রাশিয়া-চীনের সঙ্গে ইরানের অস্ত্র চুক্তি
jugantor
রাশিয়া-চীনের সঙ্গে ইরানের অস্ত্র চুক্তি

  অনলাইন ডেস্ক  

২০ অক্টোবর ২০২০, ১২:২৮:০০  |  অনলাইন সংস্করণ

ইরানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আমির হাতামি বলেছেন, তার দেশের ওপর থেকে জাতিসংঘের অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার পর সমরাস্ত্র কেনার ব্যাপারে রাশিয়া ও চীনের সঙ্গে চুক্তি হয়েছে।

কাতারভিত্তিক আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম আলজাজিরা টেলিভিশনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, ইরানের বিমানবাহিনীর সম্প্রসারণ ও উন্নয়নের ব্যাপারে মস্কোর সঙ্গে তেহরানের গুরুত্বপূর্ণ চুক্তি হয়েছে। খবর আলজাজিরার।

ইরানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার ফলে তার দেশের অস্ত্র রফতানি এবং অন্য দেশের কাছ থেকে অস্ত্র আমদানি করার বাধা দূর হয়েছে।

একই সঙ্গে তিনি মধ্যপ্রাচ্যে সমরাস্ত্র প্রতিযোগিতা শুরু করার ব্যাপারে সতর্ক করে দিয়ে বলেন, এ অঞ্চলে অস্ত্র প্রতিযোগিতা শুরু হলে গোটা মধ্যপ্রাচ্য বারুদের স্তূপে পরিণত হবে।

জেনারেল হাতামি বলেন, তার দেশ পারস্য উপসাগরীয় দেশগুলোর সঙ্গেও সামরিক ও নিরাপত্তা চুক্তি স্বাক্ষর করতে প্রস্তুত রয়েছে।

তিনি বলেন, এ অঞ্চলের একটি গুরুত্বপূর্ণ ও প্রভাবশালী দেশ হিসেবে তুরস্ক কূটনৈতিক উপায়ে নাগোরনো-কারাবাখ সংকট সমাধানের চেষ্টা চালাবে বলে তেহরান আশা করে।

জেনারেল হাতামি আরও বলেন, ইরান তার ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি নিয়ে কোনো অবস্থায়ই আমেরিকার সঙ্গে আলোচনা করবে না।

রাশিয়া-চীনের সঙ্গে ইরানের অস্ত্র চুক্তি

 অনলাইন ডেস্ক 
২০ অক্টোবর ২০২০, ১২:২৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ইরানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আমির হাতামি বলেছেন, তার দেশের ওপর থেকে জাতিসংঘের অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার পর সমরাস্ত্র কেনার ব্যাপারে রাশিয়া ও চীনের সঙ্গে চুক্তি হয়েছে।

কাতারভিত্তিক আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম আলজাজিরা টেলিভিশনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, ইরানের বিমানবাহিনীর সম্প্রসারণ ও উন্নয়নের ব্যাপারে মস্কোর সঙ্গে তেহরানের গুরুত্বপূর্ণ চুক্তি হয়েছে। খবর আলজাজিরার।

ইরানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার ফলে তার দেশের অস্ত্র রফতানি এবং অন্য দেশের কাছ থেকে অস্ত্র আমদানি করার বাধা দূর হয়েছে।

একই সঙ্গে তিনি মধ্যপ্রাচ্যে সমরাস্ত্র প্রতিযোগিতা শুরু করার ব্যাপারে সতর্ক করে দিয়ে বলেন, এ অঞ্চলে অস্ত্র প্রতিযোগিতা শুরু হলে গোটা মধ্যপ্রাচ্য বারুদের স্তূপে পরিণত হবে।

জেনারেল হাতামি বলেন, তার দেশ পারস্য উপসাগরীয় দেশগুলোর সঙ্গেও সামরিক ও নিরাপত্তা চুক্তি স্বাক্ষর করতে প্রস্তুত রয়েছে।

তিনি বলেন, এ অঞ্চলের একটি গুরুত্বপূর্ণ ও প্রভাবশালী দেশ হিসেবে তুরস্ক কূটনৈতিক উপায়ে নাগোরনো-কারাবাখ সংকট সমাধানের চেষ্টা চালাবে বলে তেহরান আশা করে।

জেনারেল হাতামি আরও বলেন, ইরান তার ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি নিয়ে কোনো অবস্থায়ই আমেরিকার সঙ্গে আলোচনা করবে না।

 

ঘটনাপ্রবাহ : মার্কিন-ইরান সংকট