থাইল্যান্ডে জরুরি অবস্থা প্রত্যাহার
jugantor
থাইল্যান্ডে জরুরি অবস্থা প্রত্যাহার

  অনলাইন ডেস্ক  

২২ অক্টোবর ২০২০, ১৮:৪১:২৭  |  অনলাইন সংস্করণ

থাইল্যান্ড

সরকার বিরোধীদের বিক্ষোভ থামাতে থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংকক ও কয়েকটি শহরে এক সপ্তাহের বেশি জরুরি অবস্থা চলছিল।বৃহস্পতিবার দেশটির প্রধানমন্ত্রীর এক আদেশে জরুরি অবস্থা প্রত্যাহার করা হয়।এ খবর জানিয়েছে সিএনএন।

এদিন রয়েল গেজেটের একটি ঘোষণায় বলা হয়, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছিল; এটি সমাধান হওয়ায় স্থগিত করা হল।বর্তমান পরিস্থিতিতে ব্যাংককে এখন সাধারণ আইন প্রয়োগ করা হবে।

শিক্ষার্থীদের নেতৃত্বে পরিচালিত এই গণতন্ত্রপন্থী আন্দোলনকারীদের দাবি, থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ এবং রাজার ক্ষমতা কমিয়ে আনা। বিক্ষোভ দমনে গত বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) জরুরি অবস্থা জারি করে দেশটির সরকার। এতে চারজনের বেশি মানুষের জমায়েত ও কারফিউ আরোপ করা হয়। তবে কারফিউ উপেক্ষা করে বিক্ষোভে আরও বেশি সংখ্যক মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

এর আগে বুধবার বিক্ষোভকারীরা পদত্যাগের জন্য থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীকে তিন দিনের আলটিমেটাম দেয়। এর মধ্যে তাকে পদত্যাগ করতে হবে। না হলে আবার বিক্ষোভে নামবেন তারা।

থাইল্যান্ডে জরুরি অবস্থা প্রত্যাহার

 অনলাইন ডেস্ক 
২২ অক্টোবর ২০২০, ০৬:৪১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
থাইল্যান্ড
ছবি: সিএনএন

সরকার বিরোধীদের বিক্ষোভ থামাতে থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংকক ও কয়েকটি শহরে এক সপ্তাহের বেশি জরুরি অবস্থা চলছিল।বৃহস্পতিবার দেশটির প্রধানমন্ত্রীর এক আদেশে জরুরি অবস্থা প্রত্যাহার করা হয়। এ খবর জানিয়েছে সিএনএন। 

এদিন রয়েল গেজেটের একটি ঘোষণায় বলা হয়, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছিল; এটি সমাধান হওয়ায় স্থগিত করা হল।বর্তমান পরিস্থিতিতে ব্যাংককে এখন সাধারণ আইন প্রয়োগ করা হবে।  

শিক্ষার্থীদের নেতৃত্বে পরিচালিত এই গণতন্ত্রপন্থী আন্দোলনকারীদের দাবি, থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ এবং রাজার ক্ষমতা কমিয়ে আনা। বিক্ষোভ দমনে গত বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) জরুরি অবস্থা জারি করে দেশটির সরকার। এতে চারজনের বেশি মানুষের জমায়েত ও কারফিউ আরোপ করা হয়। তবে কারফিউ উপেক্ষা করে বিক্ষোভে আরও বেশি সংখ্যক মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

এর আগে বুধবার বিক্ষোভকারীরা পদত্যাগের জন্য থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীকে তিন দিনের আলটিমেটাম দেয়। এর মধ্যে তাকে পদত্যাগ করতে হবে। না হলে আবার বিক্ষোভে নামবেন তারা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন