ইরানে ফ্রান্সের দূতাবাস ঘেরাও করেছেন শিক্ষার্থীরা
jugantor
ইরানে ফ্রান্সের দূতাবাস ঘেরাও করেছেন শিক্ষার্থীরা

  অনলাইন ডেস্ক  

২৯ অক্টোবর ২০২০, ১১:৫০:৩৮  |  অনলাইন সংস্করণ

মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর অবমাননা করায় ইরানের রাজধানী তেহরানে বুধবার ফরাসি দূতাবাস ঘেরাও করে দেশটির প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর বিরুদ্ধে স্লোগান দেন।

ইরানের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা ফরাসি পণ্য বর্জনের আহ্বান জানিয়ে লেখা প্ল্যাকার্ড নিয়ে দূতাবাসের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করেন। খবর আনাদোলুর।

ইসলাম ধর্মের অবমাননা করে বক্তব্য দেয়ায় ফরাসি প্রেসিডেন্টের কঠোর সমালোচনা করে তাকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে বলেন।

ইরানি শিক্ষার্থীরা এ সময় তেহরানে নিযুক্ত ফরাসি রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কারেরও দাবি জানান।

আন্দোলন কর্মসূচির সংগঠক তেহরান বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র রেজা আল্লাভি গণমাধ্যমকে বলেন, তারা বহুদিন ধরেই ইসলামকে হেয় করে আসছে, আর আমরাও চুপচাপ দেখে যাচ্ছিলাম।

কিন্তু আর এভাবে বসে থাকা যায় না। তারা আমাদের প্রিয় মহানবী (সা.) নিয়ে এখন শিক্ষণেও প্রতিষ্ঠানিকভাবে সরকারি মদদ ব্যঙ্গ-বিদ্রূপ করা শুরু করেছে।

শান্তির ধর্ম ইসলামকে আজ তারা জঙ্গি বলে গালাগাল করছে। সময় এসেছে তাদের ইসলামবিদ্বেষী কর্মকাণ্ডের দাঁতভাঙা জবাব দেয়ার। বিশ্বে সব মুসলিমকে আজ এক কাতারে দাঁড়িয়ে এ ধর্মীয় অবমাননার জবাব দিতে হবে।

কয়েক ঘণ্টা দূতাবাস ঘেরাওয়ের পর ফরাসি পণ্য বর্জন এবং দেশটির প্রেসিডেন্টের নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানিয়ে শান্তিপূর্ণ ওই কর্মসূচি শেষ করেন শিক্ষার্থীরা।

ইরানে ফ্রান্সের দূতাবাস ঘেরাও করেছেন শিক্ষার্থীরা

 অনলাইন ডেস্ক 
২৯ অক্টোবর ২০২০, ১১:৫০ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর অবমাননা করায় ইরানের রাজধানী তেহরানে বুধবার ফরাসি দূতাবাস ঘেরাও করে দেশটির প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর বিরুদ্ধে স্লোগান দেন।

ইরানের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা ফরাসি পণ্য বর্জনের আহ্বান জানিয়ে লেখা প্ল্যাকার্ড নিয়ে দূতাবাসের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করেন। খবর আনাদোলুর।

ইসলাম ধর্মের অবমাননা করে বক্তব্য দেয়ায় ফরাসি প্রেসিডেন্টের কঠোর সমালোচনা করে তাকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে বলেন।

ইরানি শিক্ষার্থীরা এ সময় তেহরানে নিযুক্ত ফরাসি রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কারেরও দাবি জানান।

আন্দোলন কর্মসূচির সংগঠক তেহরান বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র রেজা আল্লাভি গণমাধ্যমকে বলেন, তারা বহুদিন ধরেই ইসলামকে হেয় করে আসছে, আর আমরাও চুপচাপ দেখে যাচ্ছিলাম।

কিন্তু আর এভাবে বসে থাকা যায় না। তারা আমাদের প্রিয় মহানবী (সা.) নিয়ে এখন শিক্ষণেও প্রতিষ্ঠানিকভাবে সরকারি মদদ ব্যঙ্গ-বিদ্রূপ করা শুরু করেছে।

শান্তির ধর্ম ইসলামকে আজ তারা জঙ্গি বলে গালাগাল করছে। সময় এসেছে তাদের ইসলামবিদ্বেষী কর্মকাণ্ডের দাঁতভাঙা জবাব দেয়ার। বিশ্বে সব মুসলিমকে আজ এক কাতারে দাঁড়িয়ে এ ধর্মীয় অবমাননার জবাব দিতে হবে।   

কয়েক ঘণ্টা দূতাবাস ঘেরাওয়ের পর ফরাসি পণ্য বর্জন এবং দেশটির প্রেসিডেন্টের নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানিয়ে শান্তিপূর্ণ ওই কর্মসূচি শেষ করেন শিক্ষার্থীরা।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ফ্রান্সে ইসলাম অবমাননা