ফ্রান্সে বুদ্ধগয়া প্রজ্ঞাবিহারে কঠিনচীবরদান
jugantor
ফ্রান্সে বুদ্ধগয়া প্রজ্ঞাবিহারে কঠিনচীবরদান

  অনুপম বড়ুয়া টিপু, প্যারিস থেকে  

২৬ অক্টোবর ২০২০, ২২:২৮:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ফ্রান্সে বৌদ্ধদের অন্যতম ধর্মীয় অনুষ্ঠান শুভ কঠিনচীবরদান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার (২৫ অক্টোবর) রাজধানী প্যারিসের অদূরে বাংলাদেশি বুদ্ধগয়া প্রজ্ঞাবিহার ভাবনা কেন্দ্রে এ কঠিনচীবরদান অনুষ্ঠিত হয়।

করোনা মহামারীতে ভিন্ন প্রেক্ষাপটে সীমিত পরিসরে সকালে এক পর্বে অনুষ্ঠান সমাপ্ত করা হয়। এবারই প্রথম পুণ্যার্থীদের বিহারে না আসতে নিরুৎসাহিত করা হয়।

কঠিনচীবরদান উপলক্ষে ভোর থেকে শুরু হওয়া এ অনুষ্ঠানে শীলগ্রহণ, বুদ্ধপূজা, সংঘ দান, অষ্টপরিষ্কার দান, কল্পতরু দান, সবশেষ বহু আকাঙ্ক্ষিত কঠিনচীবরদানসহ নানা আয়োজনে সমৃদ্ধ ছিল।

ফ্রান্সের বুদ্ধগয়া প্রজ্ঞাবিহার ভাবনা কেন্দ্রের উদ্যোগে আয়োজিত এ দানসভায় সভাপতিত্ব করেন মৈত্রী বৌদ্ধবিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত অনোমদর্শী থের।

প্রধান ধর্মদেশক ছিলেন কুশলায়ন বুদ্ধিস্ট মেডিটেশন সেন্টারের পরিচালক ভদন্ত জ্যোতিসার ভিক্ষু। বিশেষ ধর্মদেশক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভদন্ত বিজয়ানন্দ ভিক্ষু।
মঙ্গলাচরণ করেন বুদ্ধগয়া প্রজ্ঞাবিহার ভাবনা কেন্দ্রের পরিচালক ভদন্ত কল্যাণরত্ন ভিক্ষু।
স্বাগত বক্তব্য রাখেন- উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুজয় বড়ুয়া, ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন উদযাপন পরিষদের সম্পাদক পলাশ বড়ুয়া, পঞ্চশীল প্রার্থনা করেন কানন বড়ুয়া।
অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ভদন্ত আনন্দ ভিক্ষু, মিটু কুমার বড়ুয়া।

বক্তারা বলেন, ‘চীবরদান’ ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে বৌদ্ধদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ দান জন্ম-জন্মান্তরে সুফল প্রদায়ী। প্রতিটি বৌদ্ধবিহারে বছরে একবার মাত্র এ চীবরদান করা হয়।

ফ্রান্সে বুদ্ধগয়া প্রজ্ঞাবিহারে কঠিনচীবরদান

 অনুপম বড়ুয়া টিপু, প্যারিস থেকে 
২৬ অক্টোবর ২০২০, ১০:২৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ফ্রান্সে বৌদ্ধদের অন্যতম ধর্মীয় অনুষ্ঠান শুভ কঠিনচীবরদান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার (২৫ অক্টোবর) রাজধানী প্যারিসের অদূরে বাংলাদেশি বুদ্ধগয়া প্রজ্ঞাবিহার ভাবনা কেন্দ্রে এ কঠিনচীবরদান অনুষ্ঠিত হয়।

করোনা মহামারীতে ভিন্ন প্রেক্ষাপটে সীমিত পরিসরে সকালে এক পর্বে অনুষ্ঠান সমাপ্ত করা হয়। এবারই প্রথম পুণ্যার্থীদের বিহারে না আসতে নিরুৎসাহিত করা হয়।

কঠিনচীবরদান উপলক্ষে ভোর থেকে শুরু হওয়া এ অনুষ্ঠানে শীলগ্রহণ, বুদ্ধপূজা, সংঘ দান, অষ্টপরিষ্কার দান, কল্পতরু দান, সবশেষ বহু আকাঙ্ক্ষিত কঠিনচীবরদানসহ নানা আয়োজনে সমৃদ্ধ ছিল।

ফ্রান্সের বুদ্ধগয়া প্রজ্ঞাবিহার ভাবনা কেন্দ্রের উদ্যোগে আয়োজিত এ দানসভায় সভাপতিত্ব করেন মৈত্রী বৌদ্ধবিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত অনোমদর্শী থের।

প্রধান ধর্মদেশক ছিলেন কুশলায়ন বুদ্ধিস্ট মেডিটেশন সেন্টারের পরিচালক ভদন্ত জ্যোতিসার ভিক্ষু। বিশেষ ধর্মদেশক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভদন্ত বিজয়ানন্দ ভিক্ষু। 
মঙ্গলাচরণ করেন বুদ্ধগয়া প্রজ্ঞাবিহার ভাবনা কেন্দ্রের পরিচালক ভদন্ত কল্যাণরত্ন ভিক্ষু।
স্বাগত বক্তব্য রাখেন- উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুজয় বড়ুয়া, ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন উদযাপন পরিষদের সম্পাদক পলাশ বড়ুয়া, পঞ্চশীল প্রার্থনা করেন কানন বড়ুয়া।
অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ভদন্ত আনন্দ ভিক্ষু, মিটু কুমার বড়ুয়া।

বক্তারা বলেন, ‘চীবরদান’ ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে বৌদ্ধদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ দান জন্ম-জন্মান্তরে সুফল প্রদায়ী। প্রতিটি বৌদ্ধবিহারে বছরে একবার মাত্র এ চীবরদান করা হয়।