মহানবীকে অবমাননা: ফ্রান্সের নাম উল্লেখ না করে প্রতিবাদ জানাল সৌদি
jugantor
মহানবীকে অবমাননা: ফ্রান্সের নাম উল্লেখ না করে প্রতিবাদ জানাল সৌদি

  অনলাইন ডেস্ক  

২৮ অক্টোবর ২০২০, ০০:০১:৩৪  |  অনলাইন সংস্করণ

মহানবীকে অবমাননা: ফ্রান্সের নাম উল্লেখ না করে প্রতিবাদ জানাল সৌদি

মহানবী হজরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহী ওয়া সাল্লামকে নিয়ে বিদ্রূপাত্মক কার্টুন ও অবমাননার ঘটনায় ফ্রান্সের নাম উল্লেখ না করেই অবশেষে প্রতিবাদ জানিয়েছে সৌদি আরব।

মঙ্গলবার সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে এই প্রতিবাদ জানায়।

এক বিবৃতিতে সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় বলছে, মহানবী হজরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহী ওয়া সাল্লামকে নিয়ে আপত্তিজনক কার্টুন প্রকাশ কিংবা সন্ত্রাসের সঙ্গে ইসলামকে জড়ানোর যে কোনও উদ্যোগের নিন্দা জানাচ্ছে রিয়াদ।

কিন্তু সেই বিবৃতিতে অপরাধী কে, তা বিবেচনা না করতে বলা হয়েছে। পাশপাশি প্রতিক্রিয়ায় প্রদর্শনে বাড়াবাড়ি হওয়া থেকে বিরত থাকতেও উৎসাহিত করা হয়েছে। এছাড়া অন্যান্য মুসলিম দেশের মতো করে সৌদি আরবের পক্ষ থেকে ফরাসি পণ্য বর্জনের ডাক দেয়া হয়নি।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, যে কোনো ধরনের সন্ত্রাসী কার্যক্রমের আমরা নিন্দা জানাচ্ছি। সম্মান, সহনশীলতা ও শান্তি এগিয়ে নিতে বৃদ্ধিবৃত্তিক ও সাংস্কৃতিক স্বাধীনতার আহ্বান জানাচ্ছি।

বিবৃতিটি দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ করা হয়।

ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর ইসলামবিদ্বেষী বক্তব্যের পর ফুঁসে উঠেছে মুসলিমবিশ্ব। তুরস্ক, কুয়েত, কাতার, জর্ডান, লিবিয়া, সিরিয়া, পাকিস্তান ও বাংলাদেশসহ অনেক দেশে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ চলছে।

সোমবার (২৬ অক্টোবর) তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান ফরাসী পণ্য বর্জনের আহ্বান জানান। এরপর একে একে কুয়েত, কাতার ও জর্ডানসহ অনেক আরব দেশ থেকে ফরাসি পণ্য বর্জনের ডাক আসে। অনেক আরব দেশেই দোকান থেকে ফরাসি মেকআপ সামগ্রী ও সুগন্ধী সরিয়ে ফেলা হচ্ছে।

কুয়েতে পাইকারি জিনিস বিক্রেতাদের একটি প্রধান ইউনিয়ন ফরাসি পণ্য বয়কটের ডাক দিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে নিন্দা জানালেও ফরাসি পণ্য বয়কটের কোনো ঘোষণা আসেনি মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরব থেকে।

মহানবীকে অবমাননা: ফ্রান্সের নাম উল্লেখ না করে প্রতিবাদ জানাল সৌদি

 অনলাইন ডেস্ক 
২৮ অক্টোবর ২০২০, ১২:০১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মহানবীকে অবমাননা: ফ্রান্সের নাম উল্লেখ না করে প্রতিবাদ জানাল সৌদি
ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সঙ্গে সৌদির প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান। ছবি: ইন্টারনেট

মহানবী হজরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহী ওয়া সাল্লামকে নিয়ে বিদ্রূপাত্মক কার্টুন ও অবমাননার ঘটনায় ফ্রান্সের নাম উল্লেখ না করেই অবশেষে প্রতিবাদ জানিয়েছে সৌদি আরব।

মঙ্গলবার সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে এই প্রতিবাদ জানায়।

এক বিবৃতিতে সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় বলছে, মহানবী হজরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহী ওয়া সাল্লামকে নিয়ে আপত্তিজনক কার্টুন প্রকাশ কিংবা সন্ত্রাসের সঙ্গে ইসলামকে জড়ানোর যে কোনও উদ্যোগের নিন্দা জানাচ্ছে রিয়াদ। 

কিন্তু সেই বিবৃতিতে অপরাধী কে, তা বিবেচনা না করতে বলা হয়েছে। পাশপাশি প্রতিক্রিয়ায় প্রদর্শনে বাড়াবাড়ি হওয়া থেকে বিরত থাকতেও উৎসাহিত করা হয়েছে। এছাড়া অন্যান্য মুসলিম দেশের মতো করে সৌদি আরবের পক্ষ থেকে ফরাসি পণ্য বর্জনের ডাক দেয়া হয়নি।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, যে কোনো ধরনের সন্ত্রাসী কার্যক্রমের আমরা নিন্দা জানাচ্ছি। সম্মান, সহনশীলতা ও শান্তি এগিয়ে নিতে বৃদ্ধিবৃত্তিক ও সাংস্কৃতিক স্বাধীনতার আহ্বান জানাচ্ছি।

বিবৃতিটি দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ করা হয়। 

ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর ইসলামবিদ্বেষী বক্তব্যের পর ফুঁসে উঠেছে মুসলিমবিশ্ব। তুরস্ক, কুয়েত, কাতার, জর্ডান, লিবিয়া, সিরিয়া, পাকিস্তান ও বাংলাদেশসহ অনেক দেশে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ চলছে।  

সোমবার (২৬ অক্টোবর) তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান ফরাসী পণ্য বর্জনের আহ্বান জানান। এরপর একে একে কুয়েত, কাতার ও জর্ডানসহ অনেক আরব দেশ থেকে ফরাসি পণ্য বর্জনের ডাক আসে। অনেক আরব দেশেই দোকান থেকে ফরাসি মেকআপ সামগ্রী ও সুগন্ধী সরিয়ে ফেলা হচ্ছে। 

কুয়েতে পাইকারি জিনিস বিক্রেতাদের একটি প্রধান ইউনিয়ন ফরাসি পণ্য বয়কটের ডাক দিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে নিন্দা জানালেও ফরাসি পণ্য বয়কটের কোনো ঘোষণা আসেনি মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরব থেকে।
 

 

ঘটনাপ্রবাহ : ফ্রান্সে ইসলাম অবমাননা