ম্যাক্রোঁকে ‘ব্যক্তিগত আক্রমণের’ তীব্র নিন্দা ভারতের
jugantor
ম্যাক্রোঁকে ‘ব্যক্তিগত আক্রমণের’ তীব্র নিন্দা ভারতের

  অনলাইন ডেস্ক  

২৯ অক্টোবর ২০২০, ১৩:৫৯:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

ম্যাক্রনকে ‘ব্যক্তিগত আক্রমণের’ তীব্র নিন্দা ভারতের

‘মৌলবাদী ইসলামের’ বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নেয়ায় ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁকে ব্যক্তিগত আক্রমণের জোরালো নিন্দা জানিয়েছে ভারত।

বুধবার দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কড়া ভাষায় দেয়া এক বিবৃতিতে বলেছে, ম্যাক্রোঁকে ব্যক্তিগত আক্রমণ আন্তর্জাতিক আলোচনার অধিকাংশ মৌলিক মানদণ্ডের লঙ্ঘন।

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির খবরে এমন তথ্য মিলেছে।

বিবৃতিতে মহানবীকে (সা.) বিদ্রূপ করে আঁকা কার্টুন শ্রেণিকক্ষে প্রদর্শনের পর গলা কেটে এক ফরাসি শিক্ষককে হত্যার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ভারত।

দাবি করা হয়েছে, যে কোনো কারণে কিংবা পরিস্থিতিতে সন্ত্রাসবাদকে ন্যায্যতা দেয়ার সুযোগ নেই।

ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, ম্যাক্রোঁকে অগ্রহণযোগ্য ভাষায় ব্যক্তিগত আক্রমণের আমরা জোরালো নিন্দা জানাচ্ছি। এটি আন্তর্জাতিক আলোচনার অধিকাংশ মানদণ্ডের লঙ্ঘন।

বিবৃতিতে বলা হয়, আমরা ওই ফরাসি শিক্ষককে সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে হত্যার নিন্দা জানাচ্ছি। তার পরিবার ও ফরাসি জনগণের প্রতি শোক জানাচ্ছি।

বিবৃতির পরে ভারতে নিযুক্ত ফরাসি রাষ্ট্রদূত ইমানুয়েল লেনিন কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে এক টুইটবার্তায় বলেন, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে দুই দেশ পরস্পরের ওপর নির্ভরশীল। ধন্যবাদ ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

চলতি মাসের শুরুতে ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেন, বিশ্বজুড়ে ইসলাম সংকটে আছে। ফরাসি মুসলমানদের বিরুদ্ধে বিচ্ছিন্নতাবাদের অভিযোগ তোলেন তিনি।

এ ছাড়া ওই শিক্ষককে হত্যার ঘটনার পর ম্যাক্রোঁ ইসলাম বিদ্বেষকে আরও উসকে দেন। এতে সারা বিশ্বে মুসলমানদের মধ্যে ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। তুরস্ক-পাকিস্তান ফরাসি পণ্য বয়কটের ডাক দেয়া হয়েছে।

রাজধানী থেকে ফরাসি রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কারেরও দাবি তুলেছেন মুসলমানরা। কিন্তু এসব কিছুর বিপরীতে গিয়ে ভারতে প্রকাশ্যে ফরাসি প্রেসিডেন্টের প্রতি সমর্থন দিতে দেখা গেছে।

ম্যাক্রোঁকে ‘ব্যক্তিগত আক্রমণের’ তীব্র নিন্দা ভারতের

 অনলাইন ডেস্ক 
২৯ অক্টোবর ২০২০, ০১:৫৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ম্যাক্রনকে ‘ব্যক্তিগত আক্রমণের’ তীব্র নিন্দা ভারতের
ফাইল ছবি

‘মৌলবাদী ইসলামের’ বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নেয়ায় ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁকে ব্যক্তিগত আক্রমণের জোরালো নিন্দা জানিয়েছে ভারত। 

বুধবার দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কড়া ভাষায় দেয়া এক বিবৃতিতে বলেছে, ম্যাক্রোঁকে ব্যক্তিগত আক্রমণ আন্তর্জাতিক আলোচনার অধিকাংশ মৌলিক মানদণ্ডের লঙ্ঘন।

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির খবরে এমন তথ্য মিলেছে।

বিবৃতিতে মহানবীকে (সা.) বিদ্রূপ করে আঁকা কার্টুন শ্রেণিকক্ষে প্রদর্শনের পর গলা কেটে এক ফরাসি শিক্ষককে হত্যার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ভারত। 

দাবি করা হয়েছে, যে কোনো কারণে কিংবা পরিস্থিতিতে সন্ত্রাসবাদকে ন্যায্যতা দেয়ার সুযোগ নেই।

ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, ম্যাক্রোঁকে অগ্রহণযোগ্য ভাষায় ব্যক্তিগত আক্রমণের আমরা জোরালো নিন্দা জানাচ্ছি। এটি আন্তর্জাতিক আলোচনার অধিকাংশ মানদণ্ডের লঙ্ঘন।

বিবৃতিতে বলা হয়, আমরা ওই ফরাসি শিক্ষককে সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে হত্যার নিন্দা জানাচ্ছি। তার পরিবার ও ফরাসি জনগণের প্রতি শোক জানাচ্ছি।

বিবৃতির পরে ভারতে নিযুক্ত ফরাসি রাষ্ট্রদূত ইমানুয়েল লেনিন কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে এক টুইটবার্তায় বলেন, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে দুই দেশ পরস্পরের ওপর নির্ভরশীল। ধন্যবাদ ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

চলতি মাসের শুরুতে ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেন, বিশ্বজুড়ে ইসলাম সংকটে আছে। ফরাসি মুসলমানদের বিরুদ্ধে বিচ্ছিন্নতাবাদের অভিযোগ তোলেন তিনি।

এ ছাড়া ওই শিক্ষককে হত্যার ঘটনার পর ম্যাক্রোঁ ইসলাম বিদ্বেষকে আরও উসকে দেন। এতে সারা বিশ্বে মুসলমানদের মধ্যে ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। তুরস্ক-পাকিস্তান ফরাসি পণ্য বয়কটের ডাক দেয়া হয়েছে।

রাজধানী থেকে ফরাসি রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কারেরও দাবি তুলেছেন মুসলমানরা। কিন্তু এসব কিছুর বিপরীতে গিয়ে ভারতে প্রকাশ্যে ফরাসি প্রেসিডেন্টের প্রতি সমর্থন দিতে দেখা গেছে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ফ্রান্সে ইসলাম অবমাননা