কাশ্মীরের প্রভাবশালী ইংরেজি দৈনিকের অফিস সিলগালা
jugantor
কাশ্মীরের প্রভাবশালী ইংরেজি দৈনিকের অফিস সিলগালা

  অনলাইন ডেস্ক  

২১ অক্টোবর ২০২০, ১৩:১৭:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের কাশ্মীরে প্রভাবশালী ইংরেজি দৈনিক কাশ্মীর টাইমসের শ্রীনগর অফিস সিলগালা করে দিয়েছে কেন্দ্র নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসন।

স্থানীয় সময় সোমবার রাতে প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে এ ঘটনা ঘটে। খবর হিন্দুস্তান টাইমস, আলজাজিরা ও দ্য হিন্দুর।

এক প্রতিক্রিয়ায় কাশ্মীর টাইমসের নির্বাহী সম্পাদক অনুরাধা ভাসিন বলেন, স্বাধীন মতপ্রকাশ করায় স্থানীয় প্রশাসন তাদের গণমাধ্যমের অফিস বন্ধ করে দিয়ে প্রতিশোধ নিয়েছে।

একইভাবে জম্মুর একটি ফ্ল্যাট থেকে বরাদ্দ বাতিলের অজুহাতে তাকে উচ্ছেদ করা হয়। এমনকি তার জিনিসপত্রগুলোও তাকে নিতে দেয়া হয়নি বলেও অভিযোগ করেন অনুরাধা ভাসিন।

এ ব্যাপারে স্থানীয় এস্টেট বিভাগের তরফ থেকে বলা হয়েছে– কাশ্মীর টাইমসের অফিসটি বেআইনিভাবে দখল করে রাখা হয়েছিল। এস্টেট বিভাগ তার নিয়ন্ত্রণ নিজেদের হাতে নিয়েছে।

এস্টেট বিভাগের বরাত দিয়ে ভারতের গণমাধ্যম জানিয়েছে, কাশ্মীর টাইমসের অফিস কমপ্লেক্সের জায়গাটি পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক বেদ ভাসিনের নামে বরাদ্দ দেয়া হয়েছিল।

২০১৫ সালে তার মৃত্যুর পর থেকে ওই জায়গার প্রকৃত মালিকানা কারও নামে না থাকার কারণ দেখিয়ে পত্রিকা অফিস সিলগালা করে দেয়া হয়।

কাশ্মীর টাইমস এডিটরস গিল্ড (কেইজি) জানিয়েছে, কোনো আগাম উচ্ছেদ নোটিশ না দিয়েই এস্টেট বিভাগ পত্রিকা অফিস সিলগালা করে দিয়ে কেন্দ্র সরকারের বিরোধী মতামত দমনের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করেছে।

কাশ্মীর উপত্যকার প্রাচীন এই মুখপত্রের ওপর নেমে আসা সরকারি হয়রানির কড়া সমালোচনা করেছেন ভারতের বিরোধী বিভিন্ন দলের নেতৃবৃন্দ এবং শীর্ষ সাংবাদিকদের বিভিন্ন সংগঠন।

কাশ্মীরের প্রভাবশালী ইংরেজি দৈনিকের অফিস সিলগালা

 অনলাইন ডেস্ক 
২১ অক্টোবর ২০২০, ০১:১৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের কাশ্মীরে প্রভাবশালী ইংরেজি দৈনিক কাশ্মীর টাইমসের শ্রীনগর অফিস সিলগালা করে দিয়েছে কেন্দ্র নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসন।

স্থানীয় সময় সোমবার রাতে প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে এ ঘটনা ঘটে। খবর হিন্দুস্তান টাইমস, আলজাজিরা ও দ্য হিন্দুর।

এক প্রতিক্রিয়ায় কাশ্মীর টাইমসের নির্বাহী সম্পাদক অনুরাধা ভাসিন বলেন, স্বাধীন মতপ্রকাশ করায় স্থানীয় প্রশাসন তাদের গণমাধ্যমের অফিস বন্ধ করে দিয়ে প্রতিশোধ নিয়েছে।

একইভাবে জম্মুর একটি ফ্ল্যাট থেকে বরাদ্দ বাতিলের অজুহাতে তাকে উচ্ছেদ করা হয়। এমনকি তার জিনিসপত্রগুলোও তাকে নিতে দেয়া হয়নি বলেও অভিযোগ করেন অনুরাধা ভাসিন।

এ ব্যাপারে স্থানীয় এস্টেট বিভাগের তরফ থেকে বলা হয়েছে– কাশ্মীর টাইমসের অফিসটি বেআইনিভাবে দখল করে রাখা হয়েছিল। এস্টেট বিভাগ তার নিয়ন্ত্রণ নিজেদের হাতে নিয়েছে।

এস্টেট বিভাগের বরাত দিয়ে ভারতের গণমাধ্যম জানিয়েছে, কাশ্মীর টাইমসের অফিস কমপ্লেক্সের জায়গাটি পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক বেদ ভাসিনের নামে বরাদ্দ দেয়া হয়েছিল।

২০১৫ সালে তার মৃত্যুর পর থেকে ওই জায়গার প্রকৃত মালিকানা কারও নামে না থাকার কারণ দেখিয়ে পত্রিকা অফিস সিলগালা করে দেয়া হয়।

কাশ্মীর টাইমস এডিটরস গিল্ড (কেইজি) জানিয়েছে, কোনো আগাম উচ্ছেদ নোটিশ না দিয়েই এস্টেট বিভাগ পত্রিকা অফিস সিলগালা করে দিয়ে কেন্দ্র সরকারের বিরোধী মতামত দমনের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করেছে।

কাশ্মীর উপত্যকার প্রাচীন এই মুখপত্রের ওপর নেমে আসা সরকারি হয়রানির কড়া সমালোচনা করেছেন ভারতের বিরোধী বিভিন্ন দলের নেতৃবৃন্দ এবং শীর্ষ সাংবাদিকদের বিভিন্ন সংগঠন।

 
আরও খবর