ধর্ম অবমাননা বিদ্বেষ ও সহিংস উগ্রবাদ উসকে দেয়: জাতিসংঘ
jugantor
ধর্ম অবমাননা বিদ্বেষ ও সহিংস উগ্রবাদ উসকে দেয়: জাতিসংঘ

  অনলাইন ডেস্ক  

২৯ অক্টোবর ২০২০, ১৩:০৫:২৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ধর্ম অবমাননায় বিদ্বেষ ও সহিংস উগ্রবাদ উসকে দেয়: জাতিসংঘ

মহানবীকে(সা.) বিদ্রূপাত্মক করে কার্টুন প্রকাশকে ঘিরে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনা নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘের উগ্রবাদবিরোধী সংস্থার প্রধান মিগুয়েল অ্যাঞ্জেল মোরাটিনোস।

বুধবার এক বিবৃতিতে বিভিন্ন ধর্ম ও রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গির লোকজনকে পরস্পরের প্রতি সম্মান প্রদর্শনের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

বললেন, উসকানিমূলক ব্যঙ্গচিত্র নিরপরাধ মানুষের বিরুদ্ধে সহিংসতাকে উৎসাহিত করেছে; যারা কেবল ধর্ম, বিশ্বাস ও নৃতাত্ত্বিক পরিচয়ের কারণে হামলার শিকার হচ্ছেন।

ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে এমন তথ্য জানা গেছে।

মিগুয়েল বলেন, ধর্ম ও ধর্মীয় পবিত্রতার প্রতীককে অমর্যাদায় বিদ্বেষ ও সহিংস উগ্রবাদকে উসকে দেয়া হয়, যা সমাজকে খণ্ডিত ও মেরুকরণের দিকে ঠেলে দেয়।

নবীজিকে পরিহাস করে কার্টুনে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সমর্থনের কথা উল্লেখ না করেই বিবৃতিতে এমন মন্তব্য করা হয়েছে।

বাকস্বাধীনতার ক্লাসে শিক্ষার্থীদের মহানবীকে ব্যঙ্গ করে কার্টুন প্রদর্শনের পর এক শিক্ষক নিহত হওয়ার ঘটনায় ফ্রান্সের বিরূপ প্রতিক্রিয়া ও মুসলিম বিশ্বের ক্রমবর্ধমান ক্ষোভের পর ইউনাইটেড নেশনস অ্যালায়েন্স অব সিভিলাইজেশনের প্রধান মিগুয়েল এ বিবৃতি দিয়েছেন।

নবীজিকে নিয়ে কার্টুন প্রকাশে জোরালো সমর্থন দিয়েছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোর।

জবাবে মুসলিম বিশ্ব থেকে ফরাসি পণ্য বয়কটের ডাক এসেছে। এ ঘটনার প্রতিবাদে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মুসলমানরা বিক্ষোভও দেখিয়েছেন।

বিবৃতিতে বলা হয়, নবী মুহাম্মদকে (সা.) নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের জেরে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনা ও অসহিষ্ণুতার দৃষ্টান্ত গভীর উদ্বেগের সঙ্গে নজর রাখছে জাতিসংঘের উচ্চপ্রতিনিধি।

ধর্ম অবমাননা বিদ্বেষ ও সহিংস উগ্রবাদ উসকে দেয়: জাতিসংঘ

 অনলাইন ডেস্ক 
২৯ অক্টোবর ২০২০, ০১:০৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ধর্ম অবমাননায় বিদ্বেষ ও সহিংস উগ্রবাদ উসকে দেয়: জাতিসংঘ
ফাইল ছবি

মহানবীকে(সা.) বিদ্রূপাত্মক করে কার্টুন প্রকাশকে ঘিরে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনা নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘের উগ্রবাদবিরোধী সংস্থার প্রধান মিগুয়েল অ্যাঞ্জেল মোরাটিনোস।

বুধবার এক বিবৃতিতে বিভিন্ন ধর্ম ও রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গির লোকজনকে পরস্পরের প্রতি সম্মান প্রদর্শনের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

বললেন, উসকানিমূলক ব্যঙ্গচিত্র নিরপরাধ মানুষের বিরুদ্ধে সহিংসতাকে উৎসাহিত করেছে; যারা কেবল ধর্ম, বিশ্বাস ও নৃতাত্ত্বিক পরিচয়ের কারণে হামলার শিকার হচ্ছেন।

ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে এমন তথ্য জানা গেছে।

মিগুয়েল বলেন, ধর্ম ও ধর্মীয় পবিত্রতার প্রতীককে অমর্যাদায় বিদ্বেষ ও সহিংস উগ্রবাদকে উসকে দেয়া হয়, যা সমাজকে খণ্ডিত ও মেরুকরণের দিকে ঠেলে দেয়।

নবীজিকে পরিহাস করে কার্টুনে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সমর্থনের কথা উল্লেখ না করেই বিবৃতিতে এমন মন্তব্য করা হয়েছে।

বাকস্বাধীনতার ক্লাসে শিক্ষার্থীদের মহানবীকে ব্যঙ্গ করে কার্টুন প্রদর্শনের পর এক শিক্ষক নিহত হওয়ার ঘটনায় ফ্রান্সের বিরূপ প্রতিক্রিয়া ও মুসলিম বিশ্বের ক্রমবর্ধমান ক্ষোভের পর ইউনাইটেড নেশনস অ্যালায়েন্স অব সিভিলাইজেশনের প্রধান মিগুয়েল এ বিবৃতি দিয়েছেন।

নবীজিকে নিয়ে কার্টুন প্রকাশে জোরালো সমর্থন দিয়েছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোর। 

জবাবে মুসলিম বিশ্ব থেকে ফরাসি পণ্য বয়কটের ডাক এসেছে। এ ঘটনার প্রতিবাদে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মুসলমানরা বিক্ষোভও দেখিয়েছেন।

বিবৃতিতে বলা হয়, নবী মুহাম্মদকে (সা.) নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের জেরে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনা ও অসহিষ্ণুতার দৃষ্টান্ত গভীর উদ্বেগের সঙ্গে নজর রাখছে জাতিসংঘের উচ্চপ্রতিনিধি।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ফ্রান্সে ইসলাম অবমাননা