আফগানিস্তানের বাঘলান প্রদেশে তালেবান হামলা প্রতিহত
jugantor
আফগানিস্তানের বাঘলান প্রদেশে তালেবান হামলা প্রতিহত

  অনলাইন ডেস্ক  

২০ অক্টোবর ২০২০, ১০:২৭:১৩  |  অনলাইন সংস্করণ

আফগানিস্তানের বাঘলান প্রদেশে তালেবান হামলা প্রতিহত

আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় বাঘলান প্রদেশে প্রধান মহাসড়ক নিয়ন্ত্রণে নেয়ার চেষ্টায় তালেবান যোদ্ধারা হামলা চালালে সেনাবাহিনী তাদের প্রতিহত করেছে।

এতে সাত যোদ্ধা নিহত হয় এবং অন্যরা পালিয়ে গেছে। সোমবার সেনাবাহিনীর এক বিবৃতিতে একথা জানানো হয়। খবর সিনহুয়ার।

বিবৃতিতে বলা হয়, সশস্ত্র বিদ্রোহীরা রোববার গভীর রাতে কিলাগাই এলাকার প্রধান মহাসড়কে ব্যাপক হামলা চালালে নিরাপত্তা বাহিনী তাদের প্রতিহত করে। এ ঘটনায় সাত বিদ্রোহী নিহত ও আট জন আহত হয়।

সেনাবাহিনী বিবৃতিতে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের মধ্যে হতাহতের বিষয়ে কিছু জানায়নি।

বাঘলান প্রদেশের কিলাগাই এলাকার মধ্য দিয়ে উত্তরাঞ্চলীয় আটটি প্রদেশ থেকে রাজধানী কাবুলের সঙ্গে সংযোগের প্রধান মহাসড়কটি চলে গেছে।

তালেবান কিলাগাই এলাকার সড়কের নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করতে পারলে কাবুল ও উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশগুলোর মধ্যে যান চলাচল সহজেই বন্ধ করে দিতে পারতো।

তবে বিদ্রোহীরা এখনো পর্যন্ত এ ঘটনা নিয়ে কোনো মন্তব্য করেনি।

আফগানিস্তানের বাঘলান প্রদেশে তালেবান হামলা প্রতিহত

 অনলাইন ডেস্ক 
২০ অক্টোবর ২০২০, ১০:২৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আফগানিস্তানের বাঘলান প্রদেশে তালেবান হামলা প্রতিহত
ছবি: সংগৃহীত

আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় বাঘলান প্রদেশে প্রধান মহাসড়ক নিয়ন্ত্রণে নেয়ার চেষ্টায় তালেবান যোদ্ধারা হামলা চালালে সেনাবাহিনী তাদের প্রতিহত করেছে। 

এতে সাত যোদ্ধা নিহত হয় এবং অন্যরা পালিয়ে গেছে। সোমবার সেনাবাহিনীর এক বিবৃতিতে একথা জানানো হয়। খবর সিনহুয়ার।

বিবৃতিতে বলা হয়, সশস্ত্র বিদ্রোহীরা রোববার গভীর রাতে কিলাগাই এলাকার প্রধান মহাসড়কে ব্যাপক হামলা চালালে নিরাপত্তা বাহিনী তাদের প্রতিহত করে। এ ঘটনায় সাত বিদ্রোহী নিহত ও আট জন আহত হয়।

সেনাবাহিনী বিবৃতিতে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের মধ্যে হতাহতের বিষয়ে কিছু জানায়নি।

বাঘলান প্রদেশের কিলাগাই এলাকার মধ্য দিয়ে উত্তরাঞ্চলীয় আটটি প্রদেশ থেকে রাজধানী কাবুলের সঙ্গে সংযোগের প্রধান মহাসড়কটি চলে গেছে। 

তালেবান কিলাগাই এলাকার সড়কের নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করতে পারলে কাবুল ও উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশগুলোর মধ্যে যান চলাচল সহজেই বন্ধ করে দিতে পারতো।

তবে বিদ্রোহীরা এখনো পর্যন্ত এ ঘটনা নিয়ে কোনো মন্তব্য করেনি।