পণ্য বয়কট বন্ধের অনুরোধ ফ্রান্সের
jugantor
পণ্য বয়কট বন্ধের অনুরোধ ফ্রান্সের

  অনলাইন ডেস্ক  

২৬ অক্টোবর ২০২০, ১২:৪২:১৩  |  অনলাইন সংস্করণ

মহানবীকে (সা.) নিয়ে ছাপা ব্যঙ্গাত্মক কার্টুনকে সমর্থন জানানো এবং ফরাসি সরকারের মুসলিমবিরোধী মনোভাবের কারণে বেশ কয়েকটি আরব দেশ ফ্রান্সের পণ্য বয়কটের ডাক দিয়েছে।

এ ঘটনার পরই টনক নড়ে ফ্রান্স সরকারের। এবার তারা আরব দেশগুলোর প্রতি তাদের দেশের পণ্য বয়কট বন্ধের অনুরোধ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে। খবর বিবিসির।

ফ্রান্সের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় রোববার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর ব্যঙ্গাত্মক কার্টুন প্রকাশের পর সম্প্রতি মধ্যপ্রাচ্যের বেশ কয়েকটি দেশে ফ্রান্সের পণ্য, বিশেষ করে খাদ্যপণ্য বয়কটের আহ্বান জানিয়েছে। এ ছাড়া পাশাপাশি ফ্রান্সের বিরুদ্ধে বিক্ষোভের ডাক দিয়েছে বেশ কয়েকটি মুসলিম দেশ।

ফ্রান্স বলছে, বয়কটের এসব আহ্বান ‘ভিত্তিহীন’ এবং অবিলম্বে এগুলো বন্ধ হওয়া উচিত। সেই সঙ্গে সব ধরনের আক্রমণাত্মক মনোভাব, যা একটি উগ্র সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে উসকে দিচ্ছে, সেগুলো বন্ধ করতে হবে।

এক টুইটবার্তায় ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেন, ‘আমরা কখনই ইসলামী মৌলবাদীদের কাছে নত করব না। এ ছাড়া আমরা বিদ্বেষপূর্ণ বক্তব্য সমর্থন করি না।

মহানবীকে (সা.) অসম্মান করায় এরই মধ্যে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কুয়েত, জর্ডান ও কাতারে দোকান থেকে ফরাসি সব পণ্য সরিয়ে ফেলা হয়েছে।

এ ছাড়া লিবিয়া, সিরিয়া ও ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় ফ্রান্সবিরোধী বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে।

পণ্য বয়কট বন্ধের অনুরোধ ফ্রান্সের

 অনলাইন ডেস্ক 
২৬ অক্টোবর ২০২০, ১২:৪২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মহানবীকে (সা.) নিয়ে ছাপা ব্যঙ্গাত্মক কার্টুনকে সমর্থন জানানো এবং ফরাসি সরকারের মুসলিমবিরোধী মনোভাবের কারণে বেশ কয়েকটি আরব দেশ ফ্রান্সের পণ্য বয়কটের ডাক দিয়েছে।

এ ঘটনার পরই টনক নড়ে ফ্রান্স সরকারের। এবার তারা আরব দেশগুলোর প্রতি তাদের দেশের পণ্য বয়কট বন্ধের অনুরোধ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে। খবর বিবিসির।

ফ্রান্সের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় রোববার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর ব্যঙ্গাত্মক কার্টুন প্রকাশের পর সম্প্রতি মধ্যপ্রাচ্যের বেশ কয়েকটি দেশে ফ্রান্সের পণ্য, বিশেষ করে খাদ্যপণ্য বয়কটের আহ্বান জানিয়েছে। এ ছাড়া পাশাপাশি ফ্রান্সের বিরুদ্ধে বিক্ষোভের ডাক দিয়েছে বেশ কয়েকটি মুসলিম দেশ।

ফ্রান্স বলছে, বয়কটের এসব আহ্বান ‘ভিত্তিহীন’ এবং অবিলম্বে এগুলো বন্ধ হওয়া উচিত। সেই সঙ্গে সব ধরনের আক্রমণাত্মক মনোভাব, যা একটি উগ্র সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে উসকে দিচ্ছে, সেগুলো বন্ধ করতে হবে।

এক টুইটবার্তায় ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেন, ‘আমরা কখনই ইসলামী মৌলবাদীদের কাছে নত করব না। এ ছাড়া আমরা বিদ্বেষপূর্ণ বক্তব্য সমর্থন করি না।

মহানবীকে (সা.) অসম্মান করায় এরই মধ্যে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কুয়েত, জর্ডান ও কাতারে দোকান থেকে ফরাসি সব পণ্য সরিয়ে ফেলা হয়েছে।

এ ছাড়া লিবিয়া, সিরিয়া ও ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় ফ্রান্সবিরোধী বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে।