পক মন্ত্রণালয়।
ভারতসহ যেসব দেশ দক্ষিণ আফ্রিকায় ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকছে সেগুলো হল- আলবেনিয়া, আর্জেন্টিনা, আর্মেনিয়া, অস্ট্রিয়া, বাহরাইন, বেলজিয়াম, বলিভিয়া, বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা, ব্রাজিল, চিলি, কলম্বিয়া, কোস্টারিকা, ক্রোয়েশিয়া, চেক প্রজাতন্ত্র, ডেনমার্ক, ইকুয়েডর, ফ্রান্স, জর্জিয়া, গ্রিস, গুয়াতেমালা, গিয়ানা, হন্ডুরাস, হাঙ্গেরি, আইসল্যান্ড, ইরান, ইরাক, আয়ারল্যান্ড, ইসরাইল, জ্যামাইকা, জর্দান, কুয়েত, লেবানন, লুক্সেমবার্গ, মালদ্বীপ, মাল্টা, মেক্সিকো, মোল্দাভিয়া, মন্টিনিগ্রো, নেপাল, নেদারল্যান্ডস, উত্তর ম্যাসেডোনিয়া। এছাড়াও নিষেধাজ্ঞার মধ্যে রয়েছে- ওমান, প্যালেস্টাইন, পানামা, প্যারাগুয়ে, পেরু, পর্তুগাল, পুয়ের্তো রিকো, কাতার, রোমানিয়া, রাশিয়া, স্লোভাকিয়া, সুরিনাম, সুইজারল্যান্ড, ইউক্রেন, সংযুক্ত আরব আমিরাত, যুক্তরাজ্য, আমেরিকা ও ভেনিজুয়েলা। 
নিষেধাজ্ঞার তালিকায় নেই বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের নাম। তাই বাংলাদেশি নাগরিক আজ  ১ অক্টোবর থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দক্ষিণ আফ্রিকা ভ্রমণ করতে পারবেন।