করোনায় পরিবারের ৮ সদস্যকে হারিয়ে পথে বসেছেন মার্কিন যুবক
jugantor
করোনায় পরিবারের ৮ সদস্যকে হারিয়ে পথে বসেছেন মার্কিন যুবক

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৯ অক্টোবর ২০২০, ১৩:০৮:১৮  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনায় পরিবারের ৮ সদস্যকে হারিয়ে পথে বসেছেন মার্কিন যুবক

কোভিড-১৯ মহামারী একে একে কেড়ে নিয়েছে পরিবারের ৮ সদস্যকে। এই ধাক্কা সামাল দেয়ার সময়ই ব্যবসায় ধাক্কা খেয়েছেন। করোনায় দেশজুড়ে অর্থনৈতিক ধসের প্রভাবে দেউলিয়া হয়ে পড়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের এ যুবক।

তার নাম রিকার্ডো আগুয়েরে। গত পাঁচ মাসে তিনি শারীরিক, মানসিক ও অর্থনৈতিক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন চরমভাবে। এখন তিনি দিশেহারা।

রিকার্ডোর স্ত্রী আবার অন্তঃসত্ত্বা। তারা তৃতীয় সন্তানের (কন্যা) অপেক্ষায় আছেন। খবর সিএনএন ও ফক্স টেনের।

রিকার্ডো জানান, একটা সময় তার পরিবারের সবাই করোনায় সংক্রমিত হন। স্ত্রী আর তিনি করোনা থেকে সেরে উঠেছেন। স্ত্রী সন্তানসম্ভবা হওয়ায় তার সঙ্গে হাসপাতালে আছেন। শারীরিকভাবে দুর্বল। মনের অবস্থা খুবই খারাপ তার।

রিকার্ডো ও তার স্ত্রী করোনাকে জয় করেন সেই মে মাসে। তার মা এবং দুই ছেলেও সেরে উঠেছেন। এর পর কাজিনদের মধ্যে মারা গেছেন সাতজন।

বাবা হোসের (৬৭) কথা স্মরণ করে রিকার্ডো বলেন, ‘তিনি অনেক ভুগেছেন। সত্যিকারের যোদ্ধা ছিলেন। যতটা পেরেছেন লড়েছেন। একসময় বলেছি, ক্লান্ত হয়ে গেলে চিন্তা করো না। ঠিক হয়ে যাবে। অবশেষে তিনি মারাই গেলেন।'

বর্তমান অবস্থার কথা বলতে গিয়ে রিকার্ডো জানান, ‘কী করব, বসে থাকতে পারি? ভেঙে পড়িনি। প্রতিদিনের কাজ চালিয়ে যাচ্ছি।

রিকার্ডো জানান, তার ক্যাটারিং ব্যবসা ছিল। কিন্তু মহামারীর সময়ে সেই ব্যবসা বন্ধ করে দিতে হয়েছে। হাতে যে টাকা ছিল তা দিয়ে মায়ের চিকিৎসায় লাখ লাখ ডলার ব্যয় করতে হয়েছে। এখন মায়ের সুস্থতায় ভালো লাগছে।

এত কিছুর পরও অনাগত মেয়ের কল্যাণে তিনি সুড়ঙ্গের শেষে আলো দেখার আশায় আছেন, ‘ও-ই আমার আধ্যাত্মিক শক্তি। সে আমাকে শক্তি জোগাচ্ছে। সুড়ঙ্গের ওই প্রান্তে আলোর রেখা।’


করোনায় পরিবারের ৮ সদস্যকে হারিয়ে পথে বসেছেন মার্কিন যুবক

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৯ অক্টোবর ২০২০, ০১:০৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
করোনায় পরিবারের ৮ সদস্যকে হারিয়ে পথে বসেছেন মার্কিন যুবক
রিকার্ডো আগুয়েরে

কোভিড-১৯ মহামারী একে একে কেড়ে নিয়েছে পরিবারের ৮ সদস্যকে।  এই ধাক্কা সামাল দেয়ার সময়ই ব্যবসায় ধাক্কা খেয়েছেন।  করোনায় দেশজুড়ে অর্থনৈতিক ধসের প্রভাবে দেউলিয়া হয়ে পড়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের এ যুবক। 

তার নাম রিকার্ডো আগুয়েরে। গত পাঁচ মাসে তিনি শারীরিক, মানসিক ও অর্থনৈতিক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন চরমভাবে। এখন তিনি দিশেহারা।

রিকার্ডোর স্ত্রী আবার অন্তঃসত্ত্বা। তারা তৃতীয় সন্তানের (কন্যা) অপেক্ষায় আছেন। খবর সিএনএন ও ফক্স টেনের।

রিকার্ডো জানান, একটা সময় তার পরিবারের সবাই করোনায় সংক্রমিত হন। স্ত্রী আর তিনি করোনা থেকে সেরে উঠেছেন। স্ত্রী সন্তানসম্ভবা হওয়ায় তার সঙ্গে হাসপাতালে আছেন। শারীরিকভাবে দুর্বল। মনের অবস্থা খুবই খারাপ তার। 

রিকার্ডো ও তার স্ত্রী করোনাকে জয় করেন সেই মে মাসে। তার মা এবং দুই ছেলেও সেরে উঠেছেন। এর পর কাজিনদের মধ্যে মারা গেছেন সাতজন।

বাবা হোসের (৬৭) কথা স্মরণ করে রিকার্ডো বলেন, ‘তিনি অনেক ভুগেছেন। সত্যিকারের যোদ্ধা ছিলেন। যতটা পেরেছেন লড়েছেন। একসময় বলেছি, ক্লান্ত হয়ে গেলে চিন্তা করো না। ঠিক হয়ে যাবে। অবশেষে তিনি মারাই গেলেন।'

বর্তমান অবস্থার কথা বলতে গিয়ে রিকার্ডো জানান, ‘কী করব, বসে থাকতে পারি? ভেঙে পড়িনি। প্রতিদিনের কাজ চালিয়ে যাচ্ছি। 

রিকার্ডো জানান, তার ক্যাটারিং ব্যবসা ছিল। কিন্তু মহামারীর সময়ে সেই ব্যবসা বন্ধ করে দিতে হয়েছে। হাতে যে টাকা ছিল তা দিয়ে মায়ের চিকিৎসায় লাখ লাখ ডলার ব্যয় করতে হয়েছে।  এখন মায়ের সুস্থতায় ভালো লাগছে।

এত কিছুর পরও অনাগত মেয়ের কল্যাণে তিনি সুড়ঙ্গের শেষে আলো দেখার আশায় আছেন, ‘ও-ই আমার আধ্যাত্মিক শক্তি। সে আমাকে শক্তি জোগাচ্ছে। সুড়ঙ্গের ওই প্রান্তে আলোর রেখা।’


 

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

আরও খবর