আমিরাতের সঙ্গে চুক্তি ইসরাইলি মন্ত্রিসভায় অনুমোদন
jugantor
আমিরাতের সঙ্গে চুক্তি ইসরাইলি মন্ত্রিসভায় অনুমোদন

  অনলাইন ডেস্ক  

১২ অক্টোবর ২০২০, ১৭:০৯:১৮  |  অনলাইন সংস্করণ

আমিরাতের সঙ্গে চুক্তি ইসরাইলি মন্ত্রিসভায় অনুমোদন

সংযুক্ত আরব আমিরাতের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার চুক্তি অনুমোদন করেছে ইসরাইলি মন্ত্রিসভা।

সোমবার বিষয়টি নিয়ে আবুধাবির যুবরাজ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহিয়ানের সঙ্গে কথা বলেছেন ইহুদিবাদী রাষ্ট্রটির প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু।

আবুধাবির যুবরাজ শিগগিরই বৈঠকে মিলিত হওয়ার বিষয়ে তার সঙ্গে একমত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন তিনি। খবর রয়টার্স ও আনাদোলু এজেন্সির।

নেতানিয়াহু জানিয়েছেন, তিনি ও যুবরাজ নাহিয়ান ‘শিগগিরই’ পরস্পরের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হবেন।

আলাদা টুইটে মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহিয়ান জানিয়েছেন, এক ফোনালাপে তিনি ও নেতানিয়াহু দ্বিপাক্ষিক মিত্রতা শক্তিশালী করার এবং ওই অঞ্চলে শান্তির সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা করেছেন।

সম্প্রতি সংযুক্ত আরব আমিরাতের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণের চুক্তি করে ইসরাইল। আর এতে মধ্যস্থতা করে ট্রাম্প প্রশাসন।

পরবর্তীতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের জামাতা ও সিনিয়র উপদেষ্টা কুশনারের মধ্যস্থতায় বাহরাইনকে এ চুক্তির আওতায় আনা হয়। পরে এসব দেশে বিমান চলাচলের জন্য সৌদি আরবের আকাশ ব্যবহারের অনুমতি পায় ইসরাইল।

যদিও এ চুক্তিতে প্রথম থেকেই আপত্তি ছিল ফিলিস্তিনসহ অন্যান্য আরব বিশ্বের। আমিরাতের এ চুক্তিকে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ আরব বিশ্বের পিঠে ছুরি মারার সঙ্গে তুলনা করেছে।

প্রথম থেকেই এ চুক্তির বিরোধিতা করে আসছে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান। গত মাসেই ফিলিস্তিনি ইস্যু নিয়ে হামাস নেতারা বৈঠক করেছেন এরদোগানের সঙ্গে। তুর্কি প্রেসিডেন্ট ফিলিস্তিন ইস্যুতে পূর্ণ সমর্থন দিয়েছেন।

আমিরাতের সঙ্গে চুক্তি ইসরাইলি মন্ত্রিসভায় অনুমোদন

 অনলাইন ডেস্ক 
১২ অক্টোবর ২০২০, ০৫:০৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আমিরাতের সঙ্গে চুক্তি ইসরাইলি মন্ত্রিসভায় অনুমোদন
ছবি: আনাদোলু এজেন্সি

সংযুক্ত আরব আমিরাতের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার চুক্তি অনুমোদন করেছে ইসরাইলি মন্ত্রিসভা।  

সোমবার বিষয়টি নিয়ে আবুধাবির যুবরাজ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহিয়ানের সঙ্গে কথা বলেছেন ইহুদিবাদী রাষ্ট্রটির প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু।

আবুধাবির যুবরাজ শিগগিরই বৈঠকে মিলিত হওয়ার বিষয়ে তার সঙ্গে একমত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।  খবর রয়টার্স ও আনাদোলু এজেন্সির।

নেতানিয়াহু জানিয়েছেন, তিনি ও যুবরাজ নাহিয়ান ‘শিগগিরই’ পরস্পরের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হবেন। 

আলাদা টুইটে মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহিয়ান জানিয়েছেন, এক ফোনালাপে তিনি ও নেতানিয়াহু দ্বিপাক্ষিক মিত্রতা শক্তিশালী করার এবং ওই অঞ্চলে শান্তির সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা করেছেন।

সম্প্রতি সংযুক্ত আরব আমিরাতের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণের চুক্তি করে ইসরাইল। আর এতে মধ্যস্থতা করে ট্রাম্প প্রশাসন। 

পরবর্তীতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের জামাতা ও সিনিয়র উপদেষ্টা কুশনারের মধ্যস্থতায় বাহরাইনকে এ চুক্তির আওতায় আনা হয়। পরে এসব দেশে বিমান চলাচলের জন্য সৌদি আরবের আকাশ ব্যবহারের অনুমতি পায় ইসরাইল।

যদিও এ চুক্তিতে প্রথম থেকেই আপত্তি ছিল ফিলিস্তিনসহ অন্যান্য আরব বিশ্বের। আমিরাতের এ চুক্তিকে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ আরব বিশ্বের পিঠে ছুরি মারার সঙ্গে তুলনা করেছে।

প্রথম থেকেই এ চুক্তির বিরোধিতা করে আসছে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান। গত মাসেই ফিলিস্তিনি ইস্যু নিয়ে হামাস নেতারা বৈঠক করেছেন এরদোগানের সঙ্গে। তুর্কি প্রেসিডেন্ট ফিলিস্তিন ইস্যুতে পূর্ণ সমর্থন দিয়েছেন।
 

 

ঘটনাপ্রবাহ : আরব আমিরাত-ইসরাইল সম্পর্ক