নবীজিকে নিয়ে কার্টুনের নিন্দা সৌদির, পণ্য বর্জনে নিরুৎসাহ
jugantor
নবীজিকে নিয়ে কার্টুনের নিন্দা সৌদির, পণ্য বর্জনে নিরুৎসাহ

  অনলাইন ডেস্ক  

২৭ অক্টোবর ২০২০, ১৫:৫৭:৪০  |  অনলাইন সংস্করণ

নবীজিকে নিয়ে কার্টুনের সৌদির নিন্দা, পণ্য বর্জনে নিরুৎসাহ

ফ্রান্সে মহানবী হযরত মোহাম্মদকে (সা.) নিয়ে বিদ্রূপাত্মক কার্টুনের নিন্দা জানিয়েছে সৌদি আরব। কিন্তু অন্যান্য মুসলিম দেশে এই ধৃষ্টতার প্রতিবাদে যেভাবে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখানো হয়েছে, মধ্যপ্রাচ্যের শীর্ষ অর্থনীতির দেশটি সেক্ষেত্রে অনেকটা সংযতই থেকেছে।

এমনকি প্রতিক্রিয়ায় প্রদর্শনে বাড়াবাড়ি হওয়া থেকে বিরত থাকতেই উৎসাহিত করা হয়েছে।

এক বিবৃতিতে সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় বলছে, অপরাধী কে, তা বিবেচনা না করেই যে কোনো ধরনের সন্ত্রাসী কার্যক্রমের আমরা নিন্দা জানাচ্ছি। সম্মান, সহনশীলতা ও শান্তি এগিয়ে নিতে বৃদ্ধিবৃত্তিক ও সাংস্কৃতিক স্বাধীনতার আহ্বান জানাচ্ছি।

দেশটি আরও জানায়, মর্যাদা, সহনশীলতা ও শান্তির বাতিঘর হওয়া উচিত বাকস্বাধীনতা। যা পারস্পরিক সহাবস্থানের বিপরীত এবং ঘৃণা, সহিংসতা, উগ্রপন্থার উৎপাদন করে এমন চর্চা ও কার্যক্রমকে প্রত্যাখ্যান করে।

আরব নিউজ ও বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে এমন তথ্য জানা গেছে।

অতিরিক্ত প্রতিক্রিয়া দেখানোর ব্যাপারে সতর্ক হওয়ার কথা জানিয়েছেন সৌদিভিত্তিক রাবেতা আলম আল-ইসলামিয়ার প্রধান মোহাম্মদ আল-ইসা। তার মতে, এটা নেতিবাচক ও গ্রহণযোগ্যতার অতিরিক্ত হয়ে যাবে এবং এতে কেবল ঘৃণাবাদীরাই লাভবান হবে।

এদিকে ফরাসি পণ্য বর্জনের আহ্বান জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান। আর প্যারিস থেকে রাষ্ট্রদূতকে ডেকে পাঠানোর আহ্বান জানিয়ে পাকিস্তানের পার্লামেন্টে একটি প্রস্তাব পাস করা হয়েছে।

সৌদিতে সামাজিকমাধ্যমে ফরাসি সুপারমার্কেট চেইন ক্যারিফোরকে বয়কটের ডাক দেয়া হলেও তাতে সাড়া মেলেনি। আগের মতোই স্বাভাবিক ব্যস্ত রয়েছে। সোমবার রিয়াদে রয়টার্সের প্রতিবেদকরা সরেজমিনে এমন দৃশ্য দেখেছেন।

বর্জনের আহ্বানের কোনো প্রভাব পড়েনি বলে জানিয়েছেন কোম্পানির প্রতিনিধিরা। মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে ক্যারিফোরের বিভিন্ন সুপারমার্কেটের স্বত্বাধিকারী ও পরিচালনা করে আরব আমিরাত ভিত্তিক মাজিদ আল ফুতিয়াম।

তিনি বলেন, ভোক্তাদের মধ্যে কিছুটা উদ্বেগ রয়েছে। আমরা তা বুঝতে পারছি। নিবিড়ভাবে পরিস্থিতি পর্যালোচনা করছি।

কুয়েতে খুচরা পণ্য বিক্রেতাদের একটি প্রধান সমিতি ফরাসি পণ্য বর্জনের আদেশও দিয়েছে।

নবীজিকে নিয়ে কার্টুনের নিন্দা সৌদির, পণ্য বর্জনে নিরুৎসাহ

 অনলাইন ডেস্ক 
২৭ অক্টোবর ২০২০, ০৩:৫৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
নবীজিকে নিয়ে কার্টুনের সৌদির নিন্দা, পণ্য বর্জনে নিরুৎসাহ
সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান ও ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন। ছবি: সংগৃহীত

ফ্রান্সে মহানবী হযরত মোহাম্মদকে (সা.) নিয়ে বিদ্রূপাত্মক কার্টুনের নিন্দা জানিয়েছে সৌদি আরব। কিন্তু অন্যান্য মুসলিম দেশে এই ধৃষ্টতার প্রতিবাদে যেভাবে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখানো হয়েছে, মধ্যপ্রাচ্যের শীর্ষ অর্থনীতির দেশটি সেক্ষেত্রে অনেকটা সংযতই থেকেছে।

এমনকি প্রতিক্রিয়ায় প্রদর্শনে বাড়াবাড়ি হওয়া থেকে বিরত থাকতেই উৎসাহিত করা হয়েছে।

এক বিবৃতিতে সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় বলছে, অপরাধী কে, তা বিবেচনা না করেই যে কোনো ধরনের সন্ত্রাসী কার্যক্রমের আমরা নিন্দা জানাচ্ছি। সম্মান, সহনশীলতা ও শান্তি এগিয়ে নিতে বৃদ্ধিবৃত্তিক ও সাংস্কৃতিক স্বাধীনতার আহ্বান জানাচ্ছি।

দেশটি আরও জানায়, মর্যাদা, সহনশীলতা ও শান্তির বাতিঘর হওয়া উচিত বাকস্বাধীনতা। যা পারস্পরিক সহাবস্থানের বিপরীত এবং ঘৃণা, সহিংসতা, উগ্রপন্থার উৎপাদন করে এমন চর্চা ও কার্যক্রমকে প্রত্যাখ্যান করে।

আরব নিউজ ও বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে এমন তথ্য জানা গেছে।

অতিরিক্ত প্রতিক্রিয়া দেখানোর ব্যাপারে সতর্ক হওয়ার কথা জানিয়েছেন সৌদিভিত্তিক রাবেতা আলম আল-ইসলামিয়ার প্রধান মোহাম্মদ আল-ইসা। তার মতে, এটা নেতিবাচক ও গ্রহণযোগ্যতার অতিরিক্ত হয়ে যাবে এবং এতে কেবল ঘৃণাবাদীরাই লাভবান হবে।

এদিকে ফরাসি পণ্য বর্জনের আহ্বান জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান। আর প্যারিস থেকে রাষ্ট্রদূতকে ডেকে পাঠানোর আহ্বান জানিয়ে পাকিস্তানের পার্লামেন্টে একটি প্রস্তাব পাস করা হয়েছে।

সৌদিতে সামাজিকমাধ্যমে ফরাসি সুপারমার্কেট চেইন ক্যারিফোরকে বয়কটের ডাক দেয়া হলেও তাতে সাড়া মেলেনি। আগের মতোই স্বাভাবিক ব্যস্ত রয়েছে। সোমবার রিয়াদে রয়টার্সের প্রতিবেদকরা সরেজমিনে এমন দৃশ্য দেখেছেন।

বর্জনের আহ্বানের কোনো প্রভাব পড়েনি বলে জানিয়েছেন কোম্পানির প্রতিনিধিরা। মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে ক্যারিফোরের বিভিন্ন সুপারমার্কেটের স্বত্বাধিকারী ও পরিচালনা করে আরব আমিরাত ভিত্তিক মাজিদ আল ফুতিয়াম।

তিনি বলেন, ভোক্তাদের মধ্যে কিছুটা উদ্বেগ রয়েছে। আমরা তা বুঝতে পারছি। নিবিড়ভাবে পরিস্থিতি পর্যালোচনা করছি।

কুয়েতে খুচরা পণ্য বিক্রেতাদের একটি প্রধান সমিতি ফরাসি পণ্য বর্জনের আদেশও দিয়েছে।