আফগানিস্তানে শিক্ষা কেন্দ্রে আত্মঘাতী হামলায় নিহত বেড়ে ২৪
jugantor
আফগানিস্তানে শিক্ষা কেন্দ্রে আত্মঘাতী হামলায় নিহত বেড়ে ২৪

  অনলাইন ডেস্ক  

২৫ অক্টোবর ২০২০, ১৪:৩০:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

আফগানিস্তানে শিক্ষা কেন্দ্রে আত্মঘাতী হামলায় নিহত বেড়ে ২৪

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের একটি শিক্ষা কেন্দ্রে আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২৪ জন হয়েছে। নিহতদের মধ্যে শিক্ষার্থীরাও রয়েছেন।

শনিবারের এই হামলায় এছাড়াও আরও কয়েক ডজন আহত হয়েছেন।

দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র তারিক আরিয়ান বলেন, বোমা হামলাকারীকে শনাক্ত করতে পেরেছে নিরাপত্তা প্রহরীরা।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, শিয়া প্রধান দাস্ত ই বার্চি এলাকার কাওসার ই দানিশ শিক্ষা কেন্দ্রে সচরাচর কয়েকশত শিক্ষার্থী অবস্থান করে।

এক সংবাদ সম্মেলনে তারিক আরিয়ান বলেন, নিরাপত্তা রক্ষীরা একজন হামলাকারীকে শনাক্ত করার পর সে কাওসার ই দানিশের সামনের রাস্তায় বিস্ফোরণ ঘটায়।

তিনি বলেন, একজন আত্মঘাতী বোমারু শিক্ষা কেন্দ্রটিতে প্রবেশ করতে চাইছিল।

স্থানীয় বাসিন্দা আলী রেজা জানিয়েছেন, হতাহতদের অধিকাংশই শিক্ষার্থী এবং তারা সবাই প্রতিষ্ঠানটির ভিতরে ঢোকার অপেক্ষায় ছিলেন।

তিনি জানান, কেন্দ্রটি থেকে প্রায় ১০০ মিটার দূরে দাঁড়িয়ে ছিলাম, তখনই বড় ধরনের বিস্ফোরণের ধাক্কায় ছিটকে যাই আমি।

দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, নিহতদের অধিকাংশই ছাত্র এবং তাদের বয়স ১৫ থেক ২৬ বছরের মধ্যে।

রয়টার্সের এক প্রত্যক্ষদর্শী সাংবাদিক বলেন, পরিবারের সদস্যরা নিকটবর্তী একটি হাসপাতালে জড়ো হয়ে মেঝেতে সারি দিয়ে রাখা নিহতদের মধ্যে নিখোঁজ প্রিয়জনদের খোঁজ করছিল, অন্যদিকে আহতদের স্ট্রেচারে করে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল।

আফগানিস্তানে শিক্ষা কেন্দ্রে আত্মঘাতী হামলায় নিহত বেড়ে ২৪

 অনলাইন ডেস্ক 
২৫ অক্টোবর ২০২০, ০২:৩০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আফগানিস্তানে শিক্ষা কেন্দ্রে আত্মঘাতী হামলায় নিহত বেড়ে ২৪
ছবি: সংগৃহীত

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের একটি শিক্ষা কেন্দ্রে আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২৪ জন হয়েছে। নিহতদের মধ্যে শিক্ষার্থীরাও রয়েছেন।

শনিবারের এই হামলায় এছাড়াও আরও কয়েক ডজন আহত হয়েছেন।

দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র তারিক আরিয়ান বলেন, বোমা হামলাকারীকে শনাক্ত করতে পেরেছে নিরাপত্তা প্রহরীরা।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, শিয়া প্রধান দাস্ত ই বার্চি এলাকার কাওসার ই দানিশ শিক্ষা কেন্দ্রে সচরাচর কয়েকশত শিক্ষার্থী অবস্থান করে।

এক সংবাদ সম্মেলনে তারিক আরিয়ান বলেন, নিরাপত্তা রক্ষীরা একজন হামলাকারীকে শনাক্ত করার পর সে কাওসার ই দানিশের সামনের রাস্তায় বিস্ফোরণ ঘটায়।

তিনি বলেন, একজন আত্মঘাতী বোমারু শিক্ষা কেন্দ্রটিতে প্রবেশ করতে চাইছিল।

স্থানীয় বাসিন্দা আলী রেজা জানিয়েছেন, হতাহতদের অধিকাংশই শিক্ষার্থী এবং তারা সবাই প্রতিষ্ঠানটির ভিতরে ঢোকার অপেক্ষায় ছিলেন।

তিনি জানান, কেন্দ্রটি থেকে প্রায় ১০০ মিটার দূরে দাঁড়িয়ে ছিলাম, তখনই বড় ধরনের বিস্ফোরণের ধাক্কায় ছিটকে যাই আমি।

দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, নিহতদের অধিকাংশই ছাত্র এবং তাদের বয়স ১৫ থেক ২৬ বছরের মধ্যে।

রয়টার্সের এক প্রত্যক্ষদর্শী সাংবাদিক বলেন, পরিবারের সদস্যরা নিকটবর্তী একটি হাসপাতালে জড়ো হয়ে মেঝেতে সারি দিয়ে রাখা নিহতদের মধ্যে নিখোঁজ প্রিয়জনদের খোঁজ করছিল, অন্যদিকে আহতদের স্ট্রেচারে করে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল।