‘এস-৪০০’ নিয়ে তুরস্ককে আবারও হুমকি যুক্তরাষ্ট্রের
jugantor
‘এস-৪০০’ নিয়ে তুরস্ককে আবারও হুমকি যুক্তরাষ্ট্রের

  অনলাইন ডেস্ক  

১৮ অক্টোবর ২০২০, ০৯:৫৩:৫১  |  অনলাইন সংস্করণ

তুরস্ক রাশিয়ার কাছ থেকে কেনা এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্রব্যবস্থা চালু করলে আঙ্কারা-ওয়াশিংটন সম্পর্ক হুমকির মুখে পড়বে বলে জানিয়েছে মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতর-পেন্টাগন।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের হুশিয়ারির পর এবার পেন্টাগনও আঙ্কারাকে সতর্ক করল। পেন্টাগন বলেছে, এস-৪০০ চালু করার অর্থ আমেরিকার সঙ্গে তুরস্কের সম্পর্কে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা। খবর রয়টার্সের।

পেন্টাগনের দাবি, তুরস্ক এরই মধ্যে এস ৪০০-এর পরীক্ষা চালিয়েছে। যদি এ খবর সত্যি হয়ে থাকে, তা হলে মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় তার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে।

সম্প্রতি তুর্কি গণমাধ্যম খবর দেয়, দেশটি রাশিয়ার কাছ থেকে সংগ্রহ করা এস-৪০০ ব্যবস্থার কার্যকারিতা যাচাই করার জন্য শিগগিরই এটির পরীক্ষা চালাবে। এ খবর প্রকাশিত হওয়ার পর গত ৭ অক্টোবর মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় হুমকি দিয়ে বলেছিল– তুরস্ক এ কাজ করলে দেশটির বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে।

তুরস্ক হচ্ছে ন্যাটো জোটভুক্ত প্রথম দেশ, যে কিনা রাশিয়ার কাছ থেকে অত্যাধুনিক আকাশ প্রতিরক্ষাব্যবস্থা এস-৪০০ সংগ্রহ করেছে। ২০১৭ সালে এ ধরনের চারটি সমরাস্ত্র প্রতিরোধব্যবস্থা সংগ্রহের জন্য রাশিয়ার সঙ্গে ৫২০ কোটি ডলারের চুক্তি করে তুরস্ক। ২০১৯ সালের জুলাই মাসে এ ব্যবস্থা আঙ্কারাকে সরবরাহ শুরু করে মস্কো, যে প্রক্রিয়া এখনও চলছে।

মার্কিন সরকার ২০১৭ সাল থেকেই রাশিয়ার কাছ থেকে এস-৪০০ কেনার ব্যাপারে তুরস্ককে সতর্ক করে দিয়ে আসছে। কিন্তু আঙ্কারা বলেছে, দেশটি কোনো অবস্থায়ই রাশিযার সঙ্গে করা এ সংক্রান্ত চুক্তি বাতিল করবে না।

‘এস-৪০০’ নিয়ে তুরস্ককে আবারও হুমকি যুক্তরাষ্ট্রের

 অনলাইন ডেস্ক 
১৮ অক্টোবর ২০২০, ০৯:৫৩ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

তুরস্ক রাশিয়ার কাছ থেকে কেনা এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্রব্যবস্থা চালু করলে আঙ্কারা-ওয়াশিংটন সম্পর্ক হুমকির মুখে পড়বে বলে জানিয়েছে মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতর-পেন্টাগন।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের হুশিয়ারির পর এবার পেন্টাগনও আঙ্কারাকে সতর্ক করল। পেন্টাগন বলেছে, এস-৪০০ চালু করার অর্থ আমেরিকার সঙ্গে তুরস্কের সম্পর্কে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা। খবর রয়টার্সের।

 পেন্টাগনের দাবি, তুরস্ক এরই মধ্যে এস ৪০০-এর পরীক্ষা চালিয়েছে। যদি এ খবর সত্যি হয়ে থাকে, তা হলে মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় তার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে।

সম্প্রতি তুর্কি গণমাধ্যম খবর দেয়, দেশটি রাশিয়ার কাছ থেকে সংগ্রহ করা এস-৪০০ ব্যবস্থার কার্যকারিতা যাচাই করার জন্য শিগগিরই এটির পরীক্ষা চালাবে। এ খবর প্রকাশিত হওয়ার পর গত ৭ অক্টোবর মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় হুমকি দিয়ে বলেছিল– তুরস্ক এ কাজ করলে দেশটির বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে।

তুরস্ক হচ্ছে ন্যাটো জোটভুক্ত প্রথম দেশ, যে কিনা রাশিয়ার কাছ থেকে অত্যাধুনিক আকাশ প্রতিরক্ষাব্যবস্থা এস-৪০০ সংগ্রহ করেছে। ২০১৭ সালে এ ধরনের চারটি সমরাস্ত্র প্রতিরোধব্যবস্থা সংগ্রহের জন্য রাশিয়ার সঙ্গে ৫২০ কোটি ডলারের চুক্তি করে তুরস্ক। ২০১৯ সালের জুলাই মাসে এ ব্যবস্থা আঙ্কারাকে সরবরাহ শুরু করে মস্কো, যে প্রক্রিয়া এখনও চলছে।

মার্কিন সরকার ২০১৭ সাল থেকেই রাশিয়ার কাছ থেকে এস-৪০০ কেনার ব্যাপারে তুরস্ককে সতর্ক করে দিয়ে আসছে। কিন্তু আঙ্কারা বলেছে, দেশটি কোনো অবস্থায়ই রাশিযার সঙ্গে করা এ সংক্রান্ত চুক্তি বাতিল করবে না।